পাকিস্থানে বিয়েবাড়িতে বরকে গণধো’লাই!

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

পাকিস্থানে বিয়ের আসর থেকে প্রথমে বরকে ধাওয়া, এর পর বে’ধড়ক মা’রধর করেছে হবু শ্বশুড়বাড়ির লোকেরা।

বিয়ের কিছুক্ষণ আগে বিয়েবাড়িতে বরের আগের এক স্ত্রী হাজির হয়ে তার আরও ২টি স্ত্রী আছে- এমন তথ্য দেয়ার পরই বিক্ষু’ব্ধ লোকজন তাকে ধাওয়া করে। খবর বিবিসির।

আসিফ রফিক সিদ্দিকী নামে ৩০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে মা’রধর করার সময় তার শার্ট ও প্যান্ট ছিঁড়ে যায়।

এক পর্যায়ে প্রাণ বাঁচাতে একটি থেমে থাকা বাসের নিচে গিয়ে আশ্রয় নেন তিনি। পরে তাকে উদ্ধার করেন এলাকাবাসী।

পাকিস্থানে বহুবিবাহ অ’বৈধ না। একজন পুরুষ ৪টি পর্যন্ত বিয়ে করতে পারে, কিন্তু এ ক্ষেত্রে নতুন বিয়ে করার আগে তাকে আগের স্ত্রীদের অনুমতি নিতে হয়।

করাচিতে নতুন বিয়ের অনুষ্ঠানে অভিযুক্ত ব্যক্তির আগের স্ত্রী এসে হাজির হওয়ার পরই তার নতুন স্ত্রী ও পরিবারের সদস্যরা প্রথমবার আগের স্ত্রীদের সম্পর্কে জানতে পারেন।

আগের স্ত্রী মাদিহা সিদ্দিকী জানান, তার স্বামী আসিফ রফিক সিদ্দিকী ৩ দিনের জন্য হায়দ্রাবাদ যাচ্ছেন বলে বাড়ি থেকে বের হন। পরে তিনি জানতে পারেন, তার বিয়েপাগলা স্বামী ৩য় বিয়ে করতে গেছে।

২০১৮ সালে লুকিয়ে সিদ্দিকী আরও একটি বিয়ে করেন। তার ওই স্ত্রীর নাম জেহরা আশরাফ। ওই নারী করাচিতে জিন্নাহ উইমেনস ইউনিভার্সিটির শিক্ষক। স্বামীর নতুন বউয়ের পাঠানো একটি খুদেবার্তা দেখে ওই বিয়ে সম্পর্কে জানতে পারেন সিদ্দিকীর প্রথম স্ত্রী।

এদিকে এ ঘটনা নিয়ে বিয়ে বাড়ির লোকজনের ওপর চটেছেন আসিফ রফিক সিদ্দিকীর কয়েকজন আত্মীয়। তাদের ভাষ্য, বিয়েই তো করতে গিয়েছে, কোনো পাপ তো নয়। এ জন্য মা’রধর করার কোনো প্রয়োজন ছিল না। তাদের মেয়েটাকে নিশ্চয় সে সুখেই রাখত।

তাছাড়া আসিফের মধ্যে নিশ্চয় এমন ব্যাপার রয়েছে যা নারীদের আকৃষ্ট করেছে বলে সে এতগুলো বিয়ে করতে পেরেছে- এমন দাবি করেন তারা।

শেয়ার করুন !
  • 43
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!