জ্বর নিয়ে নারায়ণগঞ্জ থেকে জয়পুরহাটে, ৩টি বাড়ি লকডাউন

0

জয়পুরহাট প্রতিনিধি:

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর পৌর এলাকার কেশবপুর গ্রামে জ্বর, সর্দি, কাশি ও গলাব্যথা নিয়ে নারায়ণগঞ্জ থেকে আসা গার্মেন্টস কর্মী এক যুবককে (৩৭) আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। সেইসঙ্গে ওই যুবকের নমুনা সংগ্রহ করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বুধবার সকালে ওই যুবকের বাড়িসহ আশপাশের ৩টি বাড়ি লকডাউন করেছে প্রশাসন।

আক্কেলপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকিউল ইসলাম বলেন, ওই গার্মেন্টস কর্মী নারায়ণগঞ্জ থেকে সোমবার রাতে করোনা উপসর্গ নিয়ে পৌর এলাকার ৮নং ওয়ার্ডের কেশবপুর গ্রামে তার নিজ বাড়িতে পালিয়ে আসেন। স্থানীয়দের খবরের ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাতেই তাকে গোপীনাথপুর হেলথ অ্যান্ড টেকনোলজি ইন্সটিটিউটের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করে নমুনা রাজশাহীতে পাঠানো হয়েছে।

বুধবার সকালে গিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ওই যুবকের বাড়িসহ আশপাশের ৩টি বাড়ি লকডাউন করে লাল পতাকা তুলে দেওয়া হয়েছে এবং সেইসঙ্গে অ’সহায় দরিদ্রদের জন্য ১৪ দিনের খাদ্যসামগ্রী প্রদান করা হয়েছে।

জয়পুরহাট সিভিল সার্জন ডা. সেলিম মিঞা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা থেকে আসা ১৩ জনকে হোম কোয়ারান্টাইনে, প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে ২ জন ও ১ জনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। এদেরসহ করোনা উপসর্গ সন্দেহে মোট ৩৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সেইসঙ্গে রোগীর বাড়িসহ তার পাশের আরো ২টি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।

করোনা নিয়ে ঢাকা থেকে পালিয়ে আসা নারীর জন্য রাজবাড়ীর ২টি গ্রাম লকডাউন!

ঢাকা থেকে করোনা ভাইরাসের সংক্র’মণ নিয়ে পালিয়ে রাজবাড়ীতে গেলেন এক নারী। বুধবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে ওই নারী ও তার স্বামীকে আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে।

একই সঙ্গে ওই নারী করোনা ভাইরাসে আক্রা’ন্ত- সন্দেহে রাজবাড়ী সদর উপজেলার দাদশী ইউনিয়নের বক্তারপুর ও সমেশপুর গ্রাম লকডাউন করে দেয়া হয়েছে। পালিয়ে আসা নারীর বাড়ি ও তার সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের বাড়িসহ ওই ইউনিয়নের ২টি গ্রাম লকডাউন করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাজবাড়ীর সিভিল সার্জন ডা. মো. নুরুল ইসলাম বলেন, মঙ্গলবার রাতে ঢাকা থেকে থেকে পালিয়ে দাদশীর বক্তারপুরে আসেন ওই নারী। বিষয়টি জেনে করোনা সন্দেহে বুধবার দুপুরে ওই নারী ও তার স্বামীকে আইসোলেশনে পাঠানো হয়। তাদের সংস্পর্শে আসায় ওই ইউনিয়নের বক্তারপুর ও সমেশপুর গ্রাম লকডাউন করা হয়।

সিভিল সার্জন বলেন, বর্তমানে রাজবাড়ীতে ২৬ জন হোম কোয়ারান্টাইনে এবং ৪ জন আইসোলেশনে রয়েছেন। গত কয়েকদিনে ২০ জনের নমুনা সংগ্রহের পর ৬ জনের করোনা নেগেটিভ আসে। অন্যদের রিপোর্ট এখনো পাওয়া যায়নি।

রাজবাড়ী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. সাঈদুজ্জামান খান বলেন, অসুস্থ অবস্থায় এক নারী ঢাকা থেকে পালিয়ে আসায় দাদশী ইউনিয়নের বক্তারপুর ও সমেশপুর গ্রাম লকডাউন করা হয়েছে।

শেয়ার করুন !
  • 60
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!