‘বন্দে মাতরম’ বলতে না পারলে ভারতে থাকার অধিকার নাই

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ভারতে থাকতে হলে বন্দে মাতরম বলতেই হবে। যারা বন্দে মাতরম বলতে রাজি নয় তাদের ভারতে থাকার কোনও অধিকার নেই।

ভারতের কেন্দ্রীয় ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি শিল্প মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী প্রতাপচন্দ্র সারেঙ্গি এমনই মন্তব্য করেছেন। মোদি সরকারের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনকে (সিএএ) কংগ্রেসের করে যাওয়া ‘দেশভাগের পাপের প্রায়শ্চিত্ত’ বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

শনিবার সিএএ-র সমর্থনে গুজরাটের সুরাটে এক সভার আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মোদি মন্ত্রীসভার এই সদস্য বলেন, বিনামূল্যে বিদ্যুৎ বা জলের মতো পরিষেবা দিয়ে কোনও জাতির উন্নতি সম্ভব নয়। দেশের প্রতি নাগরিকদের ভালোবাসা, দায়বদ্ধতার মাধ্যমেই একমাত্র দেশের উন্নতি সম্ভব। আর এই প্রসঙ্গই বন্দে মাতরম প্রসঙ্গ আনেন একদা আরএসএসের সক্রিয় এই নেতা।

তার অভিমত, বন্দে মাতরম এবং দেশপ্রেম সমার্থক। আর যারা বন্দে মাতরম বলেন না তাদের ভারতে থাকার কোনও অধিকার নেই।

সিএএ-র স্বপক্ষেও একাধিক যুক্তি তুলে ধরেছেন প্রতাপ সারেঙ্গি। শুধু তাই নয়, আজ থেকে ৭০ বছর আগে দেশে এমন একটি আইন চালু করা উচিত ছিল বলেও দাবি করেছেন তিনি।

শুধু তাই নয় নাগরিকত্ব আইন তৈরির জন্য প্রধানমন্ত্রী মোদির ধন্যবাদ প্রাপ্য বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

মহাভারতের অর্জুনের তীরে ছিল পারমাণবিক শক্তি: পশ্চিমবঙ্গের গভর্নর

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের গভর্নর জগদীপ ধনখড় দাবি করেছেন, ধর্মীয় গ্রন্থ মহাভারতের চরিত্র অর্জুনের তীরে ছিল পারমাণবিক শক্তি। আর মহাভারতে উল্লেখিত ঘোড়ার গাড়িগুলোতে ছিল আকাশে উড়ার ক্ষমতা।

ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) কলকাতায় একটি বিজ্ঞান ও প্রকৌশল মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

মহাভারতে পাণ্ডব ও কৌরবদের যুদ্ধের কথা উল্লেখ করে ধনখড় বলেন, আমরা জানি অর্জুনের তীরে ছিল পারমাণবিক শক্তি।

তিনি আরও বলেন, বিংশ শতাব্দীতে আবিস্কৃত উড়োজাহাজ আসলে রামায়ণে উল্লেখিত “খাটোলা” (উড়তে সক্ষম ঘোড়ার গাড়ি)।

তার মতে, ভারতকে অ’গ্রাহ্য করার শক্তি পৃথিবীর কারও নেই।

ধনখড়ের এমন বক্তব্যের পর উঠেছে তীব্র সমালোচনার ঝড়। ভারতীয় বিজ্ঞানী ও প্রযুক্তিবিদরা বলছেন, গভর্নরের মতো একটি পদকে অ’সম্মানিত করতে পারে এমন বক্তব্য প্র’ত্যাহার করা উচিত তার।

শেয়ার করুন !
  • 49
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply