আমাদের কোন কাজে কতটা ক্যালরি খরচ হয়, জানেন?

0

লাইফ স্টাইল ডেস্ক:

আমাদের যাদের ওজন স্বাভাবিকের তুলনায় বেশি তারা প্রায়ই চেষ্টা করি বাড়তি ওজন কমিয়ে স্লিম আর ফিট ফিগার পেতে। কিন্তু আমরা প্রতদিন খাবারের মাধ্যমে যে পরিমাণ ক্যালরি গ্রহণ করি, তা কীভাবে কোন কাজে কতটুকু ব্যয় হয় সে হিসেব না জানার ফলে অনেক সময়ই আমাদের কাঙ্ক্ষিত ফিগার ধরা ছোঁয়ার বাইরেই থেকে যায়।‍

শরীরের চাহিদা অনুযায়ী দেহকে সঠিকভাবে চালানোর জন্য খাদ্যশক্তির যেমন প্রয়োজন, তেমনি ক্যালরি ব্যয় করে বাড়তি মেদ জমা থেকেও সচেতন হতে হয়। আমাদের দৈনন্দিন কাজের মাধ্যমেই ক্যালরি খরচ হয়।

আসুন জেনে নেই কোন কাজে প্রতিঘণ্টায় কতো ক্যালরি ব্যয় হয়:

ঘুমের সময় ৪৬, টিভি দেখায় ৫৬, কম্পিউটারে কাজ করে ১০২, পরিবারের হালকা কাজ ৯৫, লাইনে দাঁড়িয়ে ১০০, বাচ্চাদের সঙ্গে খেলা করলে ক্ষয় হয় ১২০,
ড্রাইভিং ১২০, শপিং ১৩৫, খাওয়ার সময় ১৪০, রান্না করতে করতে ব্যয় হয় ১৮৬, হাঁটা ২৩০, বাগান করা ৩০০, হাল্কা যোগব্যায়াম ৩০০, নৃত্য ২২৪,

ভার উত্তলোন ২২৪, ভলিবল ৩৪০, বোলিং ১৪৫, বেসবল ৩৬৫, হাঁটা (গতি প্রতি ঘণ্টায় ৪.৫ মাইল) ৩৭২, টেনিস ৫২০, সাঁতার ৫২০, সাইকেল চালানো (গতি প্রতি ঘণ্টায় ২০ মাইল) ১২০০, দড়ি লাফানো ৯০০, দৌঁড়ানো (গতি প্রতি ঘণ্টায় ৭.৫ মাইল) ৯৪০ [সূত্র: হার্ভার্ড হার্ট লেটার]

যেভাবে তারুণ্য ধরে রাখবেন সহজে

নিজেকে ইয়ং রাখার জন্য কয়েকটা অভ্যাস পালন করতেই হয়। যা কিনা আপনাকে সুস্থ, সুন্দর ও সতেজ রাখতে সাহায্য করবে।

১. বেশি রাত জাগবেন না, তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়ুন। ঘুম থেকে উঠুনও জলদি। কারণ, ডাক্তাররা মনে করেন, ঘুম হল সব সমস্যার সমাধান। ঘুম যদি ঠিকঠাক হয়, তাহলে কোনো সমস্যাই বেশিদিন চলতে পারে না।
২. সকালে ঘুম থেকে উঠে হালকা ব্যায়াম করে নিন। ব্যায়াম মানেই যে জিমে যেতে হবে তা কিন্তু একেবারেই নয়। আপনার বয়স, শরীর অনুযায়ীই হালকা ব্যায়াম করুন। এখন যেহেতু বাড়ির বাইরে যাওয়া বারণ, ঘরেই এক জায়গায় দৌড়ের প্র্যাকটিস করতে পারেন। অথবা স্কিপিং (দড়িলাফ) করতে পারেন।

৩. বাইরের খাবারকে একেবারেই গুডবাই বলুন। খাদ্য তালিকায় রাখুন প্রচুর পরিমাণে শাক-সবজি, ফল। নিয়মিত টক দই খান।
৪. প্রচুর পানি খান। পানি আমাদের শরীর থেকে দূষিত জিনিসগুলো সহজে বের করে দেয়। সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে পানি খান। দেখবেন সুস্থ থাকবেন।

৫. ভালো বই পড়ুন, ভালো সিনেমা দেখুন। টেনশন থেকে দূরে থাকুন। পজিটিভ চিন্তা ভাবনা করুন।

৬. মহামা’রী দুর্যোগ না থাকলে মাঝে মধ্যেই ঘুরতে বেরিয়ে পড়ুন। কাউকে না পেলে একাই বেড়িয়ে আসুন। মন ভালো রাখার এর থেকে সহজ উপায় খুবই কম আছে।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!