মোদির দোষ ধরতে ৫ মে’র শাপলা চত্বরের ভিডিও পোস্ট করে হাসির পাত্র ইমরান

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

বিত’র্কিত ও ধর্মভিত্তিক নাগরিকত্ব আইনকে ঘিরে ভারতীয় পুলিশের অ’ত্যাচার প্রমাণ করতে বাংলাদেশের একটি ভিডিও টুইট করলেন পাকিস্থানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তবে এ নিয়ে হাসির খোরাকে পরিণত হওয়ার পর তিনি বুঝতে পারেন, দৃশ্যটি আসলে ঢাকার। তখনই সমালোচনার মুখে সেই ভিডিওটি সরিয়ে ফেলেন তিনি।

ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজারে এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ৭ বছরের পুরনো বাংলাদেশের একটি ভিডিওকে ভারতের বলে দাবি করে প্রতিবেশী রাষ্ট্রকে অস্ব’স্তিতে ফেলতে চেয়েছেন।

ইমরানের টুইট করা ওই ভিডিওটি আসলে ২০১৩ সালের ৫ মে’র। ওইদিন হেফাজতে ইসলামের ঢাকা অবরো’ধ এবং শাপলা চত্বরে অবস্থান নেয়ার ঘটনা ঘটে। হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা সেদিন ঢাকা শহরে চরম অরা’জকতা ও তা’ণ্ডব চালিয়েছিল। পরে পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা তাদেরকে প্র’তিহত করে। এক পর্যায়ে হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা ঢাকা ত্যাগ করেন।

শুক্রবার (৩ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ব্যক্তিগত টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এই ভিডিওটি পোস্ট করে ইমরান ক্যাপশনে দাবি করেন, যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যে এ ভাবেই মুসলিমদের ওপর অত্যা’চার চালাচ্ছে উত্তর প্রদেশ পুলিশ। এই ঘটনাটি মুসলিমদের দেশ ছাড়া করতে নরেন্দ্র মোদি সরকারের ভারতীয় পুলিশের হাম’লার অংশ।

টুইটারে ওই ভিডিওটি শেয়ার করামাত্র তা হোয়াট্‌সঅ্যাপ এবং ফেসবুকের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

তবে কিছুক্ষণ পরই ধরা পড়ে ভিডিওটি বাংলাদেশের র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব) সদস্যদের। ভুল ভিডিও পোস্ট করায় তৎক্ষণাৎ ফুঁ’সে ওঠেন ভারতীয় টুইটার ব্যবহারকারীরা। অল্প সময়ের মধ্যে সেখানে ১৯ হাজার টুইট বিনিময় হয়। অনেকে বিভিন্ন ধরনের ব্য’ঙ্গাত্মক কমেন্ট ও মিম দিয়ে ইমরান খানকে নিয়ে ‘মজা’ করেন।

পাকিস্থান প্রধানমন্ত্রীর টুইটের প্রেক্ষিতে সাদানন্দ ধুমে নামের একজন লেখেন, একটা দেশের প্রধানমন্ত্রী ভুল সংবাদ ছড়াচ্ছে এটা ঠিক নয়। এ ভিডিওটি বাংলাদেশের। এটা দিয়ে উত্তর প্রদেশের পুলিশের অতিরিক্ত সমালোচনা করা হয়েছে।

আরেকজন লেখেন, ভিডিওটি ভুল হয়েছে ভেবে ইমরান খান টুইটার থেকে এটি সরিয়ে নিয়েছে যেটা তিনি পোস্ট করেছেন। পাকিস্থান প্রধানমন্ত্রী হতা’শা থেকে এটা করেছেন বলে অনেকে মন্তব্য করেছেন।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত এক মেজর লিখেছেন, সন্ধ্যা ৭টার পর ইমরান খানকে কিছু পোস্ট না করার জন্য আমরা উপদেশ দিয়েছি। কিন্তু তিনি কখনো শোনেননি। এটা বাংলাদেশের ৭ বছর আগের ভিডিও।

প্রবল ট্রলের শি’কার হয়ে পোস্টের ২ ঘণ্টার মধ্যেই ওই টুইট সরিয়ে দেয়া হয় পাকি প্রধানমন্ত্রীর টুইটার থেকে।

শেয়ার করুন !
  • 307
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!