পাকিস্থান সফরে টেস্ট, ওয়ানডে, টি২০ খেলার সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের

0

স্পোর্টস ডেস্ক:

পাকিস্থান সফরে বাংলাদেশ টেস্ট খেলবে বলে জানিয়েছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। সফরে ২টি টেস্ট, ১টি ওয়ানডে ও ৩টি টি-টোয়েন্টি খেলা হবে। তবে এক সফরে এই ৩ ফরমেটের খেলা শেষ হবে না। ৩ ফরমেটের এ খেলা শেষ হবে একাধিক ধাপে।

পাকিস্থান সিরিজ নিয়ে শুরু থেকেই দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডের মধ্যে দর কষাকষি চলে আসছিল। বিষয়টির সমাধানে মঙ্গলবার দুবাইয়ে আইসিসি সভাপতি শশাঙ্ক মনোহরের ‘মধ্যস্থতায়’ বসেছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ও পিসিবির প্রধান এহসান মানি এবং দুই বোর্ডের প্রধান নির্বাহী। পিসিবি জানিয়েছে, এই বৈঠকেই বিসিবির সঙ্গে তারা ঐকমত্যে পৌঁছেছে।

নতুন সিদ্ধান্তে ৩ মাসে ৩ বার পাকিস্থানে যাবে বাংলাদেশ। সূচি অনুয়ায়ী লাহোরে ২৪, ২৫ ও ২৭ জানুয়ারি ৩টি টি-টোয়েন্টি খেলবে বাংলাদেশ। পরে দেশে এসে ৭ থেকে ১১ ফেব্রুয়ারি প্রথম টেস্ট খেলতে পাকিস্থান যাবে বাংলাদেশ। রাওয়ালপিন্ডিতে হবে এই টেস্ট। এটি আইসিসির টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ। খেলা শেষে আবার ফেরত আসবে টাইগাররা।

ফেব্রুয়ারি-মার্চে হবে পাকিস্থান সুপার লিগ (পিএসএল)। এ কারণেই টেস্ট সিরিজের মাঝে একটা লম্বা বিরতি পড়েছে বলে জানিয়েছে পিসিবি। এরপর এপ্রিলে আবার পাকিস্থানে যাবে বাংলাদেশ। সেখানে ৩ এপ্রিল একটি ওয়ানডে খেলা হবে। এরপর ৫ থেকে ৯ এপ্রিল ২য় টেস্ট।

সফরের নতুন সূচি নিয়ে পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি বলেছেন, গর্বিত দুটি ক্রিকেট খেলুড়ে দেশ ও খেলাটার বৃহৎ স্বার্থে আমরা একটা আপসে পৌঁছাতে পেরে খুশি। এ সিদ্ধান্তের পর মানি আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহরকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

পাকিস্থান সফর নিয়ে টানাপড়েনের মধ্যে গত রবিবার (১২ জানুয়ারি) ৫ ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক করে বিসিবি। বৈঠক শেষে নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছিলেন মধ্যপ্রাচ্যের উত্তে’জনায় সরকারের পক্ষ থেকে সফর সংক্ষেপ করার নির্দেশনা আসায় টেস্ট ম্যাচ খেলা সম্ভব হবে না বাংলাদেশ দলের পক্ষে। পরিস্থিতির উন্নতি হলে পরে টেস্ট ম্যাচ খেলা যাবে।

বিসিবি শুধু টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার প্রস্তাব অনেক আগেই দিয়েছিল পাকিস্থানকে। তবে পাকিস্থানের বোর্ড তাতে রাজি না হয়ে নানাভাবে চেষ্টা করে আসছিল টেস্ট ম্যাচের জন্য বাংলাদেশকে সফরে নিতে।

আইসিসির নির্ধারিত ফিউচার ট্যুর প্ল্যান অনুযায়ী, সফরে স্বাগতিক পাকিস্থানের বিপক্ষে ৩টি টি-টোয়েন্টি ও ২টি টেস্ট খেলার কথা বাংলাদেশ দলের। কিন্তু ২ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে দীর্ঘ সময় পাকিস্থানে অবস্থান করতে হবে বলে বাংলাদেশ সরকার ও বোর্ড টেস্ট খেলতে আপত্তি জানিয়েছে।

বিসিবি প্রধান বলেছিলেন, সরকারের বার্তায় স্পষ্ট করে বলা আছে টেস্ট খেলতে সফরে না যেতে। আমরা সফরের সম্ভাব্য সূচি সরকারকে পাঠিয়েছিলাম। উনারা বলেছেন, টি-টোয়েন্টি ৩টি যতটা দ্রুত সম্ভব শেষ করে চলে আসতে। পরে পরিস্থিতি ভালো হলে টেস্ট ম্যাচ খেলা যেতে পারে।

কিন্তু সেটা মানতে রাজি হয়নি পাকিস্থান ক্রিকেট বোর্ড। পাকিস্থানে পুরো দমে টেস্ট ফিরিয়ে আনতে বাংলাদেশের সফর বেশ গুরুত্বপূর্ণ বলে দাবি করে টি-টোয়েন্টি না খেলে টেস্টের দিকে মনোযোগ দিতে চান পাকিস্থান বোর্ডের হর্তাকর্তারা।

এমন পরিস্থিতিতে আইসিসির সভায় যোগ দিতে দুবাইয়ে অবস্থান করা দুই বোর্ড প্রধান বিষয়টি নিয়ে আলোচনার পর একাধিক ধাপে ৩ ফরমেটের খেলা শেষ করার বিষয়টি জানানো হলো।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!