সিটি নির্বাচনের তারিখ পেছানোর দাবিতে আপিল বিভাগে আবেদন

0

আইন আদালত ডেস্ক:

সরস্বতী পূজার কারণে ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের নির্দেশনা চেয়ে করা রিট খারিজের বিরু’দ্ধে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে আবেদন করা হয়েছে।

আপিল আবেদনে ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন স্থ’গিত চাওয়ার পাশাপাশি ভোটগ্রহণের জন্য নতুন তারিখ নির্ধারণ করতে আর্জি জানানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার আবেদনটি করেন আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ।

আগামী রবিবার আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে এ বিষয়ে শুনানি হতে পারে বলে জানা গেছে।

এর আগে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ভোটের দিন পরিবর্তনের নির্দেশনা চেয়ে যে রিট করা হয়েছিল গত ১৪ জানুয়ারি তা খারিজ করেন হাইকোর্ট। আদালত বলেন, সামনে এসএসসি পরীক্ষা, তাই নির্বাচন পেছানোর সুযোগ নেই।

আদালত আরও বলেন, সরকার আগে ২৯ জানুয়ারি সরস্বতী পূজার জন্য সরকারি ছুটির দিন নির্ধারণ করেছে। তখন রিট পিটিশনারসহ কেউ আ’পত্তি করেন।

এর আগে গত রবিবার ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ভোটের দিন পরিবর্তনের নির্দেশনা চেয়ে করা রিট আবেদন কার্যতালিকা থেকে বাদ দেন হাইকোর্টের অন্য একটি বেঞ্চ।

গত ৫ জানুয়ারি সরস্বতী পূজার কারণে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণের নির্ধারিত তারিখ পেছানোর জন্য রিট করেন আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ।

দুদকের মামলায় মেয়র প্রার্থী ইশরাকের বিচার শুরু

নির্ধারিত সময়ে সম্পদের বিবরণী জমা না দেয়ায় সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইশরাক হোসেনের বিরু’দ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের মামলায় বিচার শুরু হয়েছে। ইশরাক ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী।

বুধবার ইশরাকের বিরু’দ্ধে দুদকের দায়ের করা মামলায় অভিযোগ গঠনের আদেশ দিয়েছেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালতের-৪-এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম। একইসঙ্গে মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করা হয়েছে।

বুধবার মামলার দায় থেকে ইশরাকের অ’ব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেন তার আইনজীবী। আর দুদকের আইনজীবী অভিযোগ গঠন বিষয়ে শুনানি করেন। বিচারক উভয় পক্ষের আবেদন শুনানি করে আসামিপক্ষের আবেদন না-মঞ্জুর করে অভিযোগ গঠন করেন।

জানা গেছে, ২০০৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর ইশরাক হোসেনের নিজে এবং তাদের ওপর নির্ভরশীল ব্যক্তিদের সম্পদের বিবরণী দাখিলের নোটিশ দেয় দুদক।

একই বছরের ৪ সেপ্টেম্বর দুদকের কনস্টেবল তালেব কমিশনের নোটিশটি জারি করতে তাদের বাসভবনে যান। কিন্তু ইশরাক হোসেন সেখানে উপস্থিত না থাকায় উপস্থিত ৪ সাক্ষীর সামনে বাসভবনের নিচ তলায় প্রবেশ পথের বাম পাশের দেয়ালে স্কচটেপ দিয়ে ঝুলিয়ে নোটিশটি জারি করেন কনস্টেবল তালেব।

দুদকের দেওয়া ৭ কার্যদিবসের মধ্যে ইশরাক হোসেন সম্পদের হিসাব নির্ধারিত ফরমে দাখিল করেননি। ওই ঘটনায় ২০১০ সালের ২৯ আগস্ট রাজধানীর রমনা থানায় তার বিরু’দ্ধে মামলা করেন দুদকের তৎকালীন সহকারী পরিচালক সামছুল আলম।

ওই বছরের ৬ ডিসেম্বর ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদারের আদালতে খোকার ছেলে ইশরাকের বিরু’দ্ধে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা (দুদকের উপ-পরিচালক) জাহাঙ্গীর হোসেন।

পরের বছরের ৫ মে সম্পদের হিসাব বিবরণী দাখিল না করার অভিযোগে অভিযোগপত্র আমলে নেওয়ার জন্য দিন ধার্য ছিল। ওইদিন ইশরাক আদালতে উপস্থিত না হওয়ায় ঢাকা মহানগর দায়রা জজ ইমরুল কায়েস অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশ দেন।

একইসঙ্গে মামলাটি বিচারের জন্য ঢাকার ৪ নম্বর বিশেষ জজ আদালতে বদলির আদেশ দেন। এরপর ওই বছরের ৯ ডিসেম্বর ইশরাক আত্ম’সমর্পণ করে জামিনের আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন।

শেয়ার করুন !
  • 26
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply