২ কোটি টাকা খরচে বিদায়ী ম্যাচের আয়োজনে রাজি নন মাশরাফি

0

স্পোর্টস ডেস্ক:

দেশের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটাররা ভালো পারিশ্রমিক পাচ্ছে না। টেস্ট ক্রিকেটও উন্নতি হচ্ছে না। আর এমন পরিস্থিতিতে ২ কোটি টাকা খরচে নিজের বিদায়ী ম্যাচ খেলতে রাজি হননি মাশরাফি বিন মর্তুজা। ২ কোটি টাকায় বিদায়ী সিরিজ আয়োজনের পরিবর্তে সেই অর্থ প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে খরচের পরামর্শ টাইগারদের সাবেক অধিনায়কের।

ইএসপিএন ক্রিকইনফোকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ম্যাশ জানিয়েছেন, পাকিস্থানের বিপক্ষে ২০১৯ বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচ খেলেই ক্রিকেটকে বিদায় জানাতে প্রস্তুত ছিলেন তিনি। কিন্তু, সেজন্য জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বিশেষ ওয়ানডে সিরিজ আয়োজনের পক্ষে ছিলেন না। বিসিবি সভাপতির সাথে আলোচনা করে বিপিএল খেলেন।

অধিনায়কত্বের দায়িত্ব ছেড়ে দেন জিম্বাবুয়ে সিরিজের পর। তার জন্য ২ কোটি টাকায় বিদায়ী সিরিজ আয়োজনের পরিবর্তে সেই অর্থ প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে খরচের পরামর্শ মাশরাফির। সেই সাথে ২০২৩ বিশ্বকাপের আগে নতুন অধিনায়ক তৈরি করা সম্ভব বলে মনে করেন ম্যাশ।

এবার কোচদের পাশে তামিম

করোনা ভাইরাসের এই দুর্যোগের সময় দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ চট্টগ্রামের ক্রিকেট একাডেমিগুলো। কোচদের আয়ও তাই বন্ধ। তাদের অনেকের দিন কাটছে কষ্টে। কোচদের অ্যাসোসিয়েশন থেকে স্থানীয় অনেকের সঙ্গে যোগাযোগ করেও কোনো সহায়তা মেলেনি। খবর পেয়ে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন চট্টগ্রামের সন্তান জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

চট্টগ্রামে নিজেদের পারিবারিক রেস্টুরেন্টে রবিবার বিকালে ছোট্ট আয়োজনে ৫০ জন ক্রিকেট কোচকে আর্থিক সহায়তা করা হয় তামিমের পক্ষ থেকে। স্থানীয় ২ জন কোচ তামিমের সঙ্গে যোগাযোগ করার পর চট্টগ্রাম ক্রিকেট কোচেস অ্যাসোসিয়েশন থেকে তালিকা করে এই সহায়তা করা হয়েছে।

স্থানীয়ভাবে এটি সমন্বয় করেছেন তামিমের বড় ভাই জাতীয় ক্রিকেটার নাফিস ইকবাল। নাফিস জানালেন, দায়িত্ববোধের জায়গা থেকেই তামিমের এই উদ্যোগ, তামিম যখন জানতে পেরেছে যে এখানকার কোচরা ক’ষ্টে আছেন, আমাকে বলেছে দ্রুত যেন ব্যবস্থা করি। আমার বা তামিমের ক্রিকেটার হয়ে ওঠার পেছনে তাদের অনেক অবদান। আমরা ছেলেবেলায় যখন খেলা শিখেছি, যে কোনো একাডেমিতে চলে যেতাম। আমার ছেলে এখন খেলছে, সেও যায়।

কোনো কোচ কখনো ফিরিয়ে দেননি বা ভর্তি হতে বলেননি কিংবা ফি চাননি। তাদের দুঃসময়ে পাশে থাকাটাকে তাই দায়িত্ব মনে করেছে তামিম। আমরা কিন্তু একবারও ‘হেল্প’ শব্দটি উচ্চারণ করিনি। আমরা বলছি, সামান্য গিফট। সেটা বিশ্বাসও করি। কোচরা আমাদের কাছে শিক্ষকের মতো। তাদের প্রতি এটা আমাদের সম্মান। কোচদের অ্যাসোসিয়েশনের মাধ্যমে তালিকা করে সব একাডেমির কোচকেই উপহার দেওয়া হয়েছে।

করোনা ভাইরাসের প্র’কোপের শুরু থেকেই নানাভাবে সহায়তা কার্যক্রম চালিয়ে আসছেন তামিম।

শেয়ার করুন !
  • 124
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!