বিডিক্যান্স-এর উদ্যোগে হ্যালিফ্যাক্সে “আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস” উদযাপন

0

প্রবাস ডেস্ক:

গত ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ কানাডার নোভাস্কসিয়ায় বাংলাদেশ কমিউনিটি অ্যাসোসিয়েশান অফ নোভাস্কসিয়া (বিডিক্যান্স)-এর উদ্যোগে পালিত হল “আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস”। প্রবাসী বাংলাদেশীদের সাপ্তাহিক ছুটি বিবেচনায় উক্ত অনুষ্ঠানটি ২১ ফেব্রুয়ারীর পরিবর্তে ২২ ফেব্রুয়ারী শনিবার হ্যালিফ্যাক্স কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী মিলনায়তনে উদযাপিত হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন একুশে পদক ও বাংলা একাডেমী পুরস্কারসহ অসংখ্য সন্মাননাপ্রাপ্ত বাংলাদেশের প্রখ্যাত কবি ও সাহিত্যিক, মনোগ্রাহী টেলিভিশন উপস্থাপক ও অনুবাদক আসাদ চৌধুরী, বিশিষ্ট চলচ্চিত্র নির্মাতা নাদিম ইকবাল, জনাব অ্যান্ডি ফিল ম্যোর (এমপি হ্যালিফ্যাক্স পার্লামেন্ট), লিও এ গ্ল্যাভাইন (কমিউনিটি, কালচার ও হ্যেরিটেজ মন্ত্রী), টনি ইন্স (আফ্রিকান নোভাস্কসিয়া কল্যাণ মন্ত্রী), লিসা ব্ল্যাকবার্ণ (ডেপুটি মেয়র, হ্যালিফ্যাক্স রিজিওনাল মিউনিসিপালিটি), হ্যালিফ্যাক্স ও নোভাস্কসিয়ার প্রবাসী বাংলাদেশীগণ এবং অন্যান্য কানাডিয়ান গণ্যমান্যব্যক্তিবর্গ।

অনুষ্ঠানের সূচনা হয় অতিথিবরণ এবং ভাষামেলা উদযাপনের মাধ্যমে। হ্যালিফ্যাক্সের বিভিন্ন ভাষাভাষী মানুষজনের অনেকগুলো সংগঠনের উপস্থিতে ভাষামেলায় ১০টির বেশি স্টলে সাংস্কৃতিক বিনিময় ও প্রদর্শনী চলে। মি’কমা সংস্কৃতির সূচনাকৃত্যের মাধ্যমে মূল অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। এরপর বিডিক্যান্সের সদস্য আজহারুল হক ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস এবং বিডিক্যান্সের অগ্রযাত্রা বিষয়ক বক্তব্য রাখেন।

কমিউনিটি, কালচার ও হ্যেরিটেজ মন্ত্রী লিও এ গ্ল্যাভাইন নোভাস্কসিয়া সরকারের পক্ষ হতে বিশেষ বক্তব্য উপস্থাপন করেন। হ্যালিফ্যাক্স রিজিওনাল মিউনিসিপালিটির পক্ষ থেকে মাতৃভাষার গুরুত্ব সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন লিসা ব্ল্যাকবার্ণ (ডেপুটি মেয়র, হ্যালিফ্যাক্স রিজিওনাল মিউনিসিপালিটি)।

উক্ত অনুষ্ঠানের মঞ্চে শহীদ মিনারের অবয়ব নির্মিত হয়েছিল। সকলে মিলে “আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারী” গান গাইতে গাইতে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। উপস্থিত কানাডিয়ানরাও সকলের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করেন এবং শহীদ মিনারের বেদীতে পুষ্পস্তাবক অর্পণ করেন। একইভাবে শ্রদ্ধা প্রকাশে কানাডিয়ানরাও উপস্থিত বাংলাদেশীদের সাথে আবেগে আপ্লূত হয়ে পড়েন।

তারপর উপস্থিত বিশেষ বক্তাগণ মাতৃভাষার গুরুত্ব সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন। বক্তাগণ তাদের বক্তব্যে বাংলাভাষা ও ভাষা শহীদদের স্মরণ করেন। তারপর বিডিক্যান্সের সদস্য ফারহানা ফেরদৌসের দিকনির্দেশনায় পরিবেশিত হয় বিডিক্যান্স সাস্কৃতিক সন্ধ্যা। উক্ত সাস্কৃতিক অনুষ্ঠানে শিশুদের উল্লেখযোগ্য অংশগ্রহণ আমাদের স্মরণ করিয়ে দেয়- বাংলাদেশীরা পৃথিবীর যেখানেই থাকুকনা কেন, বাঙালীর হৃদয় সদা লালন করে বাংলার সংস্কৃতি।

অনুষ্ঠানে পরিবেশিত রবীন্দ্রসঙ্গীত “ও আমার দেশের মাটি” সবাইকে মন্ত্রমুগ্ধ করে দেয়। তারপর একটি ইরানি সাংস্কৃতিক সংঘের উদ্যোগে ফারসি ভাষায় সঙ্গীত পরিবেশিত হয়। বাংলার জনপ্রিয় কবি আসাদ চৌধুরীর অসাধারণ আবৃত্তি সকলকে বিমোহিত করে। অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে বাংলাদেশের ডকুমেন্টারী চলচ্চিত্র বিদ্যাভূবন প্রদর্শিত হয়।

এভাবেই বিডিক্যান্স সংশ্লিষ্ট সকলের আ’ক্লান্ত পরিশ্রম ও উদ্যোগে কানাডার নোভাস্কসিয়ায় বাংলাদেশ ও কানাডার এরকম সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য বিনিময়, প্রদর্শন ও লালন সম্ভব হচ্ছে। এতে করে আমাদের সংস্কৃতি বিশ্ব দরবারে সম্মানের সাথে স্থান পাচ্ছে এবং আমরাও বাংলাদেশী হিসেবে সম্মানের সাথে নিজের দেশকে বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরতে পারছি।

প্রতিবেদক: মোহাম্মদ আলী খান (অর্ণব), ছবি: নাদিম ইকবাল, বিশেষ কৃতজ্ঞতা: মোঃ গোলাম কিবরিয়া তালুকদার
হ্যালিফ্যাক্স, কানাডা

শেয়ার করুন !
  • 40
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!