স্বীকার করলেন হেলথ ডিজি- ‘হ্যাঁ, করোনা হয়েছিল আমার’

0

স্বাস্থ্য বার্তা ডেস্ক:

অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি, হেলথ) অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ। সেই অসুস্থতা কী ছিল, তা খুলে বলেননি তিনি। তবে গুঞ্জন ছিল, করোনা ভাইরাসে আক্রা’ন্ত ছিলেন। ডা. আবুল কালাদ আজাদ এবার সেই গুঞ্জনের সত্যতা স্বীকার করে নিলেন। জানালেন- হ্যাঁ, করোনা ভাইরাসেই আক্রা’ন্ত হয়েছিলেন।

বৃহস্পতিবার (৪ জুন) ‘করোনা ট্রেসার বিডি’ নামের একটি অ্যাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান।

অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে ডা. আজাদ বলেন, আমি আপনাদের দোয়ায় সুস্থ হয়ে ফিরে এসেছি। সাধারণত যারা সং’ক্রমিত হয়, তাদের সবাইকে আমি রোগী বলি না, তারা কোভিড সং’ক্রমিত ব্যক্তি। কিন্তু আমি একজন রোগী ছিলাম এবং আমাকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে। একজন হাসপাতালে ভর্তি হওয়া কোভিড-১৯ আক্রা’ন্ত রোগীর যে অভিজ্ঞতা হয়, সেগুলোও আমি সঞ্চয় করেছি।

সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, মানুষকে ব্যক্তিগতভাবে সতর্ক হতে। তবে এটা সত্য, আমরা গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি না যে কার কোভিড হবে, আর কার হবে না।

এর আগে, গত ১ জুন অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ নিজেই জানান, সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে নিজের কর্মস্থলে যোগ দিয়েছেন। তবে কেন হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছিল, সে প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে যান তিনি।

গত ১২ মে জানা যায়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ আইসোলেশনে আছেন। তার পরিবারের একজন সদস্য নভেল করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রা’ন্ত হওয়ায় তিনি হোম আইসোলেশনে ছিলেন বলে জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একটি সূত্র।

তবে ওই সময় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জনসংযোগ কর্মকর্তা আক্কাস আলী শেখ বলেন, ডা. আবুল কালাম আজাদ আইসোলেশনে নেই। দীর্ঘ দিন একটানা কাজ করার ফলে তিনি শারীরিকভাবে ক্লান্ত। ফলে ছুটি নিয়ে বাড়িতে বিশ্রামে আছেন।

সেদিনই ডা. আবুল কালাদ আজাদের শারীরিক অসুস্থতার কারণে সাময়িকভাবে প্রতিষ্ঠানটির অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানাকে দায়িত্ব হস্তান্তর করে চিঠি ইস্যু হয়।

মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদের সই করা সেই চিঠিতে বলা হয়, আমি নিম্নস্বাক্ষরকারী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডাক্তার আবুল কালাম আজাদ, অসুস্থতাজনিত কারণে সাময়িক সময়ের জন্য অফিসে আসতে পারব না। এই সাময়িক সময়ের জন্য পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডাক্তার নাসিমা সুলতানা মহাপরিচালকের দায়িত্ব পালন করবেন। মহাপরিচালকের বর্তমান শারীরিক অবস্থায় তিনি বাড়িতে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন এবং অবস্থার অবনতি না হলে তিনি বাড়িতে থেকে সীমিত পর্যায়ে পত্র স্বাক্ষর, নির্দেশনা প্রদান ও ভিডিও কনফারেন্সে যোগদান করার চেষ্টা করবেন।

এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে বলেও উল্লেখ করা হয় চিঠিতে।

শেয়ার করুন !
  • 45
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!