করোনার এমন সময়ে জার্মানিতে বিনামূল্যে বিয়ার বিতরণ!

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

চলমান করোনা ভাইরাসের এমন সময় রেস্টুরেন্ট ও হোটেল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বিপদে পড়েছে জার্মানির বিয়ার উৎপাদন প্রতিষ্ঠানগুলো। হাজার হাজার লিটার বিয়ার ন’ষ্ট হওয়ার উপক্রম। উপায় না দেখে এমন একটি প্রতিষ্ঠান বিনামূল্যে বিতরণ করছে বিয়ার!

ফেলে দেওয়ার বদলে ক্রেতাদের মধ্যে বিনামূল্যে বিয়ার বিতরণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভিলিঙ্গার ব্রাউহাইস নামের প্রতিষ্ঠানটি। এরইমধ্যে জার্মানির হেসে রাজ্যের এই উৎপাদক ২ হাজার ৬০০ লিটার বিয়ার বিতরণ করেছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

প্রতিষ্ঠানের মালিক ফ্রানৎস মাস্ট রয়টার্সকে জানান, আমরা জনগণকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। আশা করবো এখন যারা আসছেন, তারা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও এভাবেই আমাদের সঙ্গে থাকবেন।

এই বিয়ার বিভিন্ন এলাকার রেস্টুরেন্ট, বার ও হোটেলে সরবরাহ করার কথা ছিলো। তবে করোনার কারণে সব বন্ধ হয়ে যায় ভিলিঙ্গার ব্রাউহাইস। এখন সীমিত পর্যায়ে জার্মানির বিভিন্ন রাজ্যে সবকিছু খুলতে শুরু করেছে। ফলে পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক হওয়ার আগে নতুন বিয়ার উৎপাদনে যেতে হবে প্রতিষ্ঠানটিকে।

স্থানীয় ক্রেতারা প্রায় প্রতিদিনই এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ও মাস্ক পরাসহ নানা নির্দেশনা মেনে সকাল থেকে লাইনে দাঁড়াচ্ছেন!

দুধের চেয়ে স্বাস্থ্যের জন্য বেশি উপকারী বিয়ার: PETA’র সমীক্ষা

দুধ এবং অ্যালকোহল সম্পর্কে সাধারণ মানুষের ধারণার বাইরে উঠে এসেছে চমকপ্রদ একটি তথ্য। পেটা (People for the Ethical Treatment of Animals)-র একটি সমীক্ষায় জানা গেছে, দুধ নয়, বরং বিয়ার খাওয়ার স্বাস্থ্যের পক্ষে উপকারী।

পেটা তাদের এক সমীক্ষায় জানাচ্ছে, দুধের চেয়ে বিয়ার খাওয়া ভালো। সমীক্ষাটিতে বলা হয়েছে, বিয়ার কেবল হাড়কেই শক্ত করে না বরং এটি খেলে মানুষের আয়ুও বাড়ে। এমনকি পেটা মানুষকে দুধ না খাওয়ারও পরামর্শ দিয়েছে। শুধু এই নয়, দুধ খাওয়ার কয়েকটি ক্ষ’তিকারক দিক নিয়েও আলোচনা করেছে পেটা।

যেখানে বলা হয়েছে, দুধ স্থূ’লতা, ডায়াবেটিস এবং ক্যান্সারের মতো দুরা’রোগ্য ব্যা’ধিরও কারণও বটে।

হার্ভার্ড স্কুল অব পাবলিক হেলথের একটি রিপোর্টের তথ্য অনুযায়ী, পেটা এমনটা দাবি করেছে।

বিয়ারকে কোলেস্টেরলযুক্ত বেভারেজ বলে মানা হয়। এটি বানাতে যেসব উপকরণ ব্যবহৃত হয় তার মধ্যে অনেক পুষ্টিকর উপাদান রয়েছে। বিয়ার বানাতে গম, ভুট্টা, যব এবং চাল ব্যবহার করা হয়। শুধু তাই নয়, বিয়ারে ৯০ শতাংশ পানি ছাড়াও ফাইবার, ক্যালশিয়াম, আয়রনসহ শরীরে পুষ্টি যোগায় এমন অনেক পুষ্টি উপাদান থাকে।

বিয়ার মানুষের হাড়কেও মজবুত করে। শরীরের মাংসপেশির বিকাশের জন্যও বিয়ারকে যথেষ্ট উপকারী হিসেবে গণ্য করা হয়। যেখানে দুধ খেলে নানাবিধ রোগ, যেমন- হৃদরোগ, স্থূ’লতা, ক্যান্সার ও ডায়াবেটিস হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা থাকে।

শেয়ার করুন !
  • 487
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!