সাক্ষাৎকারে জাহানারা: মূর্তি পছন্দ করি না, এতে ঘরে ফেরেশতা আসে না

0

স্পোর্টস ডেস্ক:

প্রশ্ন: স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়?
জাহানারা: পাইওনিয়ার গার্লস হাইস্কুল, সরকারি পাইওনিয়ার গার্লস কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ও বলতে পারেন ওটাই। একই সময় নর্দানেও পড়তাম। পড়তে পড়তে ওখান থেকে আমি আবার পাইওনিয়ারে ব্যাক করেছি। ওখানে গ্র্যাজুয়েশন করছি এখনো।

প্রশ্ন: প্রিয় মানুষ?
জাহানারা: আমার নানী। সার্বিক দিক থেকে হজরত মুহম্মদ (স.)। আইডল মাশরাফি বিন মর্তুজা।

প্রশ্ন: সারারাত গল্প করার মতো বন্ধু?
জাহানারা: সারারাত গল্প করার মতো অবস্থা আমার কখনো ছিল না, আর কখনো হবেও না। কারণ আমি খুব ঘুম পছন্দ করি। খুব তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে যাই, সকালে উঠতে হয়।

প্রশ্ন: আবার জন্মালে কী হতে চান?
জাহানারা: দ্বিতীয় জন্মে বিশ্বাস করি না। একবার যখন জন্ম নিয়েছি, ভালো কিছু করেই চলে যেতে চাই।

প্রশ্ন: প্রথম দর্শনে প্রেম?
জাহানারা: এখন পর্যন্ত হয়নি। তবে অনেককেই ভালো লেগেছে। সুদর্শন ছেলে দেখলেই ভালো লাগে। স্মার্ট, সুদর্শন ছেলে আমার খুব পছন্দ। যদি অন্য সেন্সে বলেন- তা হলে খেলতে খেলতে ক্রিকেটের সঙ্গে প্রেম হয়ে গেছে।

প্রশ্ন: ভূত দেখলে কী করবেন?
জাহানারা: এখনো সামনাসামনি দেখিনি। তবে আমি ভূত খুব ভ’য় পাই। স্বপ্নে দেখে অনেকবার জ্বর এসেছে (হাসি)।

প্রশ্ন: পছন্দের খাবার?
জাহানারা: বিরিয়ানি।

প্রশ্ন: কোন শব্দটা দিনে সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করা হয়?
জাহানারা: প্র্যাকটিস।

প্রশ্ন: কার ক্লোন বানিয়ে বাড়িতে রাখতে চান?
জাহানারা: ক্লোন বানাতে চাই না। কারণ মূর্তি টাইপের জিনিস আমার পছন্দ না। এতে ঘরে ফেরেশতা আসে না। আমার ছবি, ক্রেস্ট ইত্যাদি সব একটা ঘরে রেখেছি যেন অন্য রুমে ফেরেশতারা আসতে পারে বা থাকতে পারে।

প্রশ্ন: এখন পর্যন্ত শ্রেষ্ঠ পাওয়া উপহার?
জাহানারা: এশিয়া কাপের ট্রফি।

প্রশ্ন: সবচেয়ে আনন্দের দিন?
জাহানারা: এশিয়া কাপ জেতার দিনটা (জুন ১০, ২০১৮)।

প্রশ্ন: সবচেয়ে দুঃখের দিন?
জাহানারা: ২০১৪ দক্ষিণ কোরিয়ার ইনচেনে অনুষ্ঠিত এশিয়ান গেমসের ফাইনাল ম্যাচের হারটা। গোল্ড মিস করেছিলাম। প্রতিপক্ষ ছিল পাকিস্থান।

প্রশ্ন: ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট?
জাহানারা: ২০০৮-এর একটা প্র্যাকটিস ম্যাচ। জীবনের প্রথম আমি ৬ উইকেট পেয়েছিলাম। আনসার একাডেমিতে হয়েছিল। ৬ উইকেট পাওয়াতেই আমি জাতীয় দলের জন্য নির্বাচিত হই। আমি ২০০৭ সাল থেকে খেলা শুরু করি। সর্বোচ্চ উইকেট পেয়ে ক্যাম্পে ডাকও পেয়েছিলাম। আনলাকিলি আমি টিমে সুযোগ পাইনি। ২০০৮-এ ওই ম্যাচের পর সুযোগ পাই।

প্রশ্ন: এক সপ্তাহের জন্য প্রধানমন্ত্রী হলে…?
জাহানারা: প্রধানমন্ত্রী হওয়ার আমার কোনো ইচ্ছা নেই। যিনি আছেন বা যারা ইচ্ছা পোষণ করেন তাদের জন্য ঠিক আছে। কখনো যদি অনেক টাকার মালিক হই আমার কিছু ইচ্ছা আছে তা পূরণ করার চেষ্টা করব।

প্রশ্ন: ছবি আঁকতে দিলে…?
জাহানারা: এখনো রঙ-পেনসিল নিয়ে বসলে গ্রামের দৃশ্যটাই আঁকা হয়। তবে আমি একদমই ভালো আর্টিস্ট না।

প্রশ্ন: বিপদে পড়লে সবার প্রথমে কাকে ফোন দেবেন?
জাহানারা: বিসিবিতেই প্রথম ফোন দেব।

প্রশ্ন: ক্রিকেট, ফুটবল, টেনিস না হকি?
জাহানারা: ক্রিকেট। ফুটবল খেলা দেখতে পছন্দ করি। ভলিবল খেলতাম। ওটা আমার প্রথম প্রেম।

