খোলস ছেড়ে স্বরূপে উন্মেষ ঘটছে আওয়ামী লীগের

0

বিশেষ প্রতিবেদন:

করোনা সং’কটের এমন সময় আওয়ামী লীগকে পর্য’দুস্ত করার কৌশল নিয়েছে বিএনপি। বিশেষতঃ করোনা সং’ক্রমণ বাড়ার সাথে সাথে বিএনপি নেতারা সরকারের সমালোচনা করছেন প্রতিদিন নিয়ম করে। সরকারকে ব্যর্থ প্রমাণ করতে উঠেপড়ে লেগেছে। এর জবাবে আওয়ামী লীগের নেতারা কেউ কেউ ছাড়া ছাড়া কিছু কথা বললেও এতে কোন ছন্দ ছিল না, শুধু আত্মপক্ষ সমর্থন। অথচ গত ১২ বছর ধরে আওয়ামী লীগ মিডিয়াতে সরব ছিল, বরং বিএনপি ও তাদের জোটকে প্রায় কোণঠাসা করে রেখেছিল।

বিএনপি দীর্ঘদিন ধরেই এক জনবিচ্ছি’ন্ন রাজনৈতিক দল। কিন্তু করোনাকালে বিএনপিকে আগের চেয়ে চাঙ্গা মনে হচ্ছে। প্রতিদিন সরকারের কর্মকাণ্ড নিয়ে তাদের বিবৃতি আছেই। এসবের জবাবে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে যা বলা হচ্ছে তা স্রেফ আত্মরক্ষামূলক। ওবায়দুল কাদের বলছেন- এখন সমালোচনা বা কাদা ছোড়াছুঁড়ির সময় নয়, এখন রাজনৈতিক বিরো’ধের সময় নয়- টাইপের কথা। এতে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত হতে পারছে না, উল্টো দলের দুর্বলতাই প্রকাশ পাচ্ছে। তবে এই পরিস্থিতির অবসান হতে চলেছে বলে দলের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছে।

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা দলের একাধিক নেতার সঙ্গে কথা বলেছেন। দলীয় কার্যক্রম সচল করার উদ্যোগ নিয়েছেন। এতে স্পষ্ট, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মাঠে নামছেন। জানা গেছে, করোনার শুরু থেকেই আওয়ামী লীগ মাঠে রয়েছে, এতে ইতিবাচক ঘটনাগুলো যতটা না প্রকাশ পেয়েছে, নে’তিবাচক ঘটনাগুলো বেশি সামনে এসেছে। আর তাই এখন নেতাকর্মীরা সক্রিয়ভাবে মাঠে নামার উদ্যোগ নিয়েছে। দলের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো বলছে, শীঘ্রই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বা সীমিত আকারে হলেও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। প্রেসিডিয়াম কমিটির পক্ষ থেকে এই বৈঠক আয়োজনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে দেশজুড়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা যেন করোনা মোকাবেলায় কাজ করেন সেজন্য গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা দেওয়া হবে।

আওয়ামী লীগের একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, মূলত ত্রিমুখী উপায়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সক্রিয় হবে এবং বিভিন্ন কাজে অংশ নেবে।

প্রথমত, করোনা মোকাবেলায় সর্বসাধারণকে স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে সচেতন করা, করোনা টেস্ট করার বিষয়ে গুরুত্ব দেয়, কারো উপসর্গ থাকলে যেন গোপন না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়, অসুস্থদের চিকিৎসা পেতে সহায়তা করা- এসব লক্ষ্য নিয়ে আওয়ামী লীগ স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে মানুষের পাশে দাঁড়াবে। ইতিমধ্যে ব্যক্তিগত পর্যায়ে অনেক নেতাকর্মী এসব কাজ চালিয়ে গেলেও আগামীতে আরও সুসংহতভাবে সাংগঠনিকভাবে কাজগুলো করবে। দুর্গত মানুষের জন্য নেতাকর্মীরা সরকারের পাশাপাশি এলাকাভত্তিক সমন্বিতভাবে ত্রাণ বিতরণে কাজ করবে। ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগের ত্রাণ কমিটি গঠিত হয়েছে। কিন্তু এসব কাজ সমন্বিতভাবে হচ্ছেনা বলে দলের হাইকমান্ড মনে করছে। তাই দায়িত্বগুলোর মাঝে সুষ্ঠু সমন্বয় করতে কেন্দ্র থেকে কমিটিগুলোকে নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে স্ব স্ব এলাকায় যেন দলীয়ভাবে মানুষের পাশে দাঁড়ায়। আওয়ামী লীগ ছাড়াও যেন সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোও যেন একসাথে কাজ করে, তেমন কর্মকৌশল নিয়েই এগোচ্ছে।

দ্বিতীয়ত, প্রতি’পক্ষকে মোকাবেলা করা। এই করোনা সং’কটের সময় নানা রকম ষড়’যন্ত্র হচ্ছে। সরকারের সমালোচনা হচ্ছে। এসবের জবাব নয়, বিএনপি যে করোনার সময়ে পাশে নেই এবং শুধুমাত্র টেলিভিশন ও গণমাধ্যমে হাজির হয়ে আহাজারি করছে- জনগণকে তা চোখে আঙুল দিয়ে দেখানোর কথা ভাবা হচ্ছে। মূলত আওয়ামী লীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলো এই দিকটা দেখবে।

সর্বশেষ আওয়ামী লীগের যে সকল মিত্র রাজনৈতিক দল আছে, যেমন- ১৪ দল, মহাজোট তাদেরকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে পরিস্থিতি মোকাবেলায় খুব শীঘ্রই রাজনৈতিক উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে বলে জানা গেছে।

এভাবে আওয়ামী লীগ খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসতে চায়। করোনা সং’কটের সময় আওয়ামী লীগ যে ব্যাকফুটে চলে গিয়েছিল, সেখান থেকে বেরিয়ে এসে দ্রুত রাজনীতির মাঠের নিয়ন্ত্রণ হাতে তুলে নেবে- এমনটাই জানিয়েছে দায়িত্বশীল সংশ্লিষ্ট সূত্র।

বাংলাইনসাইডার

শেয়ার করুন !
  • 355
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!