ছদ্মবেশে মসজিদে ধ’র্ষকের সাথে নামাজ পড়ে পুলিশ, অতঃপর…

0

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে ধ’র্ষণ মামলার এক পলাতক আসামি সেলিম রেজাকে (২৬) ছদ্মবেশে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাতে নেজামপুর ইউনিয়নের এক মসজিদে নামাজ শেষে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত সেলিম রেজা জেলার নাচোল উপজেলার নেজামপুর ইফপির নেজামপুর কাঁঁঠালিয়া পাড়ার মৃ’ত দবির উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৮ মাস আগে সেলিম রেজার সাথে একই উপজেলার এক মেয়ের পরিচয় হয়। এরই সুবাদে ওই মেয়েকে ঢাকার আশুলিয়ার কাশিমপুর এলাকার এক কোম্পানিতে চাকরি পাইয়ে দেয়। তারপর মেয়েটিকে বিয়ে করার প্র’লোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করার প্রস্তাব দেয় সেলিম রেজা।

কিন্তু মেয়েটি সেলিমের কু’প্রস্তাবে রাজি না হয়ে এক পর্যায়ে চাকরি ছেড়ে গত নভেম্বর মাসে নিজ বাড়ি নাচোলে চলে আসে। পরে চলতি বছরের ২৩ মার্চ নেজামপুর বাজারে মেয়েটির সাথে আবারো সেলিমের দেখা হলে তাকে নতুন একটি চাকরি আছে মর্মে সন্ধ্যায় সেলিম তার বাড়িতে নিয়ে যায় এবং মেয়েটিকে ধ’র্ষণ করে।

এ ঘটনায় নাচোল থানায় সেলিমের বিরু’দ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করার পর সেলিম গা ঢাকা দিলে পুলিশ তাকে ধরতে অভিযান চালায়। এরই এক পর্যায়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে নাচোল থানার এসআই সোহেল রানা মুসল্লীর ছদ্মবেশে নেজামপুরে একটি মসজিদে নামাজ শেষে সেলিম রেজাকে গ্রেপ্তার করে।

এ বিষয়ে নাচোল থানার অফিসার ইনচার্জ সেলিম রেজা জানান, ভিক্টিম মেয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে সেলিমকে গত বৃহস্পতিবার রাতে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ শুক্রবার তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

ঠাকুরগাঁওয়ে অণ্ডকোষ টিপে ধরে হ’ত্যা, কলেজ ছাত্রী গ্রেপ্তার

ঠাকুরগাঁওয়ে অণ্ডকোষ টিপে ধরে হ’ত্যার অভিযোগে এক কলেজ ছাত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (৮ মে) রানীশংকৈল উপজেলায় পদমপুর শালবাড়ী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গ্রেপ্তার জবেদা (২০) শালবাড়ী গ্রামের মোজাম্মেল হোসেনের মেয়ে এবং স্থানীয় একটি কলেজের শিক্ষার্থী।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, শুক্রবার সকাল ৬টার দিকে ফজরের নামাজ পড়ে বাড়ি ফিরছিলেন আব্দুল লতিব। এ সময় তিনি দেখতে পান তার প্রতিবেশী সুফিয়া বেগম (৮০) নামে এক বৃদ্ধাকে তারই বাড়ির সামনের রাস্তায় মা’রধর করছে কলেজছাত্রী জবেদা। আব্দুল লতিব বৃদ্ধাকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে জবেদা বৃদ্ধাকে ছেড়ে আব্দুল লতিবের অণ্ডকোষ টিপে ধরে। এতে ঘটনাস্থলেই আব্দুল লতিবের মৃ’ত্যু হয়। এ ঘটনায় পুলিশ জবেদাকে গ্রেপ্তার করে।

স্থানীয়রা জানান, আব্দুল লতিবের স্ত্রীসহ ২ ছেলে ও ২ মেয়ে রয়েছে। লতিবের উপার্জনের টাকায়ই পরিবার চলতো।

রানীশংকৈল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযুক্ত জবেদাকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। ডেডবডি ময়নাতদন্তের জন্য ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে একজনকে আসামি করে হ’ত্যা মামলা করা হয়েছে।

শেয়ার করুন !
  • 34
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!