প্রশ্ন: পছন্দের ক্রিকেটার, ফুটবলার?
জাহানারা: মাশরাফি বিন মর্তুজা, লিওনেল মেসি।

প্রশ্ন: ফুটবলে কোন দলকে সাপোর্ট করেন?
জাহানারা: আর্জেন্টিনা, বার্সেলোনা।

প্রশ্ন: জাতীয় দলে বন্ধু ক্রিকেটার?
জাহানারা: নির্দিষ্ট করে আলাদা কোনো ঘনিষ্ঠ বন্ধু নেই। জাতীয় দলে সবাই আমার বন্ধু।

প্রশ্ন: কোনো ছেলে প্রপোজ করলে কেমন লাগে?
জাহানারা: ডেফিনেটলি ভালো লাগে। খুশি খুশি লাগে। ক’ষ্টও লাগে। কারণ যে প্রপোজ করছে তাকে আমি ফিডব্যাক দিতে পারছি না। হ্যাঁ বলতে পারছি না।

প্রশ্ন: শেফ হিসেবে নিজেকে ১০-এর মধ্যে কত দেবেন?
জাহানারা: সাড়ে ৯ দেব। মাঝে মধ্যে লবণ, ঝাল কম বেশি হয়ে যায় ওদিক থেকে। অবশ্যই বাঙালি রান্না। যদি বিরিয়ানি হয় তা হলে দশে দশ দেব।

প্রশ্ন: অটোগ্রাফ না সেলফি?
জাহানারা: দুটোই।

প্রশ্ন: শপিংয়ে কার পছন্দকে প্রাধান্য দেন?
জাহানারা: নিজের। পরিবারের জন্য কেনাকাটা করলে তারাও আমার পছন্দকেই প্রাধান্য দেয়।

প্রশ্ন: মেসির সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ পেলে সঙ্গী হিসেবে কাকে নেবেন?
জাহানারা: একা একাই চলে যাব (হাসি)। মেসিকে আমার খুব পছন্দ।

প্রশ্ন: নিজের সবচেয়ে বড় গুণ, দোষ?
জাহানারা: নিজের সবচেয়ে বড় গুণ হচ্ছে আমি সৎ। দোষ হচ্ছে, আমি অ’সৎকাজ পছন্দ করি না।

প্রশ্ন: আজকের এ অবস্থানে আসার পেছনে কার অবদান সবচেয়ে বেশি?
জাহানারা: স্টেপ বাই স্টেপ অনেক মানুষের অবদান আছে। পাশাপাশি আমার নিজের হাড়ভাঙা পরিশ্রম আর বিশ্বাস।

প্রশ্ন: সেলিব্রিটি লাইফ কতটা উপভোগ করেন?
জাহানারা: খুব বেশি উপভোগ করি না, মোটামুটি। কারণ আমি নিজেকে সেলিব্রিটিই ভাবি না। আমি মনে করি, কেউ যদি আমার সঙ্গে সেলফি তোলে, অটোগ্রাফ নেয় এটাও আমার কাছে অনুপ্রেরণা। আমার খেলায় বাহবা দিলে, প্রশংসা করলে আমার প্রচণ্ড খুশি লাগে, এটাও অনুপ্রেরণা এবং খারাপ খেললে দুইটা গালি দিয়ে কথা বললে ওটা থেকেও আমি অনুপ্রেরণা নেই। কারণ আমার কাছ থেকে তাদের প্রত্যাশা বেশি, এ জন্য গালি দিয়েছে। এমনিতে খুব মন খারাপ হয়। তার পরও অনুপ্রেরণা নিয়ে থাকি। আমি নিজেকে একজন সাধারণ ক্রিকেট প্লেয়ার মনে করি।

প্রশ্ন: পছন্দের নায়ক, নায়িকা?
জাহানারা: কারিনা, ঐশ্বরিয়া, তামিল নায়ক অজিত কুমার, হৃত্বিক, সালমান, শাহরুখ, আমির। আমি বলিউড, তামিল মুভি প্রচুর দেখি।

প্রশ্ন: পছন্দের লেখক?
জাহানারা: কাজী আনোয়ার হোসেন। মাসুদ রানার লেখক।

প্রশ্ন: যে ধরনের গাড়ি কেনার ইচ্ছে?
জাহানারা: আমার গাড়ি সম্পর্কে খুব বেশি ধারণা নেই। ইচ্ছে আছে, খুব সুন্দর একটা কালো গাড়ি কিনব।

প্রশ্ন: বিশেষ কোনো প্রতিভা?
জাহানারা: ভালো রান্না করতে পারি।

প্রশ্ন: বিয়ে নিয়ে ভাবনা?
জাহানারা: আমার ইচ্ছে আছে দুইটা ওডিআই ওয়ার্ল্ডকাপ খেলার পরে। এর মধ্যে যদি আল্লাহ পাকের ইচ্ছা হয় তা হলে হয়তো হয়ে যাবে। কারণ জন্ম, মৃ’ত্যু, বিয়ে তো ওপরওয়ালার হাতেই। অবশ্যই লাভ ম্যারেজ হবে। কারও সঙ্গে রিলেশনশিপ আছে কি না সেটা না হয় সিক্রেটই থাক (হাসি)।

প্রশ্ন: ক্রিকেটার না হলে…?
জাহানারা: মানুষ বলে আমি নাকি ভালো শেফ হতে পারতাম।

দৈনিক আমাদের সময়

শেয়ার করুন !
  • 6.9K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!