বাংলাদেশে প্রথম সম্পূর্ণ সিসি ক্যামেরার কাভারেজে এলো যে গ্রাম

0

পাবনা প্রতিনিধি:

একটি-দুটি নয় ৩০০ সিসি ক্যামেরার আওয়ায় এলো পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার একটি গ্রাম। এলাকা থেকে সন্ত্রা’স, জ’ঙ্গিবাদ, চাঁদা’বাজি, মা’দক, ইভটি’জিংসহ অন্যান্য অ’পকর্ম দূর করতে গ্রামে এসব সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে।

শুক্রবার উপজেলার সাহাপুর ইউপির তিলকপুর গ্রামের কয়েকজন যুবক ৩০০ সিসি ক্যামেরা বসিয়ে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেন পুরো গ্রামকে। স্বেচ্ছাসেবী এই যুবকদের প্রশংসা করেছেন গ্রামবাসী।

এ কাজের অন্যতম উদ্যোক্তা ও সমন্বয়কারী শাহীন রানা। তার দাবি, সর্বপ্রথম সিসি ক্যামেরার আওতায় আসা তিলকপুর গ্রামই এখন দেশের মধ্যে একমাত্র ডিজিটালাইজড গ্রাম।

তিনি বলেন, এসব সিসি ক্যামের কন্ট্রোল প্যানেলে ২৪ ঘণ্টা মনিটরিং সক্রিয় থাকবে। স্থানীয় হাফিজিয়া মাদ্রাসার একটি কক্ষে কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হয়েছে যেখান থেকে গ্রামের নিরাপত্তার বিষয়টি দেখা হবে।

সিসি ক্যামেরা স্থাপন নিয়ে শুক্রবার দুপরে তিলকপুর হাফিজিয়া মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে এই কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়। স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা গ্রামের যুবকদের এ কাজের প্রশংসা করেন।

অনুষ্ঠানো জানানো হয়, তিলকপুর গ্রামে ৩০০ সিসি ক্যামেরা বসাতে প্রায় ২০ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। গ্রামের প্রায় ২০০ যুবককে সঙ্গে নিয়ে কয়েকজন সমাজ সেবকের পৃষ্ঠপোষকতায় এ পরিকল্পনাটি সফল করা হয়েছে।

গ্রামবাসীর এমন উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয় জানিয়ে ঈশ্বরদী থানার ওসি বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, এমন উদ্যোগে গ্রামে অপরাধমূলক কাজ কমে আসবে নিশ্চিত। কারণ কোনো অপরাধ সংঘটিত হলে অপরাধীদের শনাক্ত করতে সুবিধা হবে। এতে গ্রামবাসীরা শান্তিতে থাকবেন। পাশাপাশি প্রশাসনও উপকৃত হবে।

লাভ হলো না সাঈদ খোকনের কান্নায়!

ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের নাম চূড়ান্ত করেছে আওয়ামী লীগ। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে মেয়র পদে আতিকুল ইসলাম ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে (ডিএসসিসি) শেখ ফজলে নূর তাপসকে চূড়ান্ত করা হয়েছে। বাদ পড়লেন সাঈদ খোকন।

গত ২৬ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবার দুপুরে ধানণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করতে এসে সাঈদ খোকন আবেগে কেঁদে কেঁদে বলেছিলেন, রাজনৈতিক জীবনে এখন তিনি ‘কঠিন সময়’ পার করছেন। সেদিন তিনি প্রার্থীতার বিষয়ে নেত্রীর (শেখ হাসিনা) সুদৃষ্টি কামনা করেন।

ফরম সংগ্রহ করার দিন সাঈদ খোকন সাংবাদিকদের সামনে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন, প্রিয় ঢাকাবাসী, আপনাদের প্রিয় নেতা আমার পিতা প্রয়াত মেয়র মোহাম্মদ হানিফ। পিতার হাত ধরে রাজনীতিতে এসেছি, আজ আমার পিতা নেই, পিতাকে হারিয়েছি। পিতার অবর্তমানে আমার নেত্রী শেখ হাসিনা আমার অভিভাবক। তিনি আমার জন্য যেটা ভালো মনে করবেন, আমার নেত্রী আমার জন্য যেটা ভালো মনে করবেন, সেটাই করবেন।

কিন্তু সকল আবেগ আর কান্না উ’পেক্ষিত হলো। আজ শনিবার রাতে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গণভবনে অনুষ্ঠিত দলটির স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে আতিকুল এবং তাপসের প্রার্থীতা চূড়ান্ত করা হয়। তবে দুই সিটিতে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীদের নাম রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হবে।

শেয়ার করুন !
  • 186
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!