এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিন অনুপস্থিত ১২,৯৩৭, বহি’ষ্কার ২২

0

সময় এখন ডেস্ক:

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রথম দিন সোমবার সারাদেশে ১২ হাজার ৯৩৭ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল; পরীক্ষায় নকলের দায়ে বহি’ষ্কার হয়েছে ২২ শিক্ষার্থী।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বোর্ড কর্মকর্তারা জানান, এসএসসিতে সর্বোচ্চ ৪টি পত্রে ফেল করলে ওইসব বিষয়ে পরের বছর পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পায় শিক্ষার্থীরা।

দেশের ৩ হাজার ৫১২টি কেন্দ্রে এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছেন।

প্রথম দিন এসএসসিতে বাংলা (আবশ্যিক) প্রথম পত্র ও সহজ বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষা হয়েছে। আর মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে দাখিলে কুরআর মাজিদ ও তাজবীদ এবং কারিগরি বোর্ডে ভোকেশনালে বাংলা-২ (১৯২১) (সৃজনশীল) (নতুন সিলেবাস/পুরাতন সিলেবাস) এবং বাংলা-২ (১৭২১) (সৃজনশীল) (নতুন সিলেবাস/পুরাতন সিলেবাস) এবং বিষয়ের পরীক্ষা হয়েছে।

প্রথম দিনের পরীক্ষায় ঢাকা বোর্ডে ১ হাজার ৮২৫ জন, রাজশাহীতে ৬৫৩ জন, কুমিল্লায় ৪৯৯ জন, যশোরে ৫৩৬ জন, চট্টগ্রামে ৪০০ জন, সিলেটে ৩৫৮, বরিশালে ৩৫৪, দিনাজপুরে ৪৭০ জন এবং ময়মনসিংহ বোর্ডে ৩৫২ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল।

এছাড়া মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে ৪ হাজার ৮০৬ জন এবং কারিগরি বোর্ডে ২ হাজার ৬৮৪ পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

অন্যদিকে কারিগরি বোর্ডে ১২ জন, মাদ্রাসা বোর্ডে ৫ জন, চট্টগ্রাম বোর্ডে ২ জন এবং যশোর, বরিশাল ও দিনাজপুর বোর্ডে একজন শিক্ষার্থীকে বহি’ষ্কার করা হয়েছে।

উত্তরপত্র সাপ্লাই দেয়ায় মাদ্রাসার ৫ শিক্ষকের কারাদ’ণ্ড

দাখিল পরীক্ষার বহুনির্বাচনী প্রশ্নের উত্তর তৈরি ও সরবরাহের অভিযাগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে ৫ মাদ্রাসা শিক্ষককে কারাদ’ণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

আজ সোমবার দুপুরে আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজিমুল হায়দায় এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। একই সঙ্গে ওই শিক্ষকদের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরি’মানা করা হয়।

দ’ণ্ডিতরা হলেন- আশুগঞ্জ উপজেলার চরচারতলা ইসলামিয়া আলীম মাদ্রাসার সহকারী সুপার মো. মাজহারুল ইসলাম, সহকারী শিক্ষক মো. শফিকুল ইসলাম, খোলাপাড়া ওমেদ আলী শাহ দাখিল মাদ্রাসার সহকারী সুপুর মো. মহিউদ্দিন, তালশহর করিমিয়া ফাজিল মাদ্রাসার প্রভাষক কবির হোসেন ও সরাইল উপজেলার পানিশ্বর মাদেনিয়া গাউছিয়া দাখিল মাদ্রাসার সহকারী সুপার আব্বাস আলী। দ’ণ্ডিতদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত ও কেন্দ্র সচিব আব্দুর রউফ সূত্রে জানা গেছে, সোমবার আশুগঞ্জ ফার্টিলাইজার স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে দাখিলের কোরআন মজিদ ও তাজবিদ পরীক্ষা চলছিল। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবুল হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে ইউএনও ওই কেন্দ্রে যান। তারা গিয়ে দেখতে পান কোনো দায়িত্ব না থাকলেও ওই ৫ শিক্ষক কেন্দ্রটিতে প্রবেশ করে বহুনির্বাচনী প্রশ্নের উত্তরপত্র তৈরি ও সরবরাহ করছেন। এ সময় হাতেনাতে তাদের আটক করে সাজা দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!