সারাদেশে একযোগে শুরু হয়ে গেল মুজিববর্ষের ক্ষণগণনা

0

সময় এখন ডেস্ক:

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের ক্ষণগণনা (কাউন্টডাউন) শুরু হয়েছে। শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) বিকাল ৫টা ১৭মিনিটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুজিববর্ষের লোগো উন্মোচন ও ক্ষণগণনা উদ্বোধন করেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি ও প্রধান সমন্বয়ক প্রধানমন্ত্রীর হাতে মুজিববর্ষের লোগো তুলে দেন। লোগো উন্মোচনের পর প্রধানমন্ত্রী সুইচ টিপে ক্ষণগণনার উদ্বোধন করেন, যা সারাদেশে একযোগে চালু হয়।

সারাদেশের ১২টি সিটি কর্পোরেশনের ২৮টি জায়গা, বিভাগীয় শহর, ৫৩টি জেলা, ২টি উপজেলা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ রাজধানীতে মোট ৮৩টি স্থানে ক্ষণগণনার ঘড়ি বসানো হয়েছে।

২০২০ সালের ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম গ্রহণের শততম বছর পূর্ণ হবে। এ বছরের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ১৭ মার্চ পর্যন্ত জাতির পিতার জন্মশতবর্ষ উদযাপন করবে বাংলাদেশ।

প্রসঙ্গত, ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। দীর্ঘ ৯ মাস পাকিস্থানের কারাগা’র থেকে মুক্ত হয়ে এই দিনে দেশে ফিরে আসেন তিনি। দিনটিকে উপলক্ষ করে মুজিববর্ষের ক্ষণগণনার উদ্বোধন করা হলো।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে বিশ্বনেতারা আসছেন, আমন্ত্রিত নয় পাকিস্থানের কেউ

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে যোগ দিতে সম্মতি জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি, সংযুক্ত আরব আমিরাতের ক্রাউন প্রিন্স শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ান, জাতিসংঘের সাবেক প্রেসিডেন্ট বান কি মুন, ওআইসির সেক্রেটারি জেনারেল ইউসুফ আহমেদ আল-ওথাইমিন, মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মুহাম্মদসহ বেশ বিশ্বের প্রভাবশালী ও ক্ষমতাধর কয়েকজন বিশ্বনেতা।

তবে এই অনুষ্ঠানে পাকিস্থানের কাউকেই আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। এমনকি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকেও নয়।

আজ মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টায় রাজধানীর সেগুনবাগিচার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে বঙ্গবন্ধুর শতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আন্তর্জাতিক কর্মসূচি ও যোগাযোগ উপ-কমিটির সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।

ড. মোমেন বলেন, যথাযথ মর্যাদায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে আমাদের কাজের বেশ কিছু অগ্রগতিও হয়েছে। এ উপলক্ষে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অবস্থিত বাংলাদেশের ৭৭টি মিশনে তিনশ’র মতো অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষের অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, ভুটানের রাজা, ওআইসি সেক্রেটারি জেনারেল, মাহাথির মুহাম্মদ, সোনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধী, জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব বান কি মুনসহ বিশ্বনেতারা উপস্থিত থাকবেন বলে জানান তিনি।

পরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, সংযুক্ত আরব আমিরাতের ক্রাউন প্রিন্সও অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন বলে আমরা আশাবাদী। সারা বছরজুড়ে আয়োজিত অন্যান্য অনুষ্ঠানে বিশ্বনেতারা যোগ দেবেন, যোগ দেবেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মুহাম্মদ।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, ইতোমধ্যে ৩টি বঙ্গবন্ধু চেয়ার স্থাপন করা হয়েছে। ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে আমরা একটি বঙ্গবন্ধু সেন্টার স্থাপন করেছি। পাকিস্থানের মিশনে আমরা বঙ্গবন্ধুর বড় একটি ম্যুরাল স্থাপন করছি। ৪টি দেশের বড় বড় শহরে বঙ্গবন্ধুর নামে রাস্তার নামকরণ করা হচ্ছে।

উপ-কমিটির সভায় বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনে জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলামসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন !
  • 676
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply