করোনা হয়েছে জেনেও নিয়মিত নামাজ পড়াচ্ছিলেন ইমাম, শতাধিক মুসল্লি কোয়ারান্টাইনে

0

মাদারীপুর প্রতিনিধি:

মাদারীপুর শিবচরের একটি মসজিদের ইমাম করোনা শনাক্তের পরও বাড়িতে বসে থাকেননি। প্রশাসনের নির্দেশ না মেনে বাড়ির বাইরে গিয়ে নামাজ পড়ানোর কাজ করেছেন।

অবশেষে সংবাদ পেয়ে স্বাস্থ্য বিভাগ ও পুলিশ শনিবার রাতে তার বাড়ি লকডাউন করে হোম আইসোলেশনের ব্যবস্থা নিয়েছে। অন্যদিকে তার সংস্পর্শে থাকায় শতাধিক মুসল্লিকে পাঠানো হয়েছে হোম কোয়ারান্টাইনে।

সূত্র জানায়, শিবচর কাদিরপুরের একজন ইমাম করোনার উপসর্গ নিয়ে ঢাকায় যান। সেখানে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষার জন্য দেন। এরপর শিবচর ফিরে আগের মতো নিয়মিত মসজিদে নামাজ পড়াতেন। ৪ জুন তিনি জানতে পারেন নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পজেটিভ এসেছে।

এ অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তাকে হোম আইসোলেশনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়। কিন্তু তিনি তা মানেননি। বাড়িতে না থেকে তিনি আগের মতোই নামাজ পড়াচ্ছিলেন। স্থানীয় স্বাস্থ্যকর্মীর মাধ্যমে খবর পেয়ে শনিবার রাতে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এম রাকিবুল হাসান, ওসি আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কর্মকর্তা ডা. শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ যান কাদিরপুর গ্রামে।

ইমামের বাড়ি লকডাউন করার পাশাপাশি তাকে কঠোরভাবে হোম আইসোলেশন পালনের নির্দেশ দেন প্রশাসনিক কর্মকর্তারা। এ ঘটনার পর ইমামের সংস্পর্শে আসা শতাধিক মুসল্লিকে হোম কোয়ারান্টাইনে পাঠানো হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কর্মকর্তা ডা. শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ বলেন, জ্বর, গলাব্যথাসহ উপসর্গ দেখা দিলে ইমাম নিজেই ঢাকায় করোনার টেস্ট করান। তারপর আবার তার নিয়মিত কর্মকাণ্ডে জড়িত ছিলেন। ৪ জুন তার করোনা শনাক্ত হলে বাড়ি লকডাউনের পাশাপাশি তাকে আইসোলেশনে থাকতে বলা হয়। অথচ তিনি বিষয়টি গোপন রেখে মসজিদে গিয়ে নামাজ পড়ানো, মুসল্লিদের সাথে নিয়মিত আলাপচারিতা ও সামাজিক মেলামেশা করছিলেন। স্বাস্থ্যকর্মীর মাধ্যমে খবর পেয়ে ম্যাজিস্ট্রেট, ওসিসহ আমরা গিয়ে তাকে লকডাউনে বাধ্য করেছি।

শিবচর থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, করোনা পজেটিভ জেনেও ইমাম নামাজ পড়াচ্ছিলেন। তাই ইমামের সংস্পর্শে যাওয়া মুসল্লিদেরকে হোম কোয়ারান্টাইনে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে গতকাল রবিবার শিবচরে ২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে সেখানে আক্রা’ন্তের সংখ্যা ৩৮ জন।

শেয়ার করুন !
  • 3.4K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply