‘এত প্রেম করেছি যে, গুণে শেষ করা যাবে না, বিয়েটা এই প্রথম’- ৩য় স্ত্রী প্রসঙ্গে নোবেল

0

বিনোদন ডেস্ক:

৭ মাস আগে তৃতীয়বারের মতো বিয়ে করে সংসার শুরু করেছেন ‘সারেগামাপা’ খ্যাত বাংলাদেশি গায়ক মাইনুল আহসান নোবেল। স্ত্রী মেহরুবা সালসাবিলকে নিয়ে তিনি বর্তমানে রাজধানীর নিকেতনে একটি ফ্ল্যাটে থাকছেন। গত ২ দিন এ খবর দেখা যাচ্ছে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে। বিয়ের কাবিননামাও প্রকাশ পেয়েছে। নোবেলের একাদিক ঘনিষ্ঠজনও এই বিয়ের কথা নিশ্চিত করেন।

তবে দেশের প্রথমসারির একটি দৈনিককে দেয়া সাক্ষাৎকারে নোবেলের দাবি, তিনি জীবনে অনেকগুলো সম্পর্কে জড়ালেও এটি তার প্রথম বিয়ে। ভালোবেসে মেহরুবার মঙ্গে ঘর বেঁধেছেন তিনি। নোবেল জানান, মাত্র আড়াই মাস প্রেম করার পর তারা বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন। ৫ লাখ টাকা দেনমোহরে ২০১৯ সালের ১৫ নভেম্বর তাদের বিয়ে হয়। সেখানে নোবেলের পরিবারের সবাই উপস্থিত থাকলেও ছিলেন না মেয়ে পক্ষের কেউ।

এ ব্যাপারে নোবেলের বক্তব্য, মেহরুবা আমাকে পালিয়ে বিয়ে করেছে। তাই ওর পরিবারের কেউ ছিলেন না। বিয়ের জন্য মেহরুবা আমার সঙ্গে আমাদের ডেমরার বাসায় চলে আসে। সেখানে আমার পরিবারের সদস্যরা ছিলেন। তাদের উপস্থিতিতে বিয়ে হয়। ১ মাস পর অবশ্য আমার শশুরবাড়ির লোকজন সবকিছু জানতে পারেন। এখন সব ঠিক হয়ে গেছে। মেহরুবার পরিবার আমাদের বিয়ে মেনে নিয়েছেন।

স্ত্রীর সঙ্গে পরিচয় সম্পর্কে নোবেল জানান, প্রায় ১০ মাস আগের কথা। আমি শো করতে যুক্তরাষ্ট্রে ছিলাম। হিউস্টনে একটি শো শেষে অ্যারিজোনাতে যাচ্ছিলাম। বিমানে থাকা অবস্থায় মেহরুবা আমাকে ইনস্টাগ্রামে নক দিয়েছিল। সেই থেকে পরিচয় ও সখ্যতা। এরপর দেশে আসি, ওর সঙ্গে দেখা করি। আড়াই মাস প্রেম করার পর আমরা বিয়ের সিদ্ধান্ত নিই। এখন আমরা দুজনে আমাদের নিকেতনের বাসায় থাকছি।

কিন্তু বিয়ের কথা এত দিন লুকিয়ে রাখলেন কেন গায়ক? এ ব্যাপারে নোবেলের ভাষ্য, যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরে বেশ কয়েক মাসের জন্য ভারতে শো করতে গিয়েছিলাম। নানা ব্যস্ততার কারণে বিয়ের কথা জানানো হয়নি। এখন তো সবাই জেনে গেছে। ভালোই হয়েছে, আমি খুশি হয়েছি। কারণ বিয়ের বিষয়টা কীভাবে সবাইকে জানাব, তা নিয়ে একটু টেনশনে ছিলাম। এখন নিজেকে চাপমুক্ত মনে হচ্ছে।

নোবেলের আত্মীয়দের মাধ্যমে জানা যায়, এটি নোবেলের তৃতীয় বিয়ে। সেই ঘনিষ্ঠ আত্মীয় জানান, এর আগে রিমি নামের একটি মেয়েকে বিয়ে করেছিলেন নোবেল। সেই সংসার বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। শারীরিক অ’ত্যাচারের কারনে রিমিই ডিভোর্স দিয়েছিলেন নোবেলকে। এরপর আরেক আত্নীয়ের সঙ্গেও সংসার শুরু করেন নোবেল। নোবেলের অ’ত্যাচারের কারনে সেই সম্পর্কেও অল্প দিনের মধ্যে শেষ হয়ে যায়।

কিন্তু এসব খবরকে অ’স্বীকার করে নোবেল বলেন, এর আগে আমার কোনো বিয়ে হয়নি। তবে অনেক মেয়ের সঙ্গে রিলেশন ছিল। সংখ্যাটা এত যে গুনে শেষ করা যাবে না। বয়সের কারণে এটা হয়ই। বিয়ের আগে সবার জীবনেই প্রেম থাকে। কারো কম, কারো বেশি। আমার একটু বেশিই ছিল। এই অবস্থায় এখন যদি বলা হয় এটি আমার ৩য় বিয়ে, সেটা ঠিক না। এটা গুজব।

প্রসঙ্গত, গান গেয়ে যতটা না আলোচিত হয়েছেন, নানা কর্মকাণ্ডের জন্য তার চেয়ে বহুগুণ বিত’র্কিত ও সমালোচিত হয়েছেন নোবেল। গত বছর ভারতের একটি চ্যানেলের সঙ্গীত বিষয়ক রিয়েলিটি শো-তে অংশগ্রহণের পর থেকে খুব অল্প সময়েই তিনি অনেক বেশি বিত’র্ক ছড়িয়েছেন। বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত পরিবর্তনের দাবি, নামিদামি গায়ক, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর থেকে শুরু করে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিয়েও আপ’ত্তিকর মন্তব্য করেন তিনি।

সম্প্রতি নিজের নতুন গান ‘তামাশা’র প্রচারণাকে কেন্দ্র করে আবারও আপ’ত্তিকর কর্মকাণ্ড চালান। এসব কারণে র‌্যাব কার্যালয় থেকে তার ডাক পড়ে। সেখানে গিয়ে সুনির্দিষ্ট ব্যাখ্যা দিয়ে নিজের মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়ে আসেন বাংলাদেশের এই উঠতি গায়ক। তবে সেই বিত’র্ক শেষ না হতেই ছড়ায় তার এই তৃতীয় বিয়ের খবর।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!