ভারতে ICU-তে পুরুষ রোগীকে যৌ’নস্পর্শ, ডাক্তার‍ের নামে মামলা!

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ভারতের মুম্বাইতে হাসপাতালের আইসিইউ ওয়ার্ডে ভর্তি ৪৪ বছর বয়সী পুরুষ করোনা রোগীকে যৌ’ন-নিপী’ড়ন করেছেন ডাক্তার। অভিযুক্ত ৩৪ বছরের ওই ডাক্তারও পুরুষ। এই অভিযোগে ওই চিকিৎসকের বিরু’দ্ধে মামলা হয়েছে।

ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুক্রবার মুম্বাই সেন্ট্রাল এলাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউ ওয়ার্ডের ভিতরে এই ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত ডাক্তার কোয়ারান্টাইনে থাকায় গ্রেপ্তারের করা হয়নি। কোয়ারান্টাইন শেষ হলেই তাকে গ্রেপ্তার করা হবে। অভিযুক্ত ডাক্তারের নাম প্রকাশ করা হয়নি।

খবরে বলা হয়েছে, অভিযুক্ত ডাক্তার ঘটনার মাত্র একদিন আগে হাসপাতালটিতে যোগদান করেছেন। তার বিরু’দ্ধে রোগীর শরীরে আপ’ত্তিকরভাবে স্পর্শ করার অভিযোগ আনা হয়েছে। রোগী এই ঘটনাটি সিনিয়র ডাক্তারকে জানানোর সাথে সাথে তারা মুম্বাই পুলিশকে খবর দেয়।

পুলিশ জানায়, কোভিড-১৯ রোগীর সংস্পর্শে আসায় তারা অভিযুক্তকে ডাক্তারকে গ্রেপ্তার করেনি। পরিবর্তে তাকে নিজ বাড়িতে কোয়ারান্টাইন করা হয়েছে। ১৪ দিনের কোয়ারান্টাইন শেষ হলেই গ্রেপ্তার করা হবে। অভিযুক্ত ডাক্তারের বিরু’দ্ধে ভারতীয় পেনাল কোডের ৩৭৭, ২৬৯ এবং ২৭০ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এই ঘটনার বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলেছে, অভিযুক্ত ডাক্তার তার প্রথম দিন ডিউটিতে ছিলেন। আগের দিন কাজে যোগ দিয়েছিলেন। এই ঘটনার পর প্রটোকল অনুসারে পুলিশকে খবর দেয় হয় এবং ওই চিকিৎসককে চাকরি থেকে অ’ব্যহতি দেওয়া হয়েছে। সূত্র- ইন্ডিয়া টুডে।

যে কারনে নারীর চাইতে পুরুষের করোনা হয় বেশি

করোনা ভাইরাস রোগীদের শরীরে কিভাবে কাজ করে সেই ‘মেকানিজম’ ধরে ফেলেছেন বলে দাবি করেছেন একজন ইতালিয়ান বিজ্ঞানী। বিষয়টি ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, কোভিড-১৯ রোগীদের শরীরে হিমোগ্লোবিনকে ক্ষ’তিগ্রস্থ করে, রক্তে অক্সিজেন পরিবহনের জন্য লোহিত রক্তকণিকার ক্ষমতাকে হ্রাস করে এবং ফুসফুসকে ক্ষ’তিগ্রস্থ করে ফলে তীব্র শ্বাসক’ষ্টের লক্ষণ দেখা দেয়। খবর জেরুজালেম পোস্টের।

তার এই গবেষণা যদি সঠিক হয়, তবে এটি করোন ভাইরাস সম্পর্কে অনেক অজানা প্রশ্নের সমাধান করবে। যেমন- পুরুষদের বৃহত্তর দুর্বলতা- বিশেষত পুরুষ ডায়াবেটিস রোগীদের নভেল করোনা ভাইরাসে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ার কারণ এবং গর্ভবতী নারী এবং শিশুদের কেন কম হারে সংক্র’মণ ঘটছে সেটা জানা যাবে। তদুপরি, এই প্রক্রিয়াটি বোঝার ফলে ভাইরাসটির চিকিৎসার জন্য সবচেয়ে কার্যকর ওষুধগুলো দ্রুত আবিষ্কারের দিকে যেতে পারে।

তিনি জেরুজালেম পোস্টকে বলেছিলেন, সার্স-কভ-২ যেটার আনুষ্ঠানিক নাম নভেল করোনা ভাইরাস। এটার বেঁচে থাকা এবং বংশ বৃদ্ধির জন্য সম্ভবত পোরফায়ারিনের প্রয়োজন আছে, যেটা হিমোগ্লোবিনে থাকে। তাই এটি হিমোগ্লোবিনকে আক্র’মণ করে। হিমোগ্লোবিন রক্তে অক্সিজেন বহনকারী প্রোটিন। রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা সার্স-কভ-২ সংক্র’মণের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ পরামিতি হতে পারে।

তাই নারীদের তুলনায় পুরুষদের শরীরে স্বাভাবিকভাবেই হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ বেশি হয়। এটি মহিলাদের চেয়ে পুরুষদের বেশি কোভিড-১৯ এ আক্রা’ন্ত হওয়ার কারণ হতে পারে। একই কারণে শিশুদের এবং গর্ভবতী মহিলাদের কম আক্র’মণ করে। গর্ভবতী মহিলাদের অধিক আয়রনের প্রয়োজন হয়, ফলে তাদের শরীরে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা কমে যায়। ফলে ভাইরাসটির জন্য কম পুষ্টি থাকে।

শেয়ার করুন !
  • 98
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply