কচুরিপানা দিয়ে শোল মাছের স্যুপ রান্না! (ভিডিও)

0

হেঁসেল ঘর:

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল কচুরিপানা। বহুবর্ষজীবী জলজ এই উদ্ভিদটি নিয়ে সম্প্রতি কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের বিভ্রা’ন্তিকর শিরোনাম দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে। এদিকে, প্রশ্ন উঠেছে কচুরিপানা কী আসলেই খাওয়া যায়? একে একে উত্তর খুঁজবো পাঠকদের জন্য।

আগে জেনে নিন কচুরিপানা কী? কচুরিপানা বহুবর্ষজীবী জলজ উদ্ভিদ। এটির আদি নিবাস দক্ষিণ আমেরিকায়। কচুরিপানা পানির উপরি-পৃষ্ঠের ওপর ১ মিটার পর্যন্ত বাড়তে পারে। এর কাণ্ড দীর্ঘ, তন্তুময়, বহু’ধাবিভ’ক্ত মূল বের হয়, যার রঙ বেগুনি-কালো। একটি পুষ্প’বৃন্ত থেকে ৮-১৫টি আকর্ষণীয় ৬ পাপড়িবিশিষ্ট ফুলের থোকা তৈরি হয়।

জানা যায়, বহুবর্ষজীবী এই জলজ উদ্ভিদটি খুব দ্রুতই বংশ-বিস্তার করতে পারে। এটি আবার প্রচুর পরিমাণে বীজ তৈরি করে। আর এর বীজ ৩০ বছর পরেও অঙ্কু’রোদগম ঘটাতে পারে। সবচেয়ে পরিচিত কচুরিপানার প্রজাতি হলো আইচোরনিয়া ক্র্যাসিপস। এটি রাতারাতি বংশ-বৃদ্ধি করে এবং প্রায় ২ সপ্তাহে দ্বিগুণ হয়ে যায়।

এখন আসা যাক কচুরিপানা খাওয়া যায় কি-না? এমন প্রশ্নের উত্তর জেনে খুশিই হবেন। কারণ কচুরিপানা আসলেই খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করা হয় কম্বোডিয়ায়। দেশটির বাসিন্দারা কচুরিপানার লতি আর ফুল ব্যবহার করে অসাধারণ একটি মাছের স্যুপ তৈরি করে, যা তাদের খাদ্য হিসেবে ব্যবহার হয়। আবারও প্রশ্ন আসতে পারে কীভাবে স্যুপ তৈরি করেন তারা? তাহলে জেনে নিন কচুরিপানা দিয়ে মাছের স্যুপ তৈরির রেসিপি-

মাছের স্যুপ তৈরি করতে লাগবে- কচুরিপানার ফুল ও লতি, শাক পাতা (যে কোনো), শোল মাছ, রসুন, আদা, লাল মরিচ, বিশুদ্ধ পানি, লবণ।

এবার স্যুপটি তৈরি করবেন যেভাবে- প্রথমে শোল মাছ কেটে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন। এরপর কচুরিপানা থেকে ফুলসহ লতি আলাদা করে নিতে হবে। তারপর শাক পাতা কুচি-কুচি করে কে’টে নিতে হবে।

এরপর আপনাকে চুলায় পানি বসিয়ে দিতে হবে। পানি গরম করে তাতে রসুন কোয়া ও আদা পিষে দিয়ে দিতে হবে। পরে ধুয়ে কে’টে করে রাখা মাছের টুকরো দিয়ে দিতে হবে। মাছ সেদ্ধ হয়ে এলে এতে একে একে কেটে রাখা শাক পাতা, কচুরিপানার ফুল ও লতি দিয়ে দিতে হবে।

স্বাদ বাড়ানোর জন্য লাল মরিচ ফালি করে কে’টে দিয়ে দিতে হবে। সবশেষে লবণ দিয়ে ফোটাতে হবে। হয়ে গেল রান্না। তবে ১০ মিনিট গরম করতে হবে।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!