যু’দ্ধ জাহাজের পর এবার দেশেই হেলিকপ্টার, বিমান তৈরির পরিকল্পনা প্রধানমন্ত্রীর

1

সময় এখন ডেস্ক:

যু’দ্ধ জাহাজের মতো এখন দেশেই আকাশ পথে চলাচলের জন্য উড়োযান হেলিকপ্টার ও বিমান তৈরি করতে চান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর সেই অপারেশন প্ল্যান্টের জায়গা হিসেবে তিনি পছন্দ করেছেন লালমনিরহাট জেলাকে।

লালমনিরহাটে অলস পড়ে থাকা এয়ার স্ট্রিপে একটি অ্যারারোনটিক্যাল সেন্টার তৈরির জন্য বিমানবাহিনীর সঙ্গে কথাও বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। বাহিনীর প্রধানকে তিনি বলেছেন একটি পরিকল্পনা করতে। প্রাথমিকভাবে বাংলাদেশের বিমান ও হেলিকপ্টারগুলো এখানে মেরামত ও ওভারহোলিংয়ের কাজ করা হবে এবং পরে সেখানে এসব আকাশযান তৈরির উদ্যোগও নেয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আয়োজিত জেলা প্রশাসকদের সাথে এক বৈঠকে তাঁর এই পরিকল্পনার কথা জানান প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা তার সরকারের নেয়া নানা প্রকল্প এবং ভবিষ্যত পরিকল্পনার কথা তুলে ধরে জেলা প্রশাসকদের নানা পরামর্শ ও দিক নির্দেশনা দেন। এই প্রসঙ্গে উঠে আসে অ্যারারোনটিক্যাল সেন্টার তৈরির উদ্যোগের বিষয়টি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, লালমনিরহাটে একটা এয়ার স্ট্রিপ আছে। বিশাল জায়গা পড়ে আছে। আমি আমাদের বিমানবাহিনীর প্রধানের সঙ্গে আলোচনা করেছি। আমরা একটি অ্যারারোনটিক্যাল সেন্টার ঢাকায় করেছি। আর সেখানেও আমরা করতে চাই। আমাদের প্লেন বা হেলিকপ্টার ওভারহোলিং করতে হয়, সেখানে আমরা এই ধরনের একটি অ্যারারোনটিক্যাল সেন্টার গড়ে তুলব, যেন ভবিষ্যতে সেখানে আমরা নিজেরাই হেলিকপ্টার তৈরি করতে পারব, প্লেনও তৈরি করতে পারব।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা কেন পারব না? আমরা এখন নিজেরা যু’দ্ধ জাহাজ তৈরি করছি খুলনা শিপইয়ার্ডে। যেটা এক সময় একেবারে বসে গিয়েছিল, শেষ হয়ে গিয়েছিল। বিমানবাহিনীর প্রধানকে বলেছি একটা প্ল্যান করতে, সেটা কেবল বাংলাদেশের নয়, আশপাশের দেশের বিমানবাহিনীর বিমান বা হেলিকপ্টার আমরা ওভারহোলিং করব, মেরামত করব।

বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ফের সমরা’স্ত্র কিনছে বাংলাদেশ!

বর্তমান বিশ্বে অ’স্ত্রের ব্যবসা সবচেয়ে চাঙা অবস্থায় রয়েছে। মধ্যপ্রাচ্য ও এশিয়ায় অ’স্ত্রের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় গত ৫ বছরে এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এই ৫ বছরে সবচেয়ে বেশি অ’স্ত্র কিনেছে সৌদি আরব। ২য় স্থানে রয়েছে ভারত। আর বাংলাদেশের অবস্থান ২৫ তম।

জানা যায়, বিগত কয়েক বছরে বাংলাদেশ অ’স্ত্র আমদানি বাড়িয়েছে।

সুইডেনের স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (এসআইপিআরআই) বার্ষিক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। এসআইপিআরআই তাদের বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

শেয়ার করুন !
  • 52.8K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

১ Comment

Leave A Reply