ইউএনও-কে দেখেই আদার দাম হয়ে গেলে আধা!

0

হাটহাজারী প্রতিনিধি:

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার মদুনাঘাট এলাকার অমিত স্টোর নামের একটি মুদির দোকানে টাঙানো মূল্য তালিকায় আদার দাম লেখা ছিল ২৫০ টাকা। কিন্তু ভ্রাম্যমাণ আদালত দেখার সঙ্গে সঙ্গে সেটা কেটে লিখলেন ১৪৫ টাকা।

একই বাজারে আল-আমিন স্টোরে আদার মূল্য তালিকায় আদার দাম লেখা আছে ১৬০ টাকা, কিন্তু বিক্রি করা হচ্ছিল ২৭০ টাকা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমীনের পরিচালিত অভিযানে এমন চিত্র দেখা যায়। অভিযানে দুই দোকানকে ১০ হাজার করে মোট ২০ হাজার টাকা জরি’মানা করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমীন বলেন, মদুনাঘাট এলাকার অমিত স্টোর নামের একটি মুদির দোকানে আমি ঢোকার সময় ছবি তুলেছিলাম, সেখানে ২৫০ টাকা লেখা ছিল। তাৎক্ষণিক তা কেটে করা হয় ১৪৫ টাকা। একইভাবে আল-আমিন স্টোরে আদার দাম মূল্য তালিকায় আছে ১৬০ টাকা, বিক্রি করা হচ্ছে ২৫০ টাকা।

পেঁয়াজের দাম লেখা আছে ৫০ টাকা, বিক্রি করা হচ্ছে ৬০ টাকা। এভাবে অতিরিক্ত মূল্যে আদা ও পেঁয়াজ বিক্রি করায় ২ দোকানকে ১০ হাজার টাকা করে জরি’মানা করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের কারণে তালিকায় কম দাম লেখা হয়েছে বলে দোকানদাররা জানান।

জুতার দোকানে মিলল ২০০ গোখরা সাপ!

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতা বাজারে জুতার দোকান পরিস্কার করতে গিয়ে ২০০টি গোখরা সাপ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে বড়খাতা বাজার রেল গেট এলাকায় সাফল্য শ্যু-স্টোরের বক্স থেকে সাপগুলো বেড়িয়ে আসে।

দোকানের মালিক বাদশা মিয়া জানান, করোনা ভাইরাসে লকডাউন পরিস্থিতির কারণে প্রায় ১ মাস দোকান বন্ধ ছিল। তাই বৃহস্পতিবার দুপুরে দোকানের ভিতরের জুতার বক্সের মধ্যে প্রথম একটি গোখরা সাপ দেখতে পাই। পরে একে একে জুতার বক্সগুলো খুললে ২০০টি সাপের বাচ্চা বের হতে শুরু করে। এ সময় উপস্থিত ক্রেতারা ভ’য় পেয়ে যান। পরে স্থানীয়রা লাঠি দিয়ে সাপের বাচ্চাগুলোকে মে’রে ফেলেন।

এ বিষয়ে বড়খাতা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডে সদস্য আব্দুর সাত্তার বলেন, ওই দোকানে আরও সাপ থাকতে পারে তাই দোকানের মালিক বাদশাকে সবকিছু পরিষ্কার করে দোকানটি খুলতে বলি। আরও কোথাও আছে কি না তা খুঁজে দেখা হচ্ছে।

শেয়ার করুন !
  • 121
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply