ঝিনাইদহে মুক্তিযো’দ্ধা পরিবারের ওপর রাজাকার মোল্লা বংশের হাম’লা!

0

সময় এখন ডেস্ক:

পূর্ব বিরো’ধের জেরে হাম’লা করা হয় বীর মুক্তিযো’দ্ধা পরিবারের ওপর। প্রতিবাদ করায় বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন কেন্দ্রীয় কমিটির তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক, মুক্তিযু’দ্ধ বিষয়ক গবেষক ও অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট শাহেদুর রহমানের (শেখ সাদি) পা ভে’ঙে দিয়েছে ৭১’এর রাজাকার বাচ্চু মোল্লার নেতৃত্বাধীন সন্ত্রা’সী বাহিনী!

ঘটনাটি ঝিনাইদহ জেলার শৈলকূপা উপজেলার বিজুলিয়া গ্রামের।

ঘটনার সুত্রপাত ২০ মার্চ ২০২০। বেলা আনুমানিক ১২টার দিকে দেশীয় অ’স্ত্র নিয়ে বিজুলিয়া গ্রামের বীর মুক্তিযো’দ্ধা ৭০ বছর বয়স্ক আকামত শেখের (সনদ নং- ২৭৬৪৪) বসত বাড়িতে ঢুকে সন্ত্রা’সীরা টিনের বেড়া, দরজা, জানালা ভা’ঙচুর করে এবং ঘরে থাকা নগদ দেড় লাখ টাকা লু’টে নিয়ে যায়। ওইদিন বিকেলে আকামত শেখের ছেলে মোমরেজ বাড়ি ফেরার পথে তাকে রড ও লা’ঠি দিয়ে পে’টায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় গত ২৩ মার্চ তারিখে সুজন মোল্লা (৩৫), সুমন মোল্লা (৩২), বাচ্চু মোল্লা (৫০), কিবরিয়া মোল্লা (৬০), দিপু মোল্লা (৪৫) সহ ৭ জন আসামীর নাম উল্লেখ করে পেনাল কোডের ১৪৩/ ৪৭/ ৩২৩/ ৩৪১/ ৪২৭/ ৩৮০/ ৫০৬ ধারায় একটি দায়ের করা হয় (মামলা নং-২০)।

মুক্তিযো’দ্ধা পরিবারের ওপর হাম’লার প্রতিবাদে করেন একই গ্রামের বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় নেতা মুক্তিযু’দ্ধ বিষয়ক গবেষক ও অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট শেখ সাদি (৩৪)। এতে গত ১৩ এপ্রিল বাড়ির পাশে নদী হতে গোসল করে ফেরার পথে বাচ্চু মোল্লার নেতৃত্বাধীন সেই হাম’লাকারীরা শেখ সাদিকে পি’টিয়ে পা ভে’ঙে দেয়! এই ঘটনায় আরেকটি মামলা দায়ের করা হয় শৈলকূপা থানায়।

শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি বজলুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আসামীদের গ্রেপ্তারে সর্বাত্মক চেষ্টা অ’ব্যাহত আছে।

এলাকাবাসী ও স্থানীয় মুক্তিযো’দ্ধাদের সাথে আলাপে জানা যায়, রাজ্জাক মোল্লা, সফি মোল্লাসহ তাদের পুরো পরিবার ছিলো পাকিস্থানপ্রেমী। ৭১’র পূর্বে রাজনীতিতে সক্রিয় না থাকলেও পাকিস্থানপ্রীতির জন্য তাদের মেলামেশা ওঠাবসা পাকিস্থানপন্থী জামায়াতে ইসলামী ও মুসলিম লীগ নেতাদের সাথে। মুক্তিযু’দ্ধে তাদের পুরো পরিবার ও বংশধররা প্রকাশ্যে পাকিস্থানের পক্ষে অবস্থান নিয়ে সহায়তা করে থাকে পাকিস্থানী সেনা ও মুক্তিযু’দ্ধ বিরো’ধীদের।

এই রাজাকাররা এলাকায় মুক্তিযো’দ্ধা ও অ’মুসলিম পরিবারের ওপর চালায় সকল প্রকার মানবতাবিরো’ধী অপরাধ। মুক্তিযু’দ্ধের শেষ দিকে কমান্ডার রহমত আলী মন্টুর নেতৃত্বাধীন মুক্তিযো’দ্ধাদের হাতে ধারা পড়ে রাজ্জাক মোল্লা, সফি মোল্লা ও তাদের আরেক ভাইসহ কয়েকজন রাজাকার। শৈলকূপার খালকুলা ওয়াপদা এলাকায় সেই রাজাকারদের ওপর বেয়নেট চার্জ করেন বীর মুক্তিযো’দ্ধারা। এতে ৭ রাজাকার মা’রা যায়।

উল্লেখ্য, রাজকারদের ওপর বেয়নেট চালান যে মুক্তিযো’দ্ধারা, সে দলের সদস্য প্রয়াত মুক্তিযো’দ্ধা মজনু শেখ সাদির জেঠতুতো ভাই।

মুক্তিযু’দ্ধের পর এই রাজাকাররা কিছুদিন গা ঢাকা দিয়ে থাকলেও আবার প্রকাশ্যে আসে জাসদ গণবাহিনী সৃষ্টির পর। শুরু করে হ’ত্যা, সন্ত্রা’স ও লু’টপাট। বঙ্গবন্ধু হ’ত্যার পর সামরিক শাসক জিয়া, স্বৈ’রাচার এরশাদ ও খালেদা সরকারের পাশে থাকার পর ৯৬-তে আওয়ামী লীগ নেতাদের আশ্রয় পায়। মনোহরপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান রাজাকার রাজ্জাক মোল্লার নাতি মোস্তফা আরিফ রেজা মুন্নু মোল্লা, যার নেতৃত্বে এলাকায় মুক্তিযো’দ্ধা ও মুক্তিযু’দ্ধের সমর্থকদের ওপর চালাচ্ছে নির্যা’তন।

হাম’লার শি’কার মুক্তিযো’দ্ধা আকামত শেখ ও শাহেদুর রহমান ওরফে শেখ সাদি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও মুক্তিযু’দ্ধের চেতনা ধারণ ও লালন করাই হচ্ছে আমাদের অপরাধ, মুক্তিযু’দ্ধের স্বপক্ষের শক্তি আওয়ামী লীগ ক্ষমতাসীন অথচ আমরা অ’সহায়! আমাদের জীবন ও পরিবারের নিরাপত্তা চাই। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ মুক্তিযু’দ্ধের চেতনা নিয়ে সন্মানের সাথে বাঁচতে চাই।

এই বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে শৈলকূপা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বজলুর রহমান বলেন, আমরা ভিক্টিম পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত এবং আসামীদের গ্রেপ্তারে বদ্ধপরিকর।

প্রতিবেদক: সাইফুল ইসলাম

শেয়ার করুন !
  • 313
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply