বিখ্যাত ফাইটার জেট এফ-১৬ সম্পর্কে যে বিষয়গুলো আপনি জানেন না

0

ফিচার ডেস্ক:

এফ-১৬ ফাইটার জেট এর পুরো নাম- General Dynamics F-16 Fighting Falcon। এক ইঞ্জিন বিশিষ্ট মাল্টিরোল সুপারসনিক ফাইটার জেটটি বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিমান বাহিনী ব্যবহার করছে নির্ভরতার কারনে। মার্কিন প্রতিষ্ঠান জেনারেল ডাইনামিক্স এর সমরা’স্ত্র নির্মাণকারী উইং লকহিড মার্টিন ১৯৭৩ সালে এটি তৈরী করেছে।

বিমানটির আরও কয়েকটি সংস্করণ রয়েছে, যেমন- ভিস্তা, ভট-১৬০০, এক্সএল, মিৎসুবিশি এফ-২ ইত্যাদি।

আসুন কিছু তথ্য জেনে নিই, যার কারনে এই ফাইটার জেটকে প্রায় ৫ দশক পর্যন্ত আস্থার প্রতীক হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

১। এফ-১৬ ফাইটার জেটকে Viper বলেও ডাকা হয়। কারণ এর সামনের অংশ (নোজ) দেখতে Viper snake এর মতো।
২। এ পর্যন্ত ৪ হাজার ৬০০টিরও বেশি এফ-১৬ ফাইটার জেট তৈরি হয়েছে। মিগ-২১ ছাড়া অন্য কোনো ফাইটার জেট এত বেশি পরিমাণে তৈরি হয়নি (১১ হাজার+)।
৩। এফ-১৬ ফাইটার জেটেই প্রথম Frame-less Bubble Canopy ব্যবহার করা হয়। যার ফলে পাইলট ৩৬০° পর্যন্ত দেখার সুবিধা পায়।

৪। এফ-১৬ ফাইটার জেটেই প্রথম Controlling Stickটি হাতের পাশে রাখার ব্যবস্থা করা হয়। যাতে ম্যানুভারের সময় পাইলট বাড়তি সুবিধা পায়। বেশিরভাগ ফাইটার জেট এর Stick দুই পায়ের মাঝে থাকে।
৫। ফাইটার জেটের ইতিহাসে এফ-১৬ই প্রথম 9G পর্যন্ত Pull করতে সক্ষম হয়। কারণ অ্যারোডায়নামিক ডিজাইনের কারনে G Force Reduce করতে পারা প্রথম বিমান এটি।

৬। এছাড়াও ফাইটার জেটের ইতিহাসে এফ-১৬ই প্রথম ম্যাক-২+ গতি তুলেছিল।
৭। কোনো ফাইটার জেটে Fly-by-wire System ব্যবহার শুরু হয় এফ-১৬ এর হাত ধরেই।

৮। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে এফ-১৬ ফাইটার জেট একটি Negative Stable Fighter Jet. যে কোনো ফাইটার জেট আকাশে থাকা অবস্থায় পাইলট কন্ট্রোল ছেড়ে দিলে তা Sea Level অর্থাৎ সোজা অবস্থায় উড়তে থাকবে। একে Positive Stable বলা হয়। কিন্তু এফ-১৬ এর কন্ট্রোল ছেড়ে দিলে তা ঘুরতে ঘুরতে মাটিতে পড়ে যাবে। এটি এভাবেই তৈরী করা হয়েছে। কারন Negative Stable এর Aerodynamic Design তুলনামুলক বেশি ম্যানুভারেবল হয়। এর ফলে পাইলট বিভিন্ন রোল প্রদর্শনে টেকনিক্যালি কোনো সমস্যা অনুভব করেনা। নিজের ইচ্ছেমতো ম্যানুভার করতে পারে। এ জন্য এফ-১৬ এর পাইলটদের অনেক বেশি দক্ষ হতে হয়।

৯। এই ফাইটার জেটটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তৈরি করলেও এর প্রথম Air-Air Kill সফলতা আসে ইসরায়েলের হাত ধরে ১৯৮১ সালে। ইসরায়েলি এক পাইলট গু’লি করে একটি MI-8 হেলিকপ্টারকে ভূ-পাতিত করে। এর পরের বছর আবারও ইসরায়েল এফ-১৬ ব্যবহার করে অপর একটি ফাইটার জেট ভূ-পাতিত করে।

১০। ২৫টি দেশের সামরিক বাহিনীতে এই ফাইটার জেটটি ব্যবহার করা হচ্ছে। জেনারেল ডায়নামিক্স জাপানি প্রতিষ্ঠান মিৎসুবিশির সাথে ৬৪:৪০ অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে জাপানের বিমান বাহিনীর জন্য মিৎসুবিশি এফ-২ ভার্সনটি তৈরী করেছে।

শেয়ার করুন !
  • 98
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!