ফেসবুক তৈরি করাটাই ছিল এক ভ’য়ঙ্কর ভুল: জাকারবার্গ

0

বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক:

কম সমালোচনা হয়নি ফেসবুক নিয়ে। এরপরও কখনো মুখ খোলেননি স্বয়ং ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ। কিন্তু এবার তিনি নিজেই করলেন সমালোচনা।

গত বুধবার জাকারবার্গ এক প্রেস ব্রিফিংয়ের সময় বলেছিলেন যে, বিগত ১ বছরে তার পরিষেবা থেকে সৃষ্ট একাধিক সং’কটের জন্য তিনি দায়িত্ব নিয়েছেন। এর মধ্যে রয়েছে রাশিয়ার ট্রলের ভুয়া সংবাদ ছড়িয়ে দেওয়া এবং ২০১৬ সালের মার্কিন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনকে প্রভাবিত করার জন্য রাজনৈতিক পরামর্শক সংস্থা ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ডেটা ব্যবহারের অভিযোগ।

জুকারবার্গ বলেছিলেন, আমি মনে করি জীবনে ভুল থেকে শিখতে হবে এবং এগিয়ে যাওয়ার জন্য আপনার কী করা উচিত তা নির্ধারণ করতে হবে। বাস্তবতা হল, আপনি যখন ফেসবুকের মতো এমন কিছু তৈরি করছেন যা পৃথিবীতে নজিরবিহীন, তখন এমন কিছু জিনিস হয়ে উঠবে যেগুলি আপনাকে বিভ্রা’ন্ত করে।

এছাড়াও ফেসবুকের ভাইস প্রেসিডেন্ট চামাথ পালিপিতিয়া জানান, ফেসবুক হলো ভ’য়ঙ্কর ভুল। তিনি তার সন্তানকে ব্যবহার করতে দেন না ফেসবুক।

তিনি জানান, ফেসবুক তৈরি করা হয়েছিল সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে। সামাজিক কাজকর্ম করার জন্য ফেসবুক অনেক রকম টুলস এনেছে। তবে তিনিও জানান যে, তিনি নিজে অনুভব করেছেন এই ফেসবুক হলো ‘ভ’য়ঙ্কর ভুল’। তিনি মনে করেন বর্তমানে সমাজ একটি কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে।

সংস্থার ভাইস প্রেসিডেন্ট চামাথ পালিপিতিয়া জানান, কীভাবে মানুষের মন ঘোরানো যায় সেটা নিয়েও তারা ভাবছেন। কিন্তু তার সঙ্গে সঙ্গে তিনি আরও বলেন, শিশুদের মাথায় কখন কী চলছে, সেটা শুধু ওপরওয়ালা জানেন!

নিজস্ব অপারেটিং সিস্টেম তৈরি করছে ফেসবুক

অগমেন্টেড রিয়েলিটি গ্লাস বা পোর্টালের মতো নানা হার্ডওয়্যার তৈরিতে মনোযোগ দিচ্ছে ফেসবুক। নিজস্ব হার্ডওয়্যার পণ্যে গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের ওপর থেকে নির্ভরতা কমাতে অপারেটিং সিস্টেম তৈরির পথে হাঁটছে তারা।

বার্তা সংস্থা এএফপিকে ফেসবুকের এক মুখপাত্র বলেন, ফেসবুক এমন একটি প্রকল্প নিয়ে কাজ শুরু করেছে, যাতে অন্যান্য প্রতিষ্ঠানকে তাদের তৈরি প্ল্যাটফর্মে যুক্ত করা যায়।

প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট দ্য ইনফরমেশন প্রথম এ তথ্য প্রকাশ করে। প্রতিবেদনে বলা হয়, ফেসবুক এমন একটি অপারেটিং সিস্টেম তৈরি করছে, যাতে তাদের হার্ডওয়্যার ও অন্যান্য সেবা একত্রে দিতে সুবিধা হয়। এতে সামাজিক যোগাযোগের ব্যবহার ও প্রাইভেসির বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারবে তারা।

ফেসবুকের হার্ডওয়্যার বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড্রু বসওর্থ বলেন, পরবর্তী প্রজন্মের কাজের কথা ভেবে নতুন কিছু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এতে গুগলের অ্যান্ড্রয়েডের ওপর ফেসবুকের নির্ভরশীলতা কমবে। তবে ফেসবুক অ্যাপ অ্যান্ড্রয়েড প্ল্যাটফর্মে থাকবে।

ফেসবুকের পাশাপাশি নানা ধরনের প্ল্যাটফর্ম তৈরিতে কাজ করছে ফেসবুক। এর আগে ২০১২ সালে ইনস্টাগ্রাম ও ২০১৪ সালে হোয়াটসঅ্যাপ কিনে নেয় ফেসবুক। ২০১৪ সালে ভার্চ্যুয়াল রিয়েলিটি হেডগিয়ার নির্মাতা অকুলাস কিনে নেয় প্রতিষ্ঠানটি।

ফেসবুকের নতুন অপারেটিং সিস্টেমের নাম হতে পারে ‘ফেসবুক ওএস’। প্রাথমিকভাবে ফেসবুক তাদের স্মার্ট স্পিকার ও অকুলাস ভিআরে ব্যবহার করবে অপারেটিং সিস্টেমটি।

শেয়ার করুন !
  • 1.5K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!