প্রতিদিন ৯০ কেজি মল সরবরাহের নির্দেশ কিম জংয়ের

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

উত্তর কোরিয়ার একনায়ক কিম জং উনকে নিয়ে বিত’র্কের শেষ নেই। তথ্যের অ’প্রতুলতার কারণে অনেক ক্ষেত্রে গুজব রটে তাকে নিয়ে। কিছু দিন আগে মাসখানেক মিডিয়ার অন্তরালে থাকার সময় তার হার্টে বাইপাসের পর তিনি মৃ’ত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা ল’ড়ছেন বলে সংবাদ প্রকাশ করেছিল মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

এই সংবাদ আরও এক ধাপ বাড়িয়ে অনেকে তার মৃ’ত্যুর কথাও প্রচার করেছিল। তবে সম্প্রতি একটি সার কারখানা উদ্বোধনে কিম জং উন উপস্থিত হন। তবে এখানে নাকি তিনি নিজে না এসে সংবাদমাধ্যমের সামনে ডামি পেশ করেছেন। এমন বহু বিত’র্কের মাঝে আরও এক বিত’র্কিত নির্দেশ দিয়েছেন কিম জং উন।

রেডিও ফ্রি এশিয়ার বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টাইমস এবং নিউজ ক্র্যাব পত্রিকা জানিয়েছে, নিজ দেশের মানুষদের প্রতিদিন মল সরবরাহের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। প্রত্যেক নাগরিককে প্রতিদিন ৯০ কেজি করে মল সরবরাহ করতে হবে। অর্থাৎ প্রত্যেক নাগরিককে দৈনিক ৯০ কেজি জৈব সার প্রশাসনের কাছে জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন কিম জং উন। নিজস্ব না হলে পশুর মল ব্যবহার করেও ৯০ কেজি সারের ব্যবস্থা করা যাবে।

কিমের নির্দেশ অ’মান্য করলে রয়েছে সাজাও। পিয়ংইয়ংয়ের তরফে স্পষ্ট জানানো হয়েছে, এই নির্দেশ অ’মান্য করলে সংশ্লিষ্ট নাগরিককে ৩০০ কেজি সারের বন্দোবস্ত করতে হবে। তাও না দিতে পারলে, নাগরিকদের থেকে জরি’মানা বাবদ অর্থ নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে সং’ঘাতের কারণে উত্তর কোরিয়ায় সারের অভাব বহু আগে থেকেই। কিম জং উনের বাবার সময় থেকেই সার-সং’ঘাতে জড়িয়ে পড়ে এই দুই দেশ।

এই কিম সেই কিম নয়, আসল কিম মৃ’ত!

গত শুক্রবার (১ মে) প্রায় ২০ দিন পর জনসম্মুখে এসেছিলেন উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন। তখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিমের সাম্প্রতিক ছবি পোস্ট করে অনেকেই দাবি করেছেন জনসম্মুখে আসা কিম আসল কিম নয়। সেটি তার ডাবল বডি অর্থাৎ অবিকল কেউ। সেখানে একটি ছবিতে কানের আকৃতি তুলনা করা হয়েছে। যেখানে স্পষ্ট পার্থক্য দেখা যাচ্ছে। তবে এর মধ্যে বেশির ভাগ কিমের ছবিই বেশ পুরনো।

কিমের ডাবল বডির বিষয়ে প্রথম টুইট করেন চিনা ব্লগার জেনিফার জেং। এক টুইট পোস্টে তিনি দাবি করেছেন, মে দিবসে যে কিম জন সম্মুখে এসেছেন তিনি আসল কিম নন। ওই টুইটে জেনিফার জেন বলেন, মে দিবসে যিনি প্রকাশ্যে এসেছেন তিনি কি আসল কিম! ৪টি জিনিস দেখতে হবে- ১) দাঁত, ২) কান, ৩) চুল ও ৪) তার সার্বক্ষণিক সঙ্গী বোন।

এদিকে কিমকে নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যেও তৈরি হয়েছে এমন প্রশ্ন। এ নিয়ে আরেকজন টুইটে লিখেছেন, আমার মনে হয় তিনি মা’রা গেছেন এবং তার অবিকল কাউকে সেখানে আনা হয়েছে।

কিমের সাম্প্রতিক ছবি দেখে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন যুক্তরাজ্যের সাবেক এমপি লুইস মেনশ। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, এটা ওই মানুষটি নয়। তবে আমি তর্কে যাবো না। তার দাঁতের আকার এবং ঠোঁটের উপরে কিউপিড বো সম্পূর্ণ আলাদা।

শেয়ার করুন !
  • 59
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!