ভারতের নেতিয়ে পড়া অর্থনীতিকে খাড়া করে দিলো মদ!

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

অ্যালকোহলই এখন কার্যত ভারতের ভরসা হয়ে দাঁড়িয়েছে। করোনা ভাইরাসের সংক্র’মণ ঠেকাতে ঘোষিত লকডাউনে যখন দেশটির অর্থনীতি নেতিয়ে পড়েছিল, ঠিক তখন রাজ্যগুলির হাতে বড় অঙ্কের রাজস্ব তুলে দিয়েছে এই অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় বিক্রির ব্যবসা! এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে জার্মান সংবাদ সংস্থা ডয়েচে ভেলে।

ভারতের সরকার বুঝতে পেরেছে, অর্থনীতির এই বে’হাল অবস্থার মধ্যে অ্যালকোহলযুক্ত নানা ধরনের পানীয় থেকে রাজ্য সরকারগুলি ভালোই রোজগার করতে পারে। সম্ভবত সেই কারণেই, লিকার বিক্রয়কারী আউটলেটগুলোর বাইরে বিপুল লাইন হওয়া সত্ত্বেও রাজ্যগুলি বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশ দিচ্ছে না। এই বিপুল জনসমাগমের কারনে করোনা ভাইরাস সংক্র’মণের সম্ভাবনা তৈরী হলেও জাতীয় অর্থনীতির স্বার্থে লোকজনকে বাধা দিচ্ছে না সরকার।

উল্লেখ্য, গত ২৪ মার্চ থেকে দেশটির সর্বত্র বন্ধ ছিলো অ্যালকোহলের দোকান। তবে, সোমবার (৪ মে) থেকে কয়েকটি রাজ্যে দোকান খোলা রাখার অনুমতি দেয় ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার।

এর পেছনে ছিল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভোক্তাদের দাবী এবং অ্যালকোহল সং’কটের জন্য সৃষ্ট হাহাকার। সরকারের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা হয়ত ভেবেছেন, অ্যালকোহল পানের নিমিত্তে মানুষ ঘরে শান্তিপূর্ণভাবে বসে থাকবে আগের চাইতে বেশি! বাইরে বের হওয়ার প্রয়োজন হবে না তাদের।

পরিসংখ্যান বলছে, অ্যালকোহলের দোকান খুলে দেয়ার ফলে মাত্র ২ দিনেই বিপুল লাভ দেখতে শুরু করেছে রাজ্যগুলি। শুধু সোমবারেই উত্তরপ্রদেশে বিক্রি ছাড়িয়েছে ১০০ কোটি রুপিরও বেশি। কর্ণাটকে মঙ্গলবার রেকর্ড ছুঁয়ে বিক্রি হয়েছে ১৯৭ কোটি রুপির অ্যালকোহল। পশ্চিমবঙ্গেও শতকোটি রুপি ছাড়িয়েছে এর পরিমাণ।

প্রথমদিনেই এই বিপুল চাহিদা দেখেই মঙ্গলবার থেকে দিল্লি প্রশাসন সব ধরণের অ্যালকোহলযুক্ত পানীয়ের ওপর ৭০ শতাংশ অতিরিক্ত করোনা শুল্ক ধার্য করেছে। যা পশ্চিমবঙ্গে ৩০ শতাংশ, অন্ধ্রপ্রদেশে ৭৫ শতাংশ, রাজস্থানে ১০ শতাংশ। প্রায় প্রতিটি রাজ্যই নিজেদের মতো করে অতিরিক্ত করোনা শুল্ক বসিয়েছে।

ফলে বুধবার থেকে প্রতিদিন আরও বেশি রাজস্ব ঢুকবে ভারতের সরকারি কোষাগারে। যে অর্থ ব্যবহার করা হবে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায়!

শেয়ার করুন !
  • 169
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!