ঈদে সিনেমা হল খুলতে মালিকদের গোপন তৎপরতা!

0

বিনোদন ডেস্ক:

করোন প্র’কোপ ঠেকাতে সরকারের স্বাস্থ্যবিধিকে অনুসরণ করে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, এমনকি বিনোদনের প্রধান মাধ্যম সিনেমাপাড়ায় অভিনয় বন্ধ। বন্ধ সিনেমা হলও। প্রদর্শক সমিতির সেই বন্ধের আহ্বানে সাড়া দিয়ে সারা বাংলাদেশের হল মালিকরা তাদের হলগুলো বন্ধ রেখেছেন। অন্যদিকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে নিয়োগপ্রাপ্ত নতুন প্রশাসক আবদুল আউয়াল গোপন বৈঠক করেছেন ৩ হল মালিকসহ ভাড়া হল মালিক ও এজেন্টদের সঙ্গে।

জানা গেছে, গত রবিবার বিকালে মধুমিতা সিনেমা হলে এই বৈঠকে বসেন তারা। সেই বৈঠকে মধুমিতার কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ, আতিকুর রহমান লিটন, সিরাজুল ইসলাম বাদল (বর্ষা), পাপ্পু (নন্দিতা হলের ভাড়া হল মালিক), আলীক আকবর (মণিহারের ভাড়া হল মালিক), কালাম (এশিয়ার ভাড়া হল মালিক), মুবিন (চিত্রমহলের ভাড়া হল মালিক), আলীম সরদার (বুকিং এজেন্ট), শহীদুল হক মাস্টার (বুকিং এজেন্ট) ও অজিৎ নন্দী (ভাড়া হল মালিক) উপস্থিত ছিলেন।

এতে সমিতি ও নতুন প্রশাসক মুখোমুখি অবস্থানে বলে গুঞ্জরিত হচ্ছে। একই সঙ্গে আলোচনা হচ্ছে নতুন প্রশাসকের মাত্র ৩ জন হল মালিকের সঙ্গে বৈঠক নিয়ে। যদিও ওই হল মালিকদের বক্তব্য, ভাড়া হল মালিক হলেও তারা ভোটাধিকার ক্ষমতা রাখেন বলেই বৈঠকে এসেছেন। যদিও প্রদর্শক সমিতি বলছে, ওই বৈঠকে ৩ জন প্রকৃত হল মালিক ছাড়া বাকিদের ভোটাধিকার ক্ষমতা নেই।

জানা গেছে, গত বছরে অনুষ্ঠিত প্রদর্শক সমিতির নির্বাচন শুরু থেকেই বিরো’ধিতা করেছেন সাবেক সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ। পরবর্তী সময়ে সিলেকশনের মাধ্যমে কমিটি নির্বাচিত হয়। এতে আ’পত্তি জানিয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেন আতিকুর রহমান লিটন নামে এক হল মালিক। তার চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় পুরো ঘটনা তদন্ত করে দেখার জন্য প্রশাসক নিয়োগ দেয়।

এ ব্যাপারে প্রদর্শক সমিতির প্রশাসক বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আবদুল আউয়াল বলেন, আমি মূলত নিয়োগ পেয়েছি হল মালিক সমিতির জন্য একটা সুষ্ঠু নির্বাচন দেওয়ার জন্য। এ জন্যই মিটিং করেছিলাম তাদের সঙ্গে। বলেছি একটা অফিস দেন, আমি সবকিছু আপডেট করে নির্বাচন দিই। তারা এ ব্যাপারে ভেবে দেখবে। আরেকটা বিষয় যা বলছিলেন সে মিটিংয়ে ৩ জন প্রকৃত হল মালিক ছাড়া বাকিরা ভাড়া হল মালিক ও বুকিং এজেন্ট? আসলে এ ব্যাপারে আমি কিছু জানি না বা জানার কথাও না। এ ব্যাপারটা অবশ্যই খোঁজ নেব।

প্রশাসকের বৈঠক নিয়ে প্রদর্শক সমিতির বর্তমান সভাপতি কাজী শোয়েব রশিদ বলেন, আমি শুনেছি তিনি খুবই বিচক্ষণ ব্যক্তি। তার প্রতি আমার সংগঠনের আস্থা রয়েছে। তিনি বৈঠক করতেই পারেন। তবে বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে আরও ৬ মাস আগে থেকেই ২নং কলাবাগান, সুলতানা টাওয়ারের টপ ফ্লোরে সমিতির অফিসের কার্যক্রম চলছে। তাই তার কাছে প্রত্যাশা থাকবে, ভবিষ্যতে এ ঠিকানায় চাইলে তিনি যোগাযোগ করতে পারবেন।

বৈঠকে উপস্থিত একটি সূত্র জানিয়েছে, ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ ও আতিকুর রহমান লিটন পুরনো ছবি চালিয়ে হল খোলার পক্ষে মত ব্যক্ত করেন; যদিও প্রশাসক এ ব্যাপারে কোনো আশ্বাস দেননি।

সিনেমা হল খোলা হবে কি না এমন প্রশ্নের উত্তরে প্রদর্শক সমিতির সাফ জবাব, সরকারের নির্দেশিত পথেই তারা হাঁটবেন। সরকারি নির্দেশ ছাড়া হল খুলে মানুষের মৃ’ত্যুর কারণ হতে পারি না।

শেয়ার করুন !
  • 29
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply