মোহাম্মদ নাসিমকে নিয়ে ব্যঙ্গ করা সেই শিক্ষিকা গ্রেপ্তার

0

সময় এখন ডেস্ক:

সদ্য প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের মৃ’ত্যুর পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাকে নিয়ে ব্যঙ্গ করে স্ট্যাটাস দেওয়ার ঘটনায় বেগম রোকয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) বাংলা বিভাগের শিক্ষক সিরাজাম মুনিরাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তার বিরু’দ্ধে বেরোবি প্রশাসন ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেছিলেন।

শনিবার (১৩ জুন) দিবাগত রাত ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন সর্দারপাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে রংপুর মেট্রোপলিটনের তাজহাট থানা পুলিশ।

তাজহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) রবিউল ইসলাম শনিবার মধ্যরাতে মোবাইল ফোনে বলেন, আমরা কিছুক্ষণ আগে বেরোবি শিক্ষক সিরাজুম মুনিরাকে গ্রেপ্তার করেছি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে তার নামে একটি মামলা করা হয়েছিল। মামলা নম্বর-৮। এই মামলাতেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সিরাজুম মুনিরার বিরু’দ্ধে বেরোবি ছাত্রলীগ শাখার সভাপতি তুষার কিবরিয়াও একই আইনে মামলা দায়ের করেছিলেন। এ প্রসঙ্গে ওসি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতিও ওই শিক্ষকের বিরু’দ্ধে আরেকটি মামলা করেছেন। তবে এক বিষয়ে যেহেতি দুইটি মামলা হয় না, তাই আমরা তার অভিযোগকে সাপ্লিমেন্ট হিসেবে যোগ করে দেবো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের মামলার সঙ্গে।

এর আগে, শনিবার সকালে রাজধানীর শ্যামলীতে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মা’রা যান আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। তার মৃ’ত্যু নিয়ে ব্যঙ্গ করে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে একটি স্ট্যাটাস দেন বেরোবি বাংলা বিভাগের শিক্ষক সিরাজুম মুনিরা। কিছুক্ষণ পর তিনি স্ট্যাটাসটি ডিলিট করলেও ওই স্ট্যাটাসের স্ক্রিনশট ভাইরাল হয়ে যায়। তা নিয়ে তীব্র সমালোচনাও হয়। তার বিরু’দ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হবে বলে জানান বেরোবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি।

পরে রাতে ওই শিক্ষিক ফেসবুকে নতুন একটি স্ট্যাটাস দিয়ে ক্ষমা চান। তিনি লিখেন, একজন সিনিয়র সিটিজেন ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের মৃ’ত্যু সম্পর্কে ভিন্নভাবে অভিমত ব্যক্ত করা ঠিক নয়। কর্মফল যাই হোক না কেন, মৃ’ত্যু সব সময় বেদনাদায়ক ও মর্মান্তিক। এটি অনুধাবনের পরপরই আমি আমার বক্তব্য থেকে সরে এসেছি এবং আমার আগের পোস্ট সরিয়ে দিয়েছি। তারপরও যারা আঘা’ত পেয়েছেন, তাদের কাছে আমি আন্তরিকভাবে ক্ষমাপ্রার্থী।

তবে এর আগেই আগের ওই স্ট্যাটাস নিয়ে সিরাজুম মনিরাকে কারণ দর্শানো নোটিশ দেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তার নামে তাজহাট থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাও করা হয়। একই আইনে মামলা করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতিও।

শেয়ার করুন !
  • 1.3K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!