ভারতে লকডাউন শিথিলের পর মৃ’ত্যু ও আক্রা’ন্তের রেকর্ড!

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ভারতে লকডাউন শিথিলের পর গত ২৪ ঘণ্টায় মৃ’ত্যু এবং আক্রা’ন্তের রেকর্ড হয়েছে। এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ সংক্র’মণের ঘটনাও ঘটেছে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রা’ন্তের সংখ্যা। কোনওভাবেই রাশ টানা যাচ্ছে না এই সংখ্যায়। আর সেই সঙ্গে আত’ঙ্কিত ভারতের মানুষ।

ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাব অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রা’ন্তের সংখ্যা বেড়েছে ৩ হাজার ৯০০। যা এখনও পর্যন্ত এক দিনে সর্বোচ্চ। গত কয়েকদিনে দৈনিক যেখানে ২ হাজার এর বেশি করোনা আক্রা’ন্তের হদিস মিলছিল, গত ২৪ ঘণ্টায় তা এক লাফে বেড়ে ৪ হাজার এর কাছে চলে গেছে। এই বৃদ্ধির জেরে করোনা ভাইরাসে আক্রা’ন্তের মোট সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৪৬ হাজার ৪৩৩।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃ’ত্যু হয়েছে ১৯৫ জনের। যা এখনও পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ। এর জেরে মোট মৃ’তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৫৬৮। এখনও পর্যন্ত করোনায় সুস্থ হয়েছেন ১২ হাজার ৭২৭।

ভারতে সবচেয়ে উদ্বেগজনক জায়গা হচ্ছে মহারাষ্ট্র, গুজরাট ও দিল্লি। মহারাষ্ট্রে আক্রা’ন্তের সংখ্যা ১২ হাজার ৯৭৪ আর মৃ’ত্যু হয়েছে ৫৪৮ জনের। মহারাষ্ট্রের পরেই রয়েছে গুজরাট। সেখানে মোট আক্রা’ন্ত ৫ হাজার ৪২৮ জন। আর মৃ’ত্যু হয়েছে ২৯০ জনের।

তৃতীয় স্থানে রয়েছে দিল্লি, সেখানে মোট আক্রা’ন্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৫৪৯, আর মৃ’ত্যু হয়েছে ৬৮ জনের। মধ্যপ্রদেশ, অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ুকে নিয়েও চিন্তায় আছেন ভারতীয় স্বাস্থ্য কর্তারা।

মধ্যপ্রদেশে সংক্র’মিত হয়েছেন ২ হাজার ৯৪২ জন। সেখানে মৃ’ত্যু হয়েছে ১৬৫ জনের। রাজস্থানে সংক্র’মিত হয়েছেন ২ হাজার ৮৮৫ জন। মৃ’ত্যু হয়েছে ৭১ জনের।

তামিলনাড়ুতে আক্রা’ন্তের সংখ্যা ৩ হাজার ২৩, মৃ’ত্যু হয়েছে ৩০ জনের। উত্তরপ্রদেশে ২ হাজার ৭৪২ জন করোনায় আক্রা’ন্ত হয়েছে। মৃ’ত্যু হয়েছে ৪৫ জনের। পশ্চিমবঙ্গে করোনা আক্রা’ন্তের সংখ্যা ১ হাজার ২৫৯। মৃ’তের সংখ্যা ৬১।

করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে গত ২৫ মার্চ ভারতে প্রথম দফায় লকডাউন জারি করা হয়। এই লকডাউনের মেয়াদ এখন পর্যন্ত দুই দফায় বৃদ্ধি করা হয়েছে।

রবিবার দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় লকডাউন শিথিলের পাশাপাশি গ্রিন জোন এলাকার অনেক ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান ও কল-কারখানা খুলে দেয়ার ঘোষণা দেয়। তবে বেশ কিছু নতুন শর্তজুড়েই এসব প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি দেয়া হয়। দেশটিতে রোববারও করোনায় মা’রা গেছেন অন্তত ৮৩ জন এবং আক্রা’ন্ত হয়েছিলেন ২ হাজার ৫৭৩ জন।

দীর্ঘ সময়ের লকডাউনের কারণে অ’চলাবস্থা তৈরি হওয়ায় দেশটির ১৪ কোটি অভিবাসী শ্রমিক কর্মহীন হয়ে ভ’য়াবহ সং’কটের মুখে পড়েছেন।

সূত্র: এনডিটিভি, নিউজ এইট্টিন।

শেয়ার করুন !
  • 313
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!