মাঝরাতে কান্না শুনে বৃদ্ধাকে হাসপাতালে নিয়ে গেল টহল পুলিশ

0

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি:

করোনা পরিস্থিতিতে এক দূর্দান্ত ও মানবিক পুলিশ বাহিনীকে দেখছে বাংলাদেশ। প্রতিদিনই তাদরে মানবিক কাজের নানা ঘটনা উঠে আসছে গণমাধ্যম এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এবারের ঘটনাস্থল ঝিনাইদহ।

মাঝরাতে অসুস্থ এক বৃদ্ধার কান্নার শব্দ পেয়ে তাকে বাড়ি থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন ঝিনাইদহের পুলিশ সদস্যরা। শনিবার রাত দেড়টার দিকে ঝিনাইদহ শহরের উজির আলী স্কুলের পাশে এ ঘটনা ঘটেছে।

এ নিয়ে ঝিনাইদহ সদর থানা পুলিশের এসআই এখলাসুর রহমান নিজের ফেসবুকে ছবিসহ পোস্ট করেন। সেখানে তিনি লেখেন-

রাত ১টা ৪২ মিনিট। ঝিনাইদহ সদর থানা এলাকায় টহল ডিউটিতে নিয়োজিত। হঠাৎ উজির আলী স্কুলের সামনের একটি বাসা থেকে কান্নার আওয়াজ শুনে গাড়ি থামিয়ে এগিয়ে গেলাম। একজন বৃদ্ধা স্ট্রোক করে বেডে পড়ে আছেন। বৃদ্ধার ছেলের বউ ও নাতনী হাসপাতালে নেয়ার কোনো উপায় না পেয়ে পাশে বসে অ’সহায়ের মতো কান্না করছে।

বৃদ্ধাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেয়ার কোনো লোক বা যানবাহন কিছুই নেই। পরিস্থিতি দেখে থেমে থাকতে পারলাম না। আমার সঙ্গে থাকা মাহিন্দ্র গাড়ির চালককে নিয়ে অসুস্থ বৃদ্ধাকে আমাদের টহল ডিউটিতে ব্যবহৃত গাড়িতে তুলে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করলাম। সবাই অসুস্থ বৃদ্ধার জন্য দোয়া করবেন, তিনি যেন সুস্থ হতে পারেন।

ওই পোস্টে শাহীনূর আলম লিটন নামে একজন লিখেছেন, ধন্যবাদ ঝিনাইদহ পুলিশ বিভাগকে। হাজারো বিরূ’প আর কটু কথার পর বর্তমানে বাংলাদেশ এক মানবিক পুলিশ বাহিনীকে দেখছে। সকল পুলিশ ভাইদের প্রতি জানাই হাজারো সালাম ও স্যালুট।

এ বিষয়ে এসআই মো. এখলাসুর রহমান বলেন, নিজের মানবিকতার জায়গা থেকে বৃদ্ধার জন্য এ কাজ করেছি। ওই বাড়িতে কোনো পুরুষ সদস্য ছিল না। বৃদ্ধার পাশে তার ছেলের বউ ও নাতনী কাঁদছিল। বিষয়টি দেখে আমি মাহিন্দ্র চালককে ডেকে নিয়ে বৃদ্ধাকে গাড়িতে তুলে হাসপাতালে ভর্তি করি।

* ব্যবহৃত ছবিটি প্রতীকী।

শেয়ার করুন !
  • 95
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!