রিজভী হার্টফেল করলে দায়ী অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল!

0

সময় এখন ডেস্ক:

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, কয়েকদিন আগে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন- তিনি বিশ্বের ১ নম্বর অর্থমন্ত্রী। তার এই কথা চিরকুটে লিখে রাখলাম। এ কথায় হাসতে হাসতে হার্টফেল করলে এই অর্থমন্ত্রী দায়ী থাকবেন।

তিনি বলেন, এই বক্তব্য অ’জ্ঞতাপ্রসূত নয়, রাজনৈতিক ধান্দাবাজপ্রসূত। অর্থমন্ত্রী এ বক্তব্যের পরের দিনই আবার বলেছেন, দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা খুবই খারাপ। বন্ধুরা, মূলত স্ব-স্বীকৃত ১ নম্বর অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল সাহেব দেশের অর্থনীতির বারোটা বাজিয়েছেন। আসলে গণতন্ত্র ধ্বং’সকারী মন্ত্রীদের মুখে এ ধরনের অ’বান্তর বক্তব্যই মানায়।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ক্ষমতাসীন দলের উদ্দেশ্যে রিজভী বলেন, এখন প্রতিদিন খবরের কাগজ খুললে দেখবেন দুই-আড়াই কোটি নয়, শত শত, হাজার হাজার কোটি টাকা লু’টপাট করছে আপনাদের দলের লোকজন। বিদেশে বেগম পল্লী, সেকেন্ড হোম বানাচ্ছে। ঘরে ঘরে টাকশাল বানাচ্ছে। বিদেশে পা’চার করছে। দেশের অর্থনীতি ফোকলা করে ফেলেছেন আপনারা।

তিনি বলেন, সংসদে দাঁড়িয়ে আপনাদের অর্থমন্ত্রী স্বীকার করছেন, দেশের অর্থনীতির অবস্থা খুবই খারাপ। গত ২ দিন আগে টিআইবি সাংবাদিক সম্মেলন করে বলেছে- বাংলাদেশে ২ লাখ অ’বৈধ বিদেশি কাজ করে। যেখানে দেশের প্রায় অর্ধেক জনগোষ্ঠী বেকার সেখানে বাংলাদেশে অ’বৈধ বিদেশিদের কাজ করার সুযোগ করে দিয়েছে সরকার। সরকার বলছে- দেশে একজনও বেকার থাকবে না। কিন্তু দেশের বেকারদের কথা চিন্তা মাথায় না নিয়ে অ’বৈধভাবে দেশে আসা বিদেশিদের কাজ করার সুযোগ দিয়ে বেকার তৈরির কারখানা তৈরি করেছে সরকার।

বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকার চলছে ২ লাখ কোটি ঋ’ণের টাকায়। আপনাদের দলের ছিঁচকে নেতাও এখন অ’বৈধ শত কোটি টাকার মালিক। তাদের শা’স্তি হয় না। মামলা হলে দায়মুক্তি দেয় দুদক। আর যে নেত্রী একটি টাকাও তসরুপ করেননি, তাকে শুধু রাজনৈতিক প্রতিহিং’সাপরায়ণতার শি’কার বানিয়ে সম্পূর্ণ বিনা অপরাধে হ’ত্যার জন্য জেলে রাখা হয়েছে। তিনি এদেশের ১৭ কোটি মানুষের কাছে সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী। সেজন্য আওয়ামী লীগ প্রধান ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা হিং’সা-প্রতিহিং’সার আগুনে জ্বলছেন। গণমানুষের প্রাণাধিক প্রিয় দেশনেত্রীকে হ’ত্যার ষড়’যন্ত্র বন্ধ করে মুক্তি দিন। অন্যথায় আপনাদের করুণ পরিণতির দিন ঘনিয়ে আসছে।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, চেয়ারপারসনের উপেদষ্টা আব্দুস সালাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, কৃষক দলের কেন্দ্রীয় নেতা মো. মাইনুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন !
  • 46
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply