পায়ুপথে ৪ হাজার ইয়া-বাসহ বিমানবন্দরে আটক যাত্রী

0

সময় এখন ডেস্ক:

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ৪ হাজার ১৮০ পিস ইয়া-বাসহ ইয়াসিন মাতবর (৩৭) নামে এক যাত্রীকে আটক করেছে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ। এই বিপুল পরিমাণ ইয়া-বা পায়ুপথে প্রবেশ করানো হয়।

মঙ্গলবার সকালে বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনালের বহি’র্গামী রাস্তা থেকে তাকে আটক করে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ। বিকেলে বিমানবন্দর থানায় ইয়াসিনের বিরু’দ্ধে মা’দকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়। বিমানবন্দর আর্মড পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপারেশনস অ্যান্ড মিডিয়া) আলমগীর হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, মঙ্গলবার সকালে বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনালের বহি’র্গামী রাস্তার পাশে অপেক্ষাগার এলাকায় ঘোরাফেরা করছিলেন ইয়াসিন। এ সময় তার গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হলে সেখানে দায়িত্বরত আর্মড পুলিশ সদস্যরা তাকে আটক করেন।

পরবর্তীতে তাকে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশের হেফাজতে নিয়ে তল্লাশি ও জিজ্ঞাসা’বাদ করা হয়। জিজ্ঞাসা’বাদে পায়ুপথে ইয়া-বা থাকার কথা স্বীকার করেন ইয়াসিন। আটক ইয়া-বার বাজার মূল্য ১৩ লাখ টাকা।

জিজ্ঞাসা’বাদে জানা যায়, ৪০ হাজার টাকার বিনিময়ে কক্সবাজার উখিয়ার মো. ইউসুফ নামে এক মা’দক ব্যবসায়ী তাকে ওই ইয়া-বা ঢাকায় পৌঁছানোর দায়িত্ব দেয়।

বছরের শেষ চালানে আটক হলো প্রায় ৪ লাখ ইয়া-বা

২০১৯ সালের শেষ দিনে কক্সবাজারের টেকনাফে ৩ লাখ ৭৮ হাজার ৯১৫ পিস ইয়া-বা উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। ইয়া-বার বিশাল চালান জ’ব্দ হলেও এ ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

মঙ্গলবার (৩১ ডিসেম্বর) দুপুরে টেকনাফের ২ বিজিবির সদর দপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান লে. কর্নেল ফয়সল হাসান খান।

লে. কর্নেল ফয়সল হাসান খান বলেন, মঙ্গলবার সকালে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমুড়া এলাকা দিয়ে মিয়ানমার থেকে ইয়া-বার একটি বড় চালান সীমান্ত দিয়ে প্রবেশের সংবাদ পেয়ে বিজিবির একটি বিশেষ দল ওই এলাকায় অবস্থান নেয়। কিছুক্ষণ পর মিয়ানমার জলসীমানায় লালদ্বীপ থেকে বের হয়ে কয়েকজন পাচা’রকারী নাফ নদীর কিনারে পৌঁছে। এ সময় বিজিবির সদস্যরা তাদের থামানোর সংকেত দিলে ৪টি বস্তা ফেলে বাগানের ভেতর ঢুকে যায়।

তিনি আরও বলেন, ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার বস্তা থেকে ৩ লাখ ৭৮ হাজার ৯১৫ পিস ইয়া-বা উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার ইয়া-বা বিজিবির সদর দপ্তরে জমা রাখা হয়েছে। পরবর্তীতে সংশ্লিষ্টদের উপস্থিতিতে সেগুলো ধ্বং’স করা হবে।

লে. কর্নেল ফয়সল হাসান খান বলেন, বিজিবি এই সীমান্তে গত ১ বছরে ৭০ লাখ পিস ইয়া-বাসহ ৩ শতাধিক মা’দক কারবারিকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে। এ ঘটনায় বিভিন্ন সময়ে ক্রসফায়ারে ৩৬ জন মা’দক পাচা’রকারী নিহ’ত হয়। এর মধ্যে নারীসহ ১৭ জন রোহিঙ্গা ছিল।

সীমান্তে বিজিবি কঠোর অবস্থানে রয়েছে উল্লেখ করে বিজিবির এই কর্মকর্তা বলেন, সীমান্তে কঠোর নজরদারি রাখায় ইয়া-বা পাচা’রকারীরা ধরা পড়ছে। কোনও মা’দক ব্যবসায়ী ও পাচা’রকারী ছাড়া পাবে না।

শেয়ার করুন !
  • 103
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply