থাই-মালয়-মিয়ানমার ঘুরে বাংলাদেশেই ফিরলো ৪০০ রোহিঙ্গা!

0

সময় এখন ডেস্ক:

থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া ও মিয়ানমারে প্রবেশ করতে না পেরে অবশেষে বাংলাদেশেই ফিরেছে প্রায় ৪শ’ রোহিঙ্গা। গত ২ মাস সাগরে ঘোরার পর বুধবার (১৫ এপ্রিল) রাতে টেকনাফ সৈকতের জাহাজপুরা ঘাট থেকে তাদের উদ্ধার করেন বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের সদস্যরা। উদ্ধার কাজে বিজিবি-পুলিশ সদস্য ও স্থানীয়রাও সহযোগিতা করেন।

বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরে উদ্ধার রোহিঙ্গাদের জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনে (ইউএনএইচসিআর) হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন টেকনাফ স্টেশন কোস্টগার্ডের কর্মকর্তা লে. কমান্ডার এম. সোহেল রানা।

উদ্ধারকৃতদের মধ্যে ৬৪ শিশু, ১৮২ জন নারী ও ১৫০ জন পুরুষ। তাদের মধ্যে অর্ধশতাধিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন খাবারের অভাবে। আরও ৩০ জন যাত্রী ট্রলারে মা’রা গেছেন বলে প্রাথমিকভাবে তথ্য পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

সোহেল রানা বলেন, রোহিঙ্গাদের ইউএনএইচসিআর এর মাধ্যমে উখিয়া-টেকনাফে ১৪ দিন কোয়ারান্টাইনে রাখা হবে। এ সময় তাদের কারও মধ্যে করোনার লক্ষণ দেখা দিলে নমুনা নিয়ে পরীক্ষা করা হবে। পরে ক্যাম্প ইনচার্জের মাধ্যমে তাদের স্ব স্ব পরিবারের হস্তান্তর করা হবে। সীমান্তে মানবপা’চার রো’ধে কোস্টগার্ড শক্ত অবস্থানে আছে।

তিনি বলেন, বুধবার রাতে সৈকতের জাহাজপুরা ঘাট থেকে উদ্ধারের পর তাদের ৪টি ট্রাকে করে পৌরসভাস্থ বাংলাদেশ-মিয়ানমার ট্রানজিট ঘাটে নিয়ে আসা হয়। সেখানে অসুস্থদের চিকিৎসা ও শুকনো খাবার দেওয়া হয়। তারা এতটাই ক্ষুধার্ত ছিল যে, খাবারের ওপর ঝাঁ’পিয়ে পড়ে। পরে তাদের ইউএনএইচসিআর-এ হস্তান্তর করা হয়।

উদ্ধার একাধিক রোহিঙ্গা জানান, এ বছরের ফেব্রুয়ারি শেষে অনেকে মহেশখালী, কুতুবদিয়া, টেকনাফের সাবরাং, শাহপরীর দ্বীপ, বাহারছড়া ও খুরেরমুখসহ বিভিন্ন জায়গা থেকে ছোট ছোট নৌকা নিয়ে সাগরে অবস্থানরত বড় জাহাজে উঠে। এরপর সাগরপথে মালয়েশিয়া যাত্রা করে। ট্রলারে অ’নাহার ও নির্যা’তনে ৩০ জন মা’রা গেলে তাদের সাগরে ফে’লে দেওয়া হয়। আবার অনেকে খেতে না পেরে হাড্ডি’সার হয়ে গেছে।

মিয়ানমারের আকিয়াবের গরু বহনকারী একটি বড় ট্রলারে ৫২৮ জন রোহিঙ্গার মালয়েশিয়া যাত্রার কথা উল্লেখ করে বালুখালী ক্যাম্পের আবদুল মাজেদ বলেন, ৭ দিনের মাথায় মালয়েশিয়া পৌঁছাই। সেখানে খাবার শেষ হয়ে যায়। এ সময় খাবারের অভাবে ১২ জন নারী ও ২৫ জন পুরুষ মা’রা গেলে তাদের সাগরে ফে’লে দেয়া হয়।

টেকনাফের মৌচনি রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা মো. ইয়াছিন বলেন, এখানে কোনও কাজ কর্ম নেই, বেকার জীবন। উন্নত জীবনের আশায় অন্যদের সঙ্গে সাগর পথে মালয়েশিয়া পাড়ি দিই। কিন্তু সেখানে ঠাঁই মিলেনি; বরং পার করতে হয়েছে দুর্বি’ষহ দিন।

তিনি বলেন, খেয়ে-না খেয়ে গত ৮ মার্চ আমাদের ট্রলারটি মালয়েশিয়া পৌঁছায়। সে দেশে ২ বার ওঠার চেষ্টা করে ব্যর্থ হই। থাইল্যান্ডেও উঠতে পারিনি। তবে খাবার জোগাড় হয়। একবেলা পানি ও ভাত খেয়ে কিছুদিন সাগরে ভেসে নিজ দেশ মিয়ানমারে ওঠার চেষ্টা করি। কিন্তু বার্মিজ নৌবাহিনী আমাদের আটক করে টাকার বিনিময়ে বাংলাদেশে ঠেলে দেয়। এ সময় ট্রলারে ক্রুদের মধ্যে মা’রামারি হলে বেশকিছু যাত্রী আহত হয়। পরে আমরা টেকনাফের দিকে রওনা দিই।

টেকনাফ-২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অতিরিক্ত পরিচালক (অপারেশন) মেজর রুবাইয়াৎ কবীর বলেন, সাগরে ট্রলারে নিজেরা নিজেরা মা’রামারিসহ বিভিন্নভাবে ৩০ জনের মতো মা’রা যায় বলে ধারণা করা হচ্ছে। মূলত ছোট ছোট নৌকায় করে, সাগরে অবস্থানরত বড় জাহাজে উঠে তারা। এরপর তারা সাগর পথে মালয়েশিয়া যাত্রা করে বলে শুনেছি। এই অঞ্চলে মানবপা’চার বন্ধ করতে সমুদ্রের স’ক্ষমতা বাড়াতে হবে।

স্থানীয় একজন জনপ্রতিনিধি বলেন, বুধবার রাতে বিশাল এক রোহিঙ্গাভর্তি জাহাজ টেকনাফ সৈকতে ভেড়ে। সেখানে ৪শ’র বেশি রোহিঙ্গা ছিল। এর মধ্যে কিছু লোকজন উপকূলে ঢুকে পড়ে। তারা মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসে। তারা বলেছে, সাগরে ট্রলারে অনেকে মা’রা গেছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে মিয়ানমার থেকে প্রায় ৮ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আসে। এর আগে থেকে বাংলাদেশে ৪ লাখ অবস্থান করছিল। সব মিলিয়ে ১২ লাখের বেশি রোহিঙ্গা অবস্থান করছে কক্সবাজারে। এর আগে ২০১৫ সালের মে মাসে মালয়েশিয়া ও থাইল্যান্ড সরকারের অভিযানে ওয়াং বার্মা এবং ওয়াং পেরাহ পার্বত্য এলাকায় ২৮টি মানবপা’চার শিবির ও ১৩৯টি গণ-ক’বরের সন্ধান পাওয়া যায়। সেখান থেকে শতাধিক বাংলাদেশি ও মায়ানমারের রোহিঙ্গা অভিবাসীর ডেডবডি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় পুরো বিশ্বজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছিল।

বাংলাট্রিবিউন

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!