এলজিবিটিদের সুরক্ষায় মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের ঐতিহাসিক রায়

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

সম-কা’মী, উভ’কামী, রূপান্তর’কামীদের বা ট্রান্সজেন্ডারদের (এলজিবিটি) অধিকার সুরক্ষায় ঐতিহাসিক রায় দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট। রায়ের ফলে এমন পরিচয় দেয়া মানুষেরা এখন কর্মক্ষেত্রে বৈ’ষম্যের শি’কার হলে কিংবা তাদের এমন পরিচয়ের কারণে চাকরিচ্যুত হলে নিয়োগকর্তার বিরু’দ্ধে মামলা করতে পারবেন।

এই রায়ের মাধ্যমে এলজিবিটি পরিচয়দানকারী নাগরিকদের বিরু’দ্ধে কর্মক্ষেত্রে বৈ’ষম্য নিষি’দ্ধ করলো আদালত।

সুপ্রিম কোর্টের এই রায় দেশটির এলজিবিটি পরিচয়দানকারী নাগরিকদের অধিকার রক্ষার ক্ষেত্রে মাইলফলক হয়ে থাকবে। কেননা দেশটিতে এমন বৈ’ষম্য যুগের পর যুগ ধরে চলে আসলেও ২৮টি রাজ্যে তাদের সুরক্ষার কোনো ব্যবস্থা নেই।

আদালতের রায়ের পর দেশটির এলজিবিটি পরিচয়দানকারী নাগরিকদের অধিকার নিয়ে কাজ করা সংগঠন ‘জিএলএএডি’ এর প্রেসিডেন্ট বলেছেন, এলজিবিটি আমেরিকানদের এখন আর তাদের এই পরিচয়ের কারণে চাকরি হারানোর ভ’য় নেই। তারা নির্ভয়ে কাজ করতে পারবেন।

এলজিবিটি পরিচয়ের কারণে চাকরিচ্যুত হওয়া সং’ক্রান্ত দুটি মামলা এবং ট্রান্সজেন্ডারদের (হিজড়া) অধিকারের আরেকটি মামলায় যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট এ রায় দিলেন। সমকামী অধিকারের দুটি মামলার একটি জর্জিয়া এবং অপরটি নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের। আর ট্রান্সজেন্ডারদের অধিকার মামলাটি করা হয়েছে মিশিগান থেকে।

আদালতের রায়ে বলা হয়েছে, এলজিবিটি হিসেবে নিজেকে পরিচয় দেয়ার কারনে কাউকে যদি নিয়োগকর্তা তার প্রতিষ্ঠান থেকে চাকরিচ্যুত করে, তবে তা নাগরিক অধিকার আইনের ল’ঙ্ঘন বলে গণ্য হবে। আর যদি এমন ঘটনা ঘটে তাহলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি নিয়োগকর্তা কিংবা তার চাকরিদাতার বিরু’দ্ধে ব্যবস্থা নিতে আদালতের দারস্থ হতে পারবেন।

এদিকে এমন ঐতিহাসিক রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের এলজিবিটি পরিচয়দানকারী নাগরিকদের সংগঠনগুলো। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে দেখা যাচ্ছে জার্মানি, ফ্রান্স, ইংল্যান্ড, স্পেন, জাপান, ভারত, ইন্দোনেশিয়াসহ বিভিন্ন দেশের এলজিবিটি সংগঠনগুলো বিবৃতি দিয়েছে। এছাড়াও যে সকল দেশে এমন সংগঠন প্রকাশ্য নয়, সে সকল দেশের অনেক নাগরিক ব্যক্তিগতভাবে ধন্যবাদ জানিয়েছে মার্কিন সুপ্রিম কোর্টকে। তাদের মতে, এই রায়টি বিভিন্ন দেশের আদালতের জন্য একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।

শেয়ার করুন !
  • 28
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply