‘তুই মেয়ে হয়ে জন্মেছিস বলে?’

0

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি:

গত শুক্রবার রাতে বাস থেকে নামলেন এক নারী। কোলে ফুটফুটে নবজাতক। রাস্তার পাশে বসে ভিক্ষা করছিলেন এক নারী। টয়লেটে যাবার কথা বলে নবজাতককে ভিক্ষুকের কোলে দিয়ে চলে যান সেই নারী।

এরপর ঘটনা পরিক্রমায় কন্যা শিশুটির আশ্রয় হয়েছে হাসপাতালে। তবে মেলেনি বাবা-মায়ের পরিচয়। পরি’ত্যক্ত এ নবজাতক নিয়ে স্থানীয় প্রশাসনের পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে তোলপাড় আলোচনা ও প্রতিক্রিয়া।

ঘটনাটি কিশোরগঞ্জ ভৈরবের। সেখানে কর্মরত সহকারি কমিশনার (ভূমি) হিমাদ্রী খিসা রবিবার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। মর্ম’স্পর্শী এ স্ট্যাটাসের মাধ্যমে ফের আলোচনার রসদ পেয়েছে ঘটনাটি।

নবজাতক নিয়ে এসিল্যান্ড হিমাদ্রী খিসা ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন- নি’ষ্ঠুর মা নাকি তোকে রেখে পালিয়ে গেছে। তুই মেয়ে হয়ে জন্মেছিস বলে? নাকি তোর নি’ষ্ঠুর পিতা চায়নি তুই পৃথিবীতে আসবি। আশ্চর্য! তোকে নাকি এখনো কেউ একবারও কাঁদতে দেখেনি। তুই ঠিক বুঝে গেছিস এখন আর তাদের জন্য কেঁদে কী হবে, যাদের একটুও বুক কাঁপেনি তোকে শীতের মধ্যে রাস্তায় রেখে যেতে। ভালো থাকিস। হয়তো তোর জন্য অ’জানা সুন্দর ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করছে।

নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডি থেকে রবিবার সকাল ১০টার দিকে নবজাতকের একটি ছবির সাথে ক্যাপশন হিসেবে স্ট্যাটাসটি তিনি পোস্ট করেন। স্ট্যাটাসে অনেক মানুষ নিজেদের প্র’তিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। যার বেশিরভাগই মর্ম’স্পর্শী।

নবজাতক ফেলে যাওয়ার আলোচিত এ ঘটনাটি ঘটে শুক্রবার। শিশুটিকে পাওয়া ভিক্ষুক মহিলা দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা শেষে শিশুটিকে পাশের এক ঔ’ষধের দোকানে নিয়ে যান। দোকানি বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবগত করালে দ্রুত প্রশাসনিক পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়। শিশুটির স্থান হয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে নবজাতকের সুস্থতা নিশ্চিত করেন চিকিৎসকরা। বর্তমানে তিনজন নার্সের সার্বিক পরিচর্যায় ৩ দিন বয়সী শিশুটি সুস্থ আছে।

ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিএইচও ডা. বুলবুল আহমেদ বলেন, শুক্রবার রাত থেকেই শিশুটির সুস্থতার জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হচ্ছে।

নবজাতক মেয়েটির জন্য নতুন জামা-কাপড় কিনে হাসপাতালে গিয়েছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লুবনা ফারজানা।

তিনি বলেন, শিশুটির দায়িত্ব নিতে অন্তত ৮/১০ জন আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। কিন্তু আমরা শিশুটিকে সমাজকল্যাণ অধিদপ্তরের মাধ্যমে আদালতে প্রেরণ করব। আদালতের সিদ্ধান্তেই শিশুটির ঠিকানা নিশ্চিত হবে।

শেয়ার করুন !
  • 23
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!