মা পাঠালো বাজারে, ছেলে লকডাউনের মধ্যে ফিরল বউ নিয়ে!

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

লকডাউনে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রী কিনতে ছেলেকে বাজারে পাঠালো মা। কিন্তু ছেলে বাসায় ফিরল বউ নিয়ে। ভারতে চলমান লকডাউনে উত্তরপ্রদেশের গজিয়াবাদের সাহিবাবাদে এমন অদ্ভুত কাণ্ড করেছে গুড্ডু নামের এক যুবক। দেশটির সংবাদ সংস্থা এএনআই এ খবর জানিয়েছে।

এমন অদ্ভূত কাণ্ডে বিস্মিত হয়েছেন ওই ছেলের মা। গোপনে বিয়ে করে স্ত্রী নিয়ে আসায় বাসায় ঢুকতে দেননি ছেলে এবং তার স্ত্রীকে। ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআই বলছে, পরে ওই মা ছেলের এমন কাণ্ডের জন্য পুলিশ স্টেশনে গিয়ে অভিযোগ করেছেন।

ওই ছেলের মা কাঁদতে কাঁদতে বলেন, আজ আমি ছেলেকে মুদি দোকানে পাঠিয়েছিলাম পণ্য-সামগ্রী কেনার জন্য। কিন্তু সে ফিরে আসার সময় বউ নিয়ে আসে। আমি এই বিয়ে মেনে নিতে রাজি নই।

২৬ বছর বয়সী ছেলে গুড্ডু ২ মাস আগে হরিদ্বারের আর্য সমাজ মন্দিরে গোপনে বিয়ে করেছিলেন। লকডাউন উঠে গেলে বিয়ের সার্টিফিকেট পাবেন বলে প্রত্যাশা করছেন এই নবদম্পতি।

গুড্ডু বলেন, ওই সময় পর্যাপ্ত স্বাক্ষীর অভাবে আমরা বিয়ের সার্টিফিকেট পাইনি। আমি আবারও হরিদ্বার যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। কিন্তু লকডাউনের কারণে তা সম্ভব হয়নি।

লকডাউনের কারণে স্ত্রীকে ঘরে আনতে উদ্বুদ্ধ হয়েছেন বলে জানিয়েছেন গুড্ডু। লকডাউনের সময় স্ত্রী সবিতা দিল্লিতে ভাড়া বাসায় অবস্থান করছিলেন। কিন্তু সম্প্রতি বাসার মালিক তাদের ফ্ল্যাট ফাঁকা করে দেয়ার নির্দেশ দেন।

পানের পিক ফেলায় যুবককে দিয়ে রাস্তা পরিষ্কার করালো পুলিশ!

করোনা প্রতিরোধে চিকিৎসকদের পরই একেবারে সামনের সারিতে আছেন পুলিশ। বারবার মানুষকে সচেতন করছেন। লকডাউনে বাইরে না বের হতে, রাস্তাঘাটে যেখানে সেখানে থুথু না ফেলা, বিভিন্ন ধরনের সচেতনতামূলক প্রচার করছেন। কিন্তু তারপরও এ ধরনের ঘটনা ঘটছে।

রাস্তায় থুথু ফেলায় তাই এবার কড়া পদক্ষেপ ভারতীয় পুলিশের। এক যুবককে নিজের জামা দিয়ে রাস্তায় ফেলা থুথু মোছালেন ট্রাফিক পুলিশ। ঘটনাটি ভারতের দক্ষিণ ২৪ পরগনার ক্যানিংয়ের।

বুধবার সকালে প্রকাশ্য রাস্তায় পানের পিক ফেলেন এই যুবক। তা নজরে আসে ট্রাফিক পুলিশের। এরপর এই যুবকের জামা খুলিয়ে তাকে দিয়ে পানের পিক পরিস্কার করায় ট্রাফিক পুলিশ।

ওই যুবক বলেন, এই সাজা ভুলব না। আর কোনও দিন এই কাজ করব না।

যাদের সচেতনতা আসে না, তাদের এভাবেই শা’য়েস্তা করতে হবে বলেও জানায় ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

শেয়ার করুন !
  • 849
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply