ইরাক থেকে নিজেদের সৈন্য সরিয়ে নিচ্ছে জার্মানি

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

নিরাপত্তার কারণে ইরাক থেকে কিছু সৈন্যকে প্রতিবেশী দেশগুলোতে সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জার্মানি।

মার্কিন ড্রোন হাম’লায় ইরানের সামরিক কমান্ডার কাসেম সোলেইমানি নিহ’ত হওয়ার পর দেশটিতে ক্রাইসিস মোমেন্ট তৈরি হওয়ায় সৈন্য সরিয়ে নেয়ার এই সিদ্ধান্ত সোমবার দেশটির আইনপ্রণেতাদের জানিয়েছে ক্ষমতাসীন জার্মান সরকার।

মঙ্গলবার ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে ইরাক থেকে জার্মানির সৈন্য সরিয়ে নেয়ার এই খবর দেয়া হয়েছে।

এক চিঠিতে জার্মান সরকার দেশটির সংসদকে জানিয়েছে, ইরাকি নিরাপত্তাবাহিনীর প্রশিক্ষণের জন্য বাগদাদে নিয়োজিত জার্মানির ১২০ জন সৈন্যের মধ্যে প্রায় ৩০ জনকে জর্ডান এবং কুয়েতে পুনর্মোতায়েন করা হবে।

গত ৩ জানুয়ারি ইরাকের রাজধানী বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে মার্কিন ড্রোন হাম’লায় ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর অভিজাত শাখা কুদস ফোর্সের প্রধান কাসেম সোলেইমানি নিহ’ত হন। এই হ’ত্যাকাণ্ডের পর মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যাপক ক্রাইসিস তৈরি হয়েছে।

রোববার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-সহ অন্যান্য দেশের সৈন্যদের প্র’ত্যাহার করার পক্ষে একটি প্রস্তাব ইরাকের পার্লামেন্টে পাস হয়েছে। তবে দেশটিতে নিযুক্ত মার্কিন সৈন্যদের এখনই সেখান থেকে প্র’ত্যাহার করে নেয়া হবে না বলে জানিয়েছে পেন্টাগন।

জার্মান সরকার বলছে, ইসলামিক স্টেটের বিরু’দ্ধে মার্কিন সামরিক বাহিনীর সঙ্গে যৌথ ল’ড়াইয়ের অংশ হিসেবে ইরাকে সৈন্য মোতায়েন করা হয়েছিল। বাগদাদ এবং তাজি শহরে নিয়োজিত ৩০ জার্মান সৈন্যকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হবে। জার্মানির ১২০ সৈন্যের মধ্যে ৯০ জন ইরাকের উত্তরাঞ্চলের কুর্দি অধ্যুষিত এলাকায় মোতায়েন রয়েছে।

তবে ইরাকি সৈন্যদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হলে সরিয়ে নেয়া জার্মান সৈন্যদের আবারও সেখানে পাঠানো হবে বলে চিঠিতে জানিয়েছে জার্মান সরকার।

জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশটির সরকারি সম্প্রচারমাধ্যম জেডডিএফকে বলেছেন, ইসলামিক স্টেট জ’ঙ্গিদের পুনরুত্থানের আশ’ঙ্কায় বিদেশি সৈন্যদের দ্রুত ইরাক ছাড়া উচিত। কিন্তু কোনও পক্ষ সেটি চায় না।

এদিকে ভারত মহাসাগরের উত্তরাঞ্চলে দিয়েগো গার্সিয়া সামরিক ঘাঁটিতে ৬টি বি-৫২ বো’মারু বিমান পাঠাচ্ছে পেন্টাগন। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের নির্দেশনা পেলে সঙ্গে সঙ্গেই এগুলো তেহরানে আঘা’ত করবে।

তবে ইরানের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণা’স্ত্রের আওতার বাইরে ওই বিমানগুলো মোতায়েন করা হচ্ছে। সোমবার পেন্টাগনের কর্মকর্তারা সিএনএনকে বলেন, নির্দেশনা পেলেই ইসলামিক রিপাবলিক অব ইরানের বিরু’দ্ধে বি-৫২ বো’মারু বিমান অপারেশন শুরু করবে।

যদিও এই বো’মারু বিমানগুলো মোতায়েন মানেই এই নয় যে, যুক্তরাষ্ট্র ইরানে হাম’লার কোনো পরিকল্পনা করে ফেলেছে। আর এসব বিমানকে এখনই হাম’লার কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে তাও নয়।

পেন্টাগন প্রায়ই দীর্ঘ পরিসরে বো’মারু এবং অন্যান্য বিমান মোতায়েন করে থাকে। এর মাধ্যমে মার্কিন বাহিনীর অবস্থান এবং স’ক্ষমতার জানান দেওয়া হয়।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!