স্বামীর নামে মেয়েকে ধ-র্ষণের মিথ্যা মামলা, স্ত্রীকে জেলে পাঠালেন আদালত

0

গাজীপুর প্রতিনিধি:

গাজীপুরে স্বামীর নামে সৎ মেয়েকে ধ-র্ষণের অভিযোগ এনে মিথ্যা মামলা করায় বাদীকে কারাগা’রে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) গাজীপুরের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক এ কে এম আবুল কাশেম এ আদেশ দেন।

গাজীপুর বারের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মনজুর মোর্শেদ প্রিন্স মামলার বরাত দিয়ে জানান, গাজীপুর মহানগরীর উত্তর খাইলকুর এলাকার ভাড়াটিয়া পোশাককর্মী রহিমা বেগমের আগের সংসারের মেয়েকে (১৭) জিন-ভূতের ভ’য় দেখিয়ে গত ৫ অক্টোবর ধ-র্ষণ করে তার বর্তমান স্বামী ইব্রাহিম খলিল ওরফে কবিরাজ ইব্রাহিম।

এ ঘটনার পর দিন মেয়েটির মা রহিমা বেগম বাদী হয়ে স্বামী ইব্রাহীম খলিলকে আসামি করে গাছা থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশ গত ১৪ নভেম্বর ধ-র্ষণের অভিযোগে ইব্রাহিমকে গ্রেপ্তার করে।

তিনি আরও জানান, সোমবার গাজীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আসামির জামিন আবেদন করেন আসামিপক্ষের আইনজীবী শওকত আকবর। এ সময় মামলার বাদী আদালতে উপস্থিত হয়ে আদালতকে জানান তিনি তার স্বামীর বিরু’দ্ধে মেয়েকে ধ-র্ষণের যে অভিযোগে মামলা দায়ের করেছিলেন তা সঠিক নয়। মামলাটি ছিল মিথ্যা ও সাজানো।

শুনানি শেষে আদালত আসামিকে জামিন দেন এবং মামলার বাদী রহিমা বেগমকে কারাগা’রে পাঠানোর আদেশ দেন। এছাড়াও মিথ্যা মামলা দায়ের করায় মামলার বাদীর বিরু’দ্ধে মামলা দায়েরের জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেন।

বলাৎ’কারের ভয়ে মাদ্রাসা থেকে পালাতে গিয়ে ছাত্রের মৃ’ত্যু

বলাৎ’কারের হাত থেকে বাঁচতে নোয়াখালীর সেনবাগে মাদ্রাসা থেকে ২ ছাত্র পালানোর চেষ্টা করে। আর এজন্য তারা ৪ তলার জানালার সাথে রশি বেঁধে সেটা বেয়ে বেয়ে নিচে নামার পরিকল্পনা নেয়।

বয়স কম এবং ওজনে হালকা হলেও রশিটি তেমন একটা মজবুত ছিল না। আর তাই তাদের ভার সইতে না পেরে রশিটি ছিঁড়ে যায়। আর এতে সাজিদ (১২) নামে এক ছাত্রের মৃ’ত্যু হয়েছে। সেই সাথে তার সহপাঠি সাইফুল ইসলাম নামে অপর ছাত্র গুরুতর আহত হয়েছে।

সোমবার (৩১ ডিসেম্বর) রাতে উপজেলার কানকিরহাট ইসলামিয়া মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, স্থানীয়দের হৈ চৈ শুনে মাদ্রাসার শিক্ষকরা তাদের উদ্ধার করে রাত সাড়ে ১২টার দিকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাজিদকে মৃ’ত ঘোষণা করেন।

সেনবাগ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাইফুল জানান, মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ ছাত্রদের শা’সনের নামে মা’রধর ও ব’ন্দি করে রাখায় ওই ২ ছাত্র পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় হতাহ’তের ঘটনা ঘটে।

শেয়ার করুন !
  • 817
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!