বাংলাদেশ বিমান বাহিনীতে যুক্ত হচ্ছে অত্যাধুনিক বিমান ও প্রযুক্তি

0

বিশেষ প্রতিবেদন:

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর সর্বাপেক্ষা স্বর্ণালী সময় ছিল বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জনের পরের সময়কালে। কেউ ভাবতে পারেনি যু’দ্ধ-বিধ্ব’স্ত বাংলাদেশ স্বাধীনতার পর পরই মিগ-২১ এর মত লেজেন্ডারী এয়ারক্রাফট স্বাধীন বাংলার আকাশে উড়বে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান এ যু’দ্ধপী’ড়িত দেশের জন্য এয়ারক্রাফট, ট্যাংক, যু’দ্ধজাহাজ- কী সংগ্রহ করেননি?

তবে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী সবচাইতে বড় ধাক্কা খায় “বিমান বাহিনী ক্যু” এর মাধ্যমে। বলার অপেক্ষা রাখে না, তৎকালীন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান দেশের বিমান বাহিনীকে বিশ্বাস করতে পারেননি। তিনি দেশের বিমান বাহিনীর সদস্যদের ছাঁটাই, সামরিক আইনে বিচার সবই শুরু করলেন। বিমানের সাহায্যে বিমান বাহিনী যেন প্রেসিডেন্সিয়াল ভবনে অ্যাটাক করতে না পারে, সেজন্য তিনি বিমান বাহিনীকেই ধ্বং’স করে দিলেন। পাইলট সংখ্যা নেমে আসলো হাতেগোণা মাত্র কয়েকজনে।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর জন্য এটি বেশ বড় একটি ধাক্কা ছিল। সামরিক শাসনে হু. মু. এরশাদ কিছু এয়ারক্রাফট আনলেন। ৯১ সালে খালেদা জিয়া সরকারের সময়ও তেমন একটা আলোর মুখ দেখেনি বিমান বাহিনী। বিমান বাহিনী এরপর স্টেট অব দ্যা আর্ট মিগ-২৯ এয়ারক্রাফট হাতে পায়, তাও শেখ হাসিনার আমলে।

ভারত, মিয়ানমার, যুক্তরাষ্ট্র এই সংবাদ বেশ গুরুত্ব দিয়ে কভার করে। কারন তাদের মতে, এত দামী এয়ারক্রাফট বাংলাদেশের দরকার ছিল না।

২০০১ সালে ২য় বড় ধাক্কাটা বিমান বাহিনী খায় খালেদা জিয়ার শাসনামলে। যখন ৮টি মিগ-২৯ কে সার্ভিস থেকে সরিয়ে ফেলা হয়। বিক্রির উদ্যোগ নেয়া হয়। মিগ-২৯ দুর্নীতি মামলা জারি হয় বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে। যদিও সে মামলা পরে খারিজ হয়।

২০০৯ থেকে ২০২০ অবধি ট্রেনার, ফাইটার, ইন্টারসেপ্টর, ট্রান্সপোর্ট- ইত্যাদি সব ক্ষেত্রেই বাংলাদেশ বিমান বাহিনী উন্নয়ন করেছে। এয়ারবেস, রাডার, স্যাম (সারফেস টু এয়ার মিসাইল) সিস্টেম, জ্যামার সবই পাচ্ছে বিমান বাহিনী। ইউকে হতে ৫টি সি-১৩০ জে-৫ যুক্ত করা হয়েছে। যার ২য়টি এ বছরের মার্চে বহরে সংযুক্ত হবে।

এমআরসিএ (মাল্টিরোল কমব্যাট এয়ারক্রাফট) ৮টির জায়গায় জিটুজি ভিত্তিতে ১৬টি ক্রয় করা হচ্ছে। যুক্ত হচ্ছে অ্যাটাক হেলিকপ্টার। ভরসা রাখা যায়, এমন মেরিটাইম, ইন্টারসেপ্টর সকল রোলই পালন করতে পারবে এয়ারক্রাফটগুলো।

উপমহাদেশে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ইতিহাসটা চমকের। শুধুমাত্র যদি তা রাজনীতির গ্যাঁড়াকলে না পড়ত, তবে এতটা হতা’শা থাকতো না।

© ডিফেন্স রিসার্চ ফোরাম

শেয়ার করুন !
  • 4K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply