সারাদেশে যেসব জায়গায় করা যাচ্ছে করোনা টেস্ট, সংগ্রহে রাখুন ঠিকানা

0

স্বাস্থ্য বার্তা ডেস্ক:

করোনা ভাইরাসের প্র’কোপ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে এই ভাইরাসের নমুনা টেস্টের ল্যাব সংখ্যা। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সবশেষ তথ্যানুায়ী, সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে ৪৯টি প্রতিষ্ঠানের ল্যাবে কোভিড-১৯ এর নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ঢাকায় রয়েছে ২৫টি ল্যাব, ঢাকার বাইরে ২৪টি।

কোভিড-১৯ পরীক্ষায় নমুনা সংগ্রহের কেন্দ্রগুলোর নাম তুলে ধরা হল:-

ঢাকায় যেসব জায়গায় করোনা টেস্ট হয় (সরকারি ব্যবস্থাপনায়):

— বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) — ঢাকা মেডিকেল কলেজ — স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল — মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল — কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল — চাইল্ড হেলথ কেয়ার রিসার্চ ফউন্ডেশন — ঢাকা শিশু হাসপাতাল — কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতাল — উচ্চতর বিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্র, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় — বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট — আর্মড ফোর্সেস ইনস্টিটিউট অব প্যাথলজি ও সিএমএইচ — রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) এবং — আন্তর্জাতিক উদারাময় গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইসিডিডিআরবি)

এসব প্রতিষ্ঠানের কয়েকটিতে শুধু নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নমুনা সংগ্রহ করা বাইরে থেকে। জেনে রাখুন, সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে কোভিড-১৯ টেস্টের জন্য কোনও টাকা দিতে হয় না।

ঢাকায় যেসব জায়গায় করোনা টেস্ট হয় (বেসরকারি ব্যবস্থাপনায়):

— এভারকেয়ার হসপিটাল — স্কয়ার হসপিটাল — প্রাভা হেলথ বাংলাদেশ লিমিটেড — ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ হসপিটাল — আনোওয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হসপিটাল — এনাম মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল — ইউনাইটেড হসপিটাল লিমিটেড — বায়োমেড ডায়াগনস্টিক — ডিএমএফআর মলিকিউলার ল্যাব অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক — ঢাকা ল্যাব এইড হসপিটাল — বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব হেলথ সায়েন্সেস জেনারেল হসপিটাল এবং — কেয়ার মেডিকেল কলেজ।

সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী, বেসরকারি হাসপাতালে গিয়ে নমুনা পরীক্ষা করালে সাড়ে ৩ হাজার টাকা এবং হাসপাতাল প্রতিনিধি বাসায় গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করলে সাড়ে ৪ হাজার টাকা খরচ হবে। যদিও বেসরকারি হাসপাতালে পরীক্ষার খরচ এরচেয়ে বেশি নেয়া হচ্ছে বলে অনেকের অভিযোগ।

ঢাকার বাইরে যেসব জায়গায় করোনা টেস্ট হয় (সরকারি ব্যবস্থাপনায়):

— বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিকাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি), — ভেটেরেনারি অ্যান্ড অ্যানিমেল সায়েন্সে ইনস্টিটিউট, চট্টগ্রাম — চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ — কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ — কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ — আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ, নোয়াখালী — নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় — ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ — শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ, জামালপুর — রাজশাহী মেডিকেল কলেজ — শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ — রংপুর মেডিকেল কলেজ — এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ, দিনাজপুর — সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল — খুলনা মেডিকেল কলেজ — কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ — শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ, বরিশাল — ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ — নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতাল — শহীদ এম. মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ, সিরাজগঞ্জ — যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং — গাজী কোভিড-১৯ পিসিআর ল্যাব, রূপগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ।

ঢাকার বাইরে যেসব জায়গায় করোনা টেস্ট হয় (বেসরকারি ব্যবস্থাপনায়):

— টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড রাফাতউল্লাহ কমিউনিটি হসপিটাল, বগুড়া এবং — শেভরন ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরি (প্রাইভেট) লিমিটেড, চট্টগ্রাম

এছাড়া ব্র্যাক ও জেকেজি পরিচালিত বুথে গিয়ে নমুনা দিয়ে আসা যায়। ঢাকার ৩৪টি জায়গায় তারা বুথ স্থাপন করেছে। সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত নমুনা সংগ্রহ করে তারা সরকার নির্ধারিত গবেষণাগারে পৌঁছে দেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অধীনে এবং যুক্তরাজ্যের উন্নয়ন সংস্থা ডিপার্টমেন্ট ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্টের (ডিএফআইডি) অর্থায়নে সারাদেশে অচিরেই আরও ৬০০ বুথ স্থাপন করবে ব্র্যাক।

সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, দৈনিক একেকটি বুথ থেকে তারা ৩০টি নমুনা সংগ্রহ করে। সক্ষমতা বেশি হলেও, গবেষণাগারের সক্ষমতার ভিত্তিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আপাতত এই সীমা ঠিক করে দিয়েছে। বুথের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়াচ্ছে ব্র্যাক।

যেসব জায়গায় ব্র্যাকের বুথ বসানো হয়েছে:

— সরকারি ইউনানী ও আয়ুর্বেদিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, মিরপুর ১৩ — ৪ নম্বর ওয়ার্ড কমিউনিটি সেন্টার, মিপুর ১৩ — আনোয়ারা মুসলিম গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বাউনিয়া — উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ, উত্তরা — উত্তরা হাই স্কুল (ডিএনসিসি), সেক্টর-৬, উত্তরা — ১০ নং কমিউনিটি সেন্টার (ডিএনসিসি), সেক্টর ৬, উত্তরা — উত্তরখান জেনারেল হাসপাতাল, উত্তরখান, ওয়ার্ড ৪৫ — নবজাগরণ ক্লাব, জামতলা – ইসমাঈলদেওয়ান মহল্লা, আজিমপুর, দক্ষিণখান — পল্টন কমিউনটি সেন্টার – নয়াপল্টন, পল্টন থানার উল্টোদিকে — কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতাল – ১ ও ২ (শুধুমাত্র পুলিশ সদস্যদের জন্য) — প্রেসক্লাব, তোপখানা — ৫০ নম্বর ওয়ার্ড যাত্রাবাড়ি কমিউনিটি সেন্টার, শহীদ ফারুক সড়ক, জলাপাড়া, যাত্রাবাড়ি — সুইপার কলোনী, দয়াগঞ্জ বস্তি, যাত্রাবাড়ি — হাজী জুম্মন কমিউনিটি সেন্টার, নয়াবাজার মোড়, হাজী রশিদ লেন — বাসাবো কমিউনিটি সেন্টার, বাসাবো — ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি, সেগুনবাগিচা — আমলিগোলা পার্ক ও কমিউনিটি সেন্টার, ধানমন্ডি — সূচনা কমিউনিটি সেন্টার, মোহাম্মদপুর — আসাদুজ্জামান খান কামাল কমিউনিটি সেন্টার (ডিএনসিসি), মধুবাগ, মগবাজার — মুক্তিযো’দ্ধা অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম চৌধুরী কমিউনিটি সেন্টার, কামরাঙ্গীরচর — শহীদ আহসানউল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতাল, টঙ্গি এবং — উপজেলা হেলথ কমপ্লেক্স, সাভার।

জেকেজি হেলথ কেয়ার:

— পল্লীবন্ধু এরশাদ বিদ্যালয়, করাইল, বনানী — রাজারবাগ পুলিশ লাইনস স্কুল (শুধুমাত্র পুলিশ সদস্যদের জন্য) — সবুজবাগ সরকারি মহাবিদ্যালয়, বাসাবো, খিলগাঁও — খিলগাঁও স্কুল অ্যান্ড কলেজ, খিলগাঁও — তিতুমীর কলেজ — নারায়ণগঞ্জ স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং — এম ডব্লিউ উচ্চ বিদ্যালয়, সিদ্ধিরগঞ্জ।

শেয়ার করুন !
  • 3.4K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!