প্লাস্টিক আবর্জনার তথ্য জানাবে অ্যাপ

0

বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক:

ব্যক্তি পর্যায়ে প্লাস্টিক আবর্জনার তথ্য ভাণ্ডার তৈরির লক্ষ্যে একটি ওয়েব অ্যাপলিকেশন চালু করেছে তথ্য সাংবাদিকতা বিষয়ক প্রকল্প ডেটাফুল।

“প্লাস্টিক ট্র্যাকার” নামের ওই ওয়েব অ্যাপলিকেশনটি স্বতন্ত্রভাবে প্লাস্টিক আবর্জনার তথ্য সংরক্ষণ করবে। যেখান থেকে ব্যবহারকারীরা যে কোনো সময় প্লাস্টিক আবর্জনা বিষয়ক তথ্য জানতে পারবেন।

ডেটাফুল প্রকল্পের প্রধান পলাশ বলেন, মানুষকে তাদের প্লাস্টিক আবর্জনা সম্পর্কে জানতে সাহায্য করা এবং পরিবেশের উপর এর ক্ষ’তিকর প্রভাব সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করাই এই অ্যাপলিকেশনের মূল লক্ষ্য।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ এবং বিশ্বের অন্যান্য দেশে পরিবেশের জন্য উ’দ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে প্লাস্টিক আবর্জনা। বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ওয়েস্ট কনসার্নের জরিপের বরাত দিয়ে এক বিবৃতিতে ডেটাফুল জানায়, গত বছর বাংলাদেশের শহরগুলোতে সৃষ্টি হওয়া প্লাস্টিকের আবর্জনার পরিমাণ ছিল ৮ লাখ ২১ হাজার ২৫০ টন। যার মধ্যে মাত্র ৩৬ শতাংশ পুনর্ব্যবহারযোগ্য (রিসাইকেল) ছিল।

এর আগে ২০১৭ সালে বাংলাদেশিরা স্বতন্ত্রভাবে গড়ে ১৭ দশমিক ২৪ কেজি প্লাস্টিকের পণ্য ব্যবহার করেন জরিপের ফলাফলে বলা হয়।

২০১৬ সালের এক প্রতিবেদনে সতর্ক করে বলা হয়, ২০৫০ সালের মধ্যে সমুদ্রে মাছের চেয়ে প্লাস্টিক বেশি থাকবে। জাতিসংঘ বলছে, বিশ্বজুড়ে প্রতি মিনিটে ১০ লাখ প্লাস্টিকের পানীয় বোতল কেনা হয় এবং প্রতি বছর বিশ্বজুড়ে ৫ ট্রিলিয়ন পর্যন্ত প্লাস্টিকের ব্যাগ ব্যবহার করা হয়।

জাতিসংঘ জানায়, উৎপাদিত সব প্লাস্টিকের মধ্যে অর্ধেকই তৈরি করা হয় মাত্র একবার ব্যবহার (ওয়ান টাইম) করার জন্য।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার উপকূলীয় এলাকাসহ সারাদেশে ১ বছরের মধ্যে পলিথিন ব্যাগ এবং ওয়ান টাইম প্লাস্টিক পণ্যের ব্যবহার বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে সরকারকে নির্দেশনা দিয়েছেন আদালত।

দেশের হোটেল, রেস্তোরাঁসহ সব জায়গায় ব্যবহার হওয়া ‘ওয়ান টাইম প্লাস্টিক’ পণ্য ১ বছরের মধ্যে বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। প্লাস্টিক বন্ধের ব্যাপারে কী কী কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে, সে সম্পর্কে জানাতে বিবা’দীদের ২০২১ সালের ৫ জানুয়ারি সময়সীমা বেধে দিয়েছেন আদালত।

শিল্প মন্ত্রণালয় সচিব, পানি উন্নয়ন বোর্ডের সচিব, বেসরকারি বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সচিব, বাংলাদেশ প্লাস্টিক প্রোডাক্ট প্রডিউসার অ্যান্ড এক্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যানসহ ৮ জনকে এ বিষয়ে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

গত সোমবার (৬ জানুয়ারি) এ-সংক্রান্ত এক রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্টের বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

শেয়ার করুন !
  • 41
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!