সু চিকে দেওয়া সন্মাননা ফিরিয়ে নিল লন্ডন

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

রোহিঙ্গা শরণার্থী ইস্যুতে মানবাধিকার ল’ঙ্ঘনের দায়ে মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চিকে দেওয়া সম্মাননা ফিরিয়ে নিয়েছে যুক্তরাজ্যের লন্ডন পৌর কর্পোরেশন (সিএলসি)।

বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) পৌর কর্পোরেশনের নির্বাচিত প্রতিনিধিরা ৩ বছর আগে অং সান সু চিকে দেওয়া এ সম্মাননা প্র’ত্যাহারের বিষয়ে ভোট দেয় বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম।

সিএলসি কমিটির প্রধান ডেভিড ওটোন জানান, এ সিদ্ধান্তে মিয়ানমারে মানবাধিকার ল’ঙ্ঘনের বিষয়ে পৌর কর্পোরেশনের নি’ন্দা প্রতিফলিত হয়েছে।

তিনি বলেন, মিয়ানমারের সরকারের সঙ্গে অং সান সু চির ঘনিষ্ঠতা তাকে দেওয়া এ সম্মাননা প্র’ত্যাহারের সিদ্ধান্তকে শক্তিশালী করেছে।

এর আগে ২০১৭ সালের মে মাসে গণতন্ত্রের জন্য অহিংস সংগ্রাম এবং শান্তি, নিরাপত্তা ও স্বাধীনতার সঙ্গে মানুষের বসবাসযোগ্য সমাজ তৈরিতে অটল সংকল্পের কারণে অং সান সুচিকে লন্ডন পৌর কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে এ বিশেষ সম্মাননা দেওয়া হয়।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিল, দক্ষিণ আফ্রিকার কৃষ্ণাঙ্গ নেতা নেলসন ম্যান্ডেলা, বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং এর আগে এ সম্মাননা অর্জন করেন।

এর আগে শান্তিতে নোবেলজয়ী অং সান সু চি’র সম্মানসূচক নাগরিকত্ব আনুষ্ঠানিকভাবে বাতিল করে উত্তর আমেরিকার দেশ কানাডার সংসদ। বলা হচ্ছে, রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর নি’র্মমতায় সহায়তার দায়ে এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

গত বছর ২ অক্টোবর আনুষ্ঠানিকভাবে কানাডার সংসদে সু চি’র নাগরিকত্ব বাতিল করে। দেশটির সিনেট সদস্যরা সর্বসম্মতিক্রমে এর পক্ষে রায় দেন। ২০০৭ সালে তাকে বিশেষ সম্মানসূচক এ নাগরিকত্ব দেওয়া হয়।

মিয়ানমারের বেসামরিক নেতা সু চি’ই একমাত্র ব্যক্তি যার সম্মানসূচক নাগরিকত্ব বাতিল হয়ে গেলো। যিনি মিয়ানমারে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে ল’ড়াইয়ের কারণে ১৯৯১ সালে নোবেল শান্তি পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, কানাডার ১৫০ বছরের ইতিহাসে বিশ্বের মাত্র ৬ জনকে সন্মানসূচক এ নাগরিকত্ব দেয়া হয়েছে। এ ৬ জনের মধ্যে সু চিসহ ৪ জন আবার শান্তিতে নোবেল বিজয়ী। কানাডার আইনে সাধারণ নাগরিক ও সন্মানসূচক নাগরিকদের মধ্যে কোনো পার্থক্য উল্লেখ করা হয়নি।

শেয়ার করুন !
  • 413
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!