কাবা অব’মাননার অভিযোগে হিন্দু যুবক গ্রেপ্তার, মিছিলকারীরা জানে না ঘটনা কী!

0

জামালপুর প্রতিনিধি:

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে মুসলমানদের পবিত্র কাবা শরীফ নিয়ে অব’মাননার অভিযোগ ওঠে স্থানীয় মুসল্লিদের পক্ষ থেকে। এর প্রেক্ষিতে সুমন দাস নামে স্থানীয় এক হিন্দু যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গতকাল রোববার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সদর ইউনিয়নের জামিরাকান্দা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এম ময়নুল ইসলাম অনলাইনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গতকালই সুমন দাসকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরু’দ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আজ সোমবার গ্রেপ্তার ওই যুবককে জামালপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।

এদিকে এ ঘটনা নিয়ে এলাকায় উত্তে’জনা বিরাজ করছে। গতকাল রোববার সুমন দাসকে গ্রেপ্তারের পূর্বে স্থানীয় মুসল্লিরা একটি মিছিল বের করেন। সেখানে সুমন দাসকে গ্রেপ্তার এবং তার ফাঁ’সি পর্যন্ত দাবী করা হয়। সেই মিছিলের ছবি তুলতে গেলে প্রতিবেদককে বাধা দেয়া হয়। তখন মিছিলে অংশ নেয়া স্থানীয় কয়েকজনের সাথে কথা হয় প্রতিবেদকের।

আব্দুল কাদের (৪০) এর কাছে জানতে চাওয়া হয়, কী কারনে মিছিল করা হচ্ছে। তিনি জানান, সুমনকে গ্রেপ্তারের জন্য। কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন, সঠিক জানি না। হুজুররা বলছে তাই মিছিলে আসছি। একই কথা জানালেন তোরাব আলী, মো. মহসিন এবং সুজায়েত উল্লাহসহ কয়েকজন। তাদের সুস্পষ্ট ধারণা নেই কী নিয়ে ঘটনা হয়েছে। তবে তারা মিছিলে নেমে পড়েছেন।

তবে মিছিলের উদ্যোক্তাদের কয়েকজন জানালেন, সুমন ফেসবুকে একটা ফটোশপ করা ছবি পোস্ট করেছেন, যেখানে কাবা ঘরের ওপর পা রাখা হয়েছে। এছাড়া আল্লাহকে নিয়ে বা’জে ভাষায় লেখা রয়েছে। এসব কারনে স্থানীয় আলেম উলামা এবং বিভিন্ন মাদ্রাসার ছাত্ররা তার বিচারের দাবি তোলে। এ নিয়ে রোববার একটি প্রতিবাদ সভা হয়।

ওই সভায়য় সুমন দাসকে গ্রেপ্তারের জন্য প্রশাসনকে ২ ঘণ্টা সময় বেঁধে দেয়া হয়। নইলে আন্দোলন জোরদার হবে বলে হুঁশিয়ারি দেয়া হয়।। যার প্রেক্ষিতে সুমন দাসকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। যদিও সুমন এমন ঘটনা অ’স্বীকার করেছে। যে পোস্ট নিয়ে এত আলোচনা, সেই আইডি তার নয় বলে দাবি করেছেন।

এরপর বিকেল ৪টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুলতানা রাজিয়া, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) রাকিবুল হাসান রাসেল, দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এম ময়নুল ইসলামের উপস্থিতিতে প্রশাসনের অনুরোধে মিছিলকারীরা সবাই ঘরে ফিরে যায়।

শেয়ার করুন !
  • 1.9K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!