করোনার চিন্তায় ১১ সপ্তাহ শারীরিক সম্পর্কে জড়াইনি: মার্কিন সাহিত্যিক

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

মার্কিন লেখক মিরান্ডা লেভি বলেছেন, ১৬ মার্চ সর্বশেষ শারীরিক সম্পর্কে জড়িয়েছি। ওইদিন ব্রুকলিন হোটেলে আমার প্রেমিকের সঙ্গে ছিলাম। সেও একজন লেখক। সে পরদিন সকালে আমাকে বাসায় রেখে গেছে।

তিনি আরো বলেন, এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে লকডাউন শুরু হয়ে যায়। রাস্তাঘাট ফাঁকা, দোকানপাট বন্ধ, রেস্টুরেন্টও সেভাবে খোলা থাকেনি, বলা চলে সবকিছু বন্ধ হয়ে গিয়েছিল।

আমার প্রেমিক আর আমি ভেবেছি, হয়তো কয়েক মাস আমাদের দেখা হবে না। জুন মাস শুরু হয়ে গেছে। কিন্তু আমরা জানি না যে, কখন দেখা হবে। প্রায় আড়াই মাস একা আছি। কেবল আমি একা নই। পরিসংখ্যানে দেখা গেছে ১০ জনের মধ্যে ৬ জনই লকডাউন শুরুর পর শারীরিক সম্পর্কে জড়ায়নি।

অ্যাংলিয়া রাসকিন ইউনিভার্সিটি এবং উলস্টার ইউনিভার্সিটি এক পরিসংখ্যানে দেখেছে, লকডাউনের ফলে দাম্পত্য সম্পর্কে বিরূ’প প্রভাব পড়েছে। ৮৬৮ জনের ওপর পরিসংখ্যানটি চালানো হয়। পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ৩৯.৯ শতাংশ মানুষ শারীরিক সম্পর্ক আগের মতোই চালিয়ে আসছে।

সম্পর্ক বিশেষজ্ঞ সুসান কুইলিয়াম বলেন, ভ’য় এবং আত’ঙ্ক মানুষের শরীরে ব্যাপক প্রভাব ফেলে। আর এসব থাকলে যৌ’ন ইচ্ছা হ্রাস পেতে পারে।

আর করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে যাওয়ার জেরে মানুষকে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা। সেই সঙ্গে নিজের হাত বারবার সাবান দিয়ে পরিষ্কারের তাগিদ দেওয়া হচ্ছে। এতেও সম্পর্কের ক্ষেত্রে বিরূ’প প্রভাবের শ’ঙ্কা দেখছেন বিশেষজ্ঞরা। সূত্র: আইনিউজ

করোনাকালে সরকারের ত্রাণ সহায়তা জারি

করোনা ভাইরাসের মত দুর্যোগে সারাদেশের সাধারণ মানুষের ক’ষ্ট দূর করতে ত্রাণ সহায়তা জারি রেখেছে সরকার। এ পর্যন্ত সারাদেশে প্রায় দেড় কোটি পরিবারের সোয়া ৬ কোটি মানুষকে ত্রাণ সহায়তা দিয়েছে সরকার।

মঙ্গলবার এক তথ্য বিবরণীতে বলা হয়, ৬৪ জেলা প্রশাসন থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ১ জুন পর্যন্ত সারাদেশে চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে প্রায় ১ লাখ ৯২ হাজার মেট্রিক টন। এতে উপকারভোগী পরিবার সংখ্যা ১ কোটি ৪১ লাখ ১৮ হাজার ৪৮৮টি এবং উপকারভোগী লোকসংখ্যা ৬ কোটি ২৩ লাখ ১৪ হাজার ৪০৯ জন। নগদ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে প্রায় ১১০ কোটি টাকা।

এর মধ্যে নগদ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ৮৬ কোটি ৪৩ লাখ ৭২ হাজার টাকা এবং বিতরণ করা হয়েছে প্রায় ৭৫ কোটি ৭১ লাখ ১৮ হাজার টাকা। এতে উপকারভোগীর পরিবার সংখ্যা ৮৪ লাখ ৭ হাজার ১০৭টি এবং উপকারভোগী লোক সংখ্যা ৩ কোটি ৭৬ লাখ ১৫ হাজার ৭৯ জন।

শিশু খাদ্য সহায়ক হিসেবে বরাদ্দ ২৩ কোটি ৯৪ লাক্ষ টাকা এবং এ পর্যন্ত বিতরণ করা হয়েছে প্রায় ১৯ কোটি ৩১ লাখ ৫৩ হাজার টাকা। এতে উপকারভোগী পরিবার সংখ্যা ৬ লাখ ১০ হাজার ২৫১টি এবং লোক সংখ্যা ১২ লাখ ৮৪ হাজার ২০০ জন।

শেয়ার করুন !
  • 46
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!