বান্ধবী নিয়ে কক্সবাজারে বেড়াচ্ছেন ইশরাকের পোলিং এজেন্ট!

0

বিশেষ প্রতিবেদন:

ভোট শুরু হওয়ার প্রায় ১ ঘণ্টা পরও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেনের নিজ কেন্দ্রে তার পোলিং এজেন্টকে পাওয়া যায়নি। শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টা ৫০ মিনিটে শহীদ শাহজাহান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট দেওয়ার সময় এই তথ্য জানতে পারেন তিনি।

পোলিং এজেন্ট না থাকার কারণ জানতে চাইলে ইশরাক হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, এই বিষয়টি মাত্র আপনাদের মাধ্যমে জানতে পেরেছি। তবে কেন নেই বিষয়টি দেখবো এবং দ্রুততম সময়ের মধ্যে ব্যবস্থা করবো।

এদিকে বিএনপির নির্বাচনী ক্যাম্পের দায়িত্বর কর্মীরা জানান, ইশরাকের এজেন্ট মোঃ আলিম গতকালই বান্ধবীসহ ঢাকা ত্যাগ করে কক্সবাজার চলে গেছেন। শহীদ শাহজাহান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে তার দায়িত্ব ছিল। কিন্তু কোনো এক অজানা কারনে তিনি ঢাকা ত্যাগ করেছেন।

ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সিংহভাগ ভোটকেন্দ্রেই বিএনপির এজেন্ট না আসার খবর পাওয়া গেছে। বিএনপি মনোনীত প্রার্থীদের অভিযোগ তাদের এজেন্টকে কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে, যদিও মুঠোফোনে এজেন্টদের অনেকের সাথে যোগাযোগ করে জানা গেছে কেন্দ্রে গ’ণ্ডগোল হতে পারে ভেবেই তারা কেন্দ্র আসেননি।

‘ডেইজি আপা’র জামা ছিঁড়ে ফেললেন ঠেলাগাড়ির সমর্থকরা

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের লাটিম প্রতীকের কাউন্সিলর প্রার্থী আলেয়া সারোয়ার ডেইজিকে লা’ঞ্ছিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ সময় দুই পক্ষে সংঘ’র্ষে ১০ থেকে ১২ জন আহত হয়েছেন। ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে জেইজির পোশাক। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে।

শনিবার বেলা ১১টার দিকে মোহাম্মদপুরের বায়তুল ফালাহ ভোট কেন্দ্রে এই অ’প্রীতিকর ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, বেলা ১১টার দিকে ঢাকা উত্তর সিটির ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের বায়তুল ফালাহ কেন্দ্রের ভেতরের ঠেলাগাড়ি প্রতীকের প্রার্থী শফিকুল ইসলাম সেন্টু সমর্থকদের নিয়ে অবস্থান করছেন। তিনি ভোটারদের ওপর প্রভাব বিস্তার করছেন অভিযোগ করেন লাটিম প্রতীকের প্রার্থী আলেয়া সারোয়ার ডেউজি।

এ সময় সেন্টুর নেতৃত্বাধীন কয়েকজন যুবক ডেউজির জামা টেনে ধরে। এতে তার পোশাক ছিঁড়ে যায়। সেন্টু উপস্থিত থাকলেও তিনি বাধা দেননি বলে অভিযোগ করেন ডেউজি।

দুই পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ১০ থেকে ১২ জন আহত হন। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ও একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

এ ঘটনার পর থেকে টাউনহল বাজার এলকা ও শেরশাহসুরী রোড এলাকায় থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলে বিপুল পুলিশ ও র‌্যাব সদস্য অবস্থান করছে। এ ঘটনায় ডেউজি মামলা করবেন বলে জানান।

শেয়ার করুন !
  • 2.7K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply