গোপন বৈঠক থেকে জামায়াত নেতাসহ গ্রেপ্তার ৩, পুলিশের ওপর ককটেল নিক্ষেপ

0

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলায় বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নেতাকর্মীদের উদ্যোগে গোপন বৈঠক থেকে উপজেলা শাখার সাবেক আমীর আবু বকর সিদ্দিকসহ (৬৮) ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রোববার গভীর রাতে উপজেলার ডৌহাখলা ইউনিয়নের সিংজানি গ্রামে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে।

পুলিশ জানায়, বৈঠকে আগত জামায়াতের অপর নেতাকর্মীরা পুলিশের ওপর ককটেল নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়। ভাগ্যক্রমে লক্ষ্যভ্র’ষ্ট হওয়ায় এতে কেউ হতাহত হননি।

গ্রেপ্তার আবু বকর সিদ্দিক জামায়াতের সাবেক আমির এবং জামায়াতকর্মী উপজেলার রামগোপালপুর ইউনিয়নের দামগাঁও গ্রামের হযরত আলীর ২ ছেলে মোসলেম উদ্দিন (৩২) ও মোতালেব হোসেন (২৮)।

গৌরীপুর থানার ওসি মো. বোরহান উদ্দিন জানান, রোববার গভীর রাতে উপজেলার ডৌহাখলা ইউনিয়নের সিংজানি গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের বাড়িতে জামায়াত-শিবিরের গোপন বৈঠক চলছিল।

খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালিয়ে উপজেলা জামায়াতের সাবেক আমির আবু বকর সিদ্দিক, জামায়াতকর্মী মোসলেম উদ্দিন ও মোতালেব হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় অন্যরা পুলিশের দিকে ককটেল নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়। তাদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অ’ব্যাহত রয়েছে।

অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, আসামিদের কাছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর গঠনতন্ত্র, সংগঠনের লিফলেট, প্রচারপত্রসহ জি’হাদি বই উদ্ধার করা হয়েছে।

গৌরীপুর থানার সাবইন্সপেক্টর উজ্জল মিয়ার নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়। তিনি বাদী হয়ে গৌরীপুর থানায় মামলা করেন।

ঝিনাইদহে গোপন বৈঠক থেকে অ’স্ত্রসহ শিবিরের ১১ নেতাকর্মী আটক

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলায় ইসলামী ছাত্র শিবিরের ১১ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, তারা বেথুলী গ্রামের আফছার উদ্দিনের বাড়ির উঠানে গোপন বৈঠক করছিল। এ সময় তাদের কাছ থেকে ২টি ককটেল, দেশীয় তৈরি অ’স্ত্র, ৪টি লোহার রড, ২টি ছো’রাসহ লিফলেট উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে অভিযান চালিয়ে উপজেলার বেথুলী গ্রাম থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটকরা হলো- ঝিনাইদহ জেলা শিবিরের সাবেক সভাপতি উপজেলার ষাটবাড়িয়া গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে মো. শাহাবুদ্দিন ওরফে সাদ্দাম, কালীগঞ্জ উপজেলা সভাপতি মহেশ্বরচাঁদা গ্রামের আবদুল গফুরের ছেলে সোহাগ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক কমলাপুর গ্রামের লিটন শেখের ছেলে আল আমিন হোসেন, শিবিরকর্মী মাগুরা গ্রামের বাবলুর রহমানের ছেলে বিল্লাল হোসেন, হাসিলবাগ গ্রামের আলী হোসেনের ছেলে আহসান হাবীব, আব্দুল করিমের ছেলে ইব্রাহিম হোসেন,

দামোদারপুর গ্রামের সোলাইমান হোসেনের ছেলে এনামুল ইসলাম ওরফে ইমন, হোসেন আলীর ছেলে মো. হাবিবুল্লাহ, পান্তাডাঙ্গা গ্রামের নাজমুস সাদাতের ছেলে নাজমুস সালেহীন, মাগুরা গ্রামের কবি বাবর আলীর ছেলে হোসাইন ওয়াইস কুরুনী ও ঘোপপাড়া গ্রামের শাহিনুর রহমানের ছেলে মো. বায়েজীদ বোস্তামী।

কালীগঞ্জ থানার ওসি মাহফুজুর রহমান মিয়া জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার বেথুলী গ্রামের একটি বাড়ির উঠান থেকে শিবিরের ১১ নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। না’শকতা সৃষ্টির লক্ষ্যে তারা মিলিত হয়েছিল। তাদের শনিবার আদালতে পাঠানো হবে।

শেয়ার করুন !
  • 177
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!