পিঠে একপাল বাচ্চা নিয়ে নদী পার হচ্ছে বাবা কুমির

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

সম্প্রতি বাচ্চা পিঠে করে একটি বাবা কুমিরের নদী পার হওয়ার একটি ভিডিও বেশ ভাইরাল হয়েছে। ওই ছবিতে বাবা কুমিরকে পিঠে করে তার বাচ্চাদের পানির ঢেউ থেকে রক্ষা করে তীরে পৌঁছে নিয়ে যেতে দেখা গেছে।

এই বাবা কুমিরের দায়িত্বপালনের ঘটনা নেটিজেনদের খুব পছন্দ হয়েছে। ছবিটি সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করেছেন আইএফএস কর্মকর্তা প্রবীণ কাসওয়ান।

ওই ছবিটি শেয়ার করে ক্যাপশনে প্রবীণ কাসওয়ান লিখেছেন, সবচেয়ে সতর্ক এবং সেরা বাবা। ধৃতিমান মুখোপাধ্যায়ের তোলা ওই ছবিতে দেখা গেছে সন্তানদের নিয়ে চাম্বল নদী পার হচ্ছিল ওই কুমিরটি।

প্রবীণ কাসওয়ান আরও জানিয়েছে, আমাদের সংরক্ষণের চেষ্টাকে এই প্রজাতি বজায় রাখছে এভাবেই। আমরা যখন নদী সংরক্ষণের কথা বলি তখন আমরা এই প্রজাতির ভবিষ্যতের কথাও বলি।

এই ছবিটি অনেকেই টুইটারে শেয়ার করেছেন। লাইক করেছেন ৫ হাজারেরও বেশি মানুষ। আর এতে মন্তব্য করেছেন ১ হাজারেরও বেশি নেটিজেন। এই পোস্টে সবাই বাহবা দিয়ে কুমিরটিকে দায়িত্ববান বাবা হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

এক ব্যবহারকারী লিখেছেন, একজন দায়িত্বশীল বাবা … এই ছবিটি মানুষকে অনেক কিছু শেখাচ্ছে। অন্য একজন লিখেছেন, এই ছবিটি সত্যিই খুব সুন্দর।

মানুষকে বাঁচাতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিল ওরাংওটাং!

গভীর জঙ্গলের ভেতরে কর্দমাক্ত নদী। সেই নদীতে বুক পর্যন্ত পানিতে নিমজ্জিত এক ব্যক্তি। কিছু একটা করছেন। আর তার সামনে ঝোপে দাঁড়িয়ে সেটাই মন দিয়ে দেখছিল একটি ওরাংওটাং।

জঙ্গলের অভিজ্ঞতা থেকে ওই ব্যক্তি নদীতে আটকা পড়েছেন বলে ভেবে নেয় ওরাংওটাংটি। প্রাণির প্রতি প্রাণির সহমর্মিতার নিদর্শণ হিসেবে তাকে বাঁচানোর জন্য সামনে ঝুঁকে হাত বাঁড়িয়ে দিল সেই ওরাংওটাং। এমনি একটি অবিশ্বাস্য মুহূর্তের ছবি ছড়িয়ে পড়েছে ইন্টারনেটে।

মানুষকে বাঁচাতে বন্যপ্রাণি ওরাংওটাংয়ের এভাবে এগিয়ে আসার ঘটনাটি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বোর্নিও দ্বীপের একটি সংরক্ষিত বনাঞ্চলের। যুক্তরাজ্যের সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইল বলছে, বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে যাওয়া অনীল প্রভাকর নামে এক ব্যক্তির ক্যামেরায় ধরা পড়েছে এই হৃদয় ছুঁয়ে যাওয়া মুহূর্তটি।

ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে বলা হয়, এমন দারুণ মুহূর্তটি প্রত্যক্ষ করার পর অনীল প্রভাকর খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, ওই ব্যক্তি বোর্নিও ওরাংওটাং সারভাইভাল ফাউন্ডেশনের কর্মী। ওই ফাউন্ডেশনেরই নির্দেশনায় নদীর একটি অংশ পরিচ্ছন্ন করতে পানিতে নেমেছিলেন তিনি। গত বৃহস্পতিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) সেই ফাউন্ডেশনও তাদের ফেসবুক পেজে শেয়ার দিয়েছে ছবিটি।

এ বিষয়ে মেট্রো নিউজ জানায়, প্রভাকরের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে- ওরাংওটাং সাহায্যের হাত বাড়ালেও ওই ব্যক্তি সাড়া দেননি। সেটি বন্যপ্রাণি ছিল বিধায় অচেনা আচরণের ঝুঁ’কি বিবেচনায় তিনি সাড়া না দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

প্রভাকর বলেন, নদীতে নেমে আবর্জনা পরিষ্কার করার সময় তাকে দেখছিল ওরাংওটাংটি। তিনি যখন উঠতে যাবেন, তার আগে দেখা যায়, সেই বন্যপ্রাণিটি তার খুব কাছে এসে একেবারে ঝুঁকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়। তবে এতে সাড়া না দিয়ে ওই বনকর্মী অন্য প্রান্ত দিয়ে ডাঙায় উঠে যান।

ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট হতেই অনলাইনে ছড়িয়ে পড়ে। অনেকে পোস্টটি শেয়ার দিয়ে ওরাংওটাংয়ের সাহায্য করার মানসিকতার প্রশংসা করেন। অনেকে বলেন, সাহায্য করার মানসিকতার দিক থেকে অন্তত মানুষের চেয়ে অগ্রগামী ওরাংওটাং।

শেয়ার করুন !
  • 242
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply