বিপিএলে ফিক্সিং, পাকিস্থানি ক্রিকেটার নাসির জামশেদের ১৭ মাসের জেল

0

স্পোর্টস ডেস্ক:

ক্রিকেটকে দূষিত করার পেছনে পাকিস্থানিদের ভূমিকা সব সময়ই উপরে থাকবে। ক্রিকেটে স্পট বা ম্যাচ ফিক্সিং, দলের ক্রিকেটারদের মাঝে কো’ন্দল, কোচিং স্টাফদের সাথে মারামারি, ধর্মীয় বি’দ্বেষ, মা’দক, নারী কেলে’ঙ্কারি থেকে শুরু করে এমন কোনো অপরাধ নাই, যার সাথে তারা জড়িত নয়। এবার ঘটল আরেকটি ন্যা’ক্কারজনক ঘটনা।

পাকিস্থান সুপার লিগে (পিএসএল) ফিক্সিংয়ের পর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগেও (বিপিএল) চেষ্টা করেছিলেন একই কাজ করতে। শুধু চেষ্টা নয়, ফিক্সিংয়ের জন্য ঘুষও নিয়েছিলেন জুয়াড়িদের কাছ থেকে। এই ২টি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে দুর্নীতি প্রমাণিত হওয়ায় আগেই দোষী সা’ব্যস্ত হয়েছেন পাকিস্থানের সাবেক ব্যাটসম্যান নাসির জামশেদ। এবার তাকে ১৭ মাস জেল দিয়েছেন ইংল্যান্ডের একটি আদালত।

ইংল্যান্ডের ন্যাশনাল ক্রাইম এজেন্সির (এনসিএ) তদন্তে গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে গ্রেপ্তার হন নাসির জামশেদ এবং ২ ব্রিটিশ ইউসুফ আনোয়ার আর মোহাম্মদ ইজাজ।

অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তারা দোষ স্বীকার করে নেন। এরপর শুরু হয় বিচার প্রক্রিয়া। তারই রায় হলো। জামশেদের সঙ্গে ইউসুফ আনোয়ারের ৪০ মাস এবং ইজাজের ৩০ মাসের জেল হয়েছে।

২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে পিএসএলে নাসির জামশেদ নিজে তো ফিক্সিং করেছেনই, ফিক্সিংয়ে প্রলু’ব্ধ করেন অন্য খেলোয়াড়দেরও। দুবাইয়ে ইসলামাবাদ ইউনাইটেড এবং পেশোয়ার জালমির ম্যাচে ৩০ হাজার ইউরোর বিনিময়ে নির্দিষ্ট কিছু বলে তার রান না নেয়ার চুক্তি হয়েছিল জুয়াড়িদের সঙ্গে।

এ তো গেল পাকিস্থান লিগের কথা। বাংলাদেশের বিপিএলেও ফিক্সিংয়ের চেষ্টা করেছিলেন জামশেদ। ঘুষও নিয়েছিলেন জুয়াড়িদের কাছ থেকে। ২০১৬ সালের নভেম্বরে বিপিএলে এই চেষ্টা করেছিলেন পাকিস্থানি ব্যাটসম্যান।

তার সঙ্গে জুয়াড়িদের কথা হয়েছিল ২টি বল ডট দেয়ার বিষয়ে। কিন্তু পরে সে চুক্তি থেকে সরে আসেন জামশেদ। কিন্তু থামেননি। পরের বছরই পিএসলে পরিকল্পিতভাবে ফিক্সিং করেন তিনি।

পাকিস্থানের হয়ে ২টি টেস্ট, ৪৮টি ওয়ানডে ও ১৮ টি-টোয়েন্টি খেলেছেন জামশেদ। ৩০ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার সর্বশেষ জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন ২০১৫ সালের মার্চে। দল থেকে বাদ পড়ার পরই বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে ‘দাও’ মা’রার চেষ্টা শুরু হয় তার।

শেয়ার করুন !
  • 57
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